রাজশাহীসহ বিভাগীয় শহরে কখন কোথায় ঈদের জামাত

প্রকাশিত: জুলাই ৯, ২০২২; সময়: ২:২১ pm |
রাজশাহীসহ বিভাগীয় শহরে কখন কোথায় ঈদের জামাত

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : দুই বছর পর কোরবানির ঈদের প্রধান জামাত এবার ফিরছে জাতীয় ঈদগাহে; কোভিড সংক্রমণ নতুন করে বাড়তে থাকায় সবাইকে মানতে হবে কিছু স্বাস্থ্যবিধি।

কোভিড সংক্রমণ ঠেকাতে ধর্ম মন্ত্রণালয় এবারের ঈদ জামাতে স্বাস্থ্যবিধির কিছু কড়াকড়ি ফিরিয়ে এনেছে। ধর্ম মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় বলা হয়েছে- প্রত্যেককে নিজ নিজ বাসা থেকে ওযু করে ঈদগাহে বা মসজিদে আসতে হবে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধ নিশ্চিত করতে মসজিদ বা ঈদগাহের ওযুখানায় সাবান বা হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখতে হবে।

ঈদের জামায়াতে অবশ্যই মাস্ক পরে মসজিদে আসতে হবে। জায়নামাজ ও টুপি নিয়ে আসতে হবে বাসা থেকে। ঈদের নামাজ পড়ার সময় কাতারে দাঁড়ানোর ক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করতে হবে এবং এক কাতার অন্তর অন্তর কাতার করতে হবে। শিশু, বয়োবৃদ্ধ, অসুস্থ ব্যক্তি এবং অসুস্থদের সেবায় নিয়োজিত ব্যক্তিদের ঈদ জামাতে অংশ নেওয়া থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

রাজশাহী

রাজশাহীতে সকাল ৮টায় হযরত শাহ মখদুম (র.) কেন্দ্রীয় ঈদগাহে ঈদের প্রধান জামাত হবে। তবে আবহাওয়া প্রতিকূল থাকলে একই সময়ে ঈদের প্রধান জামাত হবে শাহ মখদুম দরগা জামে মসজিদে।

মানুষ বেশি হলে ৪৫ মিনিটের ব্যবধানে দরগা মসজিদে পর পর দুটি জামাতের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে বলে জামিয়া ইসলামীয়া শাহ মখদুম (রহ.) মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মুফতি মোহাম্মদ শাহাদাত আলী জানিয়েছেন। তিনিই ঈদগাহের জামাতে ইমামতি করবেন।

রাজশাহীতে ঈদের দ্বিতীয় প্রধান জামাত হবে সকাল ৭টা ও ৮টায় মহানগর ঈদগাহে (টিকাপাড়া)। বৃষ্টি হলে একই সময়ে পাশের টিকাপাড়া মোহাম্মপুর জামে মসজিদ কমপ্লেক্সে ঈদের জামাত হবে। এছাড়া সকাল ৮টায় বড় মসজিদ সংলগ্ন সাহেব বাজার জিরোপয়েন্টে, বাঘা শাহী মসজিদে, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে ঈদ জামাত হবে।

ঢাকা

ঢাকার জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে ঈদুল আজহার প্রধান জামাত শুরু হবে রোববার সকাল ৮টায়। মন্ত্রিসভার সদস্য, সংসদ সদস্য, রাজনীতিবিদ, কূটনীতিকসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ সেই জামাতে নামাজ পড়বেন ঈদের সকালে।

ইতোমধ্যে ঈদ জামাতের জন্য সম্পূর্ণ প্রস্তুত করা হয়েছে হাই কোর্ট সংলগ্ন জাতীয় ঈদগাহ মাঠ। সেখানে একসঙ্গে প্রায় ৩৫ হাজার মানুষের নামাজ পড়ার ব্যবস্থা করেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন। ধর্ম মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, আবহাওয়া অনুকূলে না থাকলে বা অন্য কোনো কারণে জাতীয় ঈদগাহে জামাত না হলে তা বায়তুল মোকাররম মসজিদে হবে সকাল সাড়ে ৮টায়।

ইসলামিক ফাউন্ডেশন জানিয়েছে, প্রতিবছরের মত এবারও ঈদুল আজহার দিনে পাঁচটি জামাত হবে ঢাকায় বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে।

চট্টগ্রাম

চট্টগ্রাম মহানগরীতে ঈদুল আজহার প্রধান জামাত হবে জমিয়াতুল ফালাহ জাতীয মসজিদে। সকাল পৌনে ৮টায় এ জামাতে ইমামতি করবেন সৈয়দ আবু তালেব মোহাম্মদ আলাউদ্দিন আল কাদেরী। এছাড়া সকাল পৌনে ৯টায় আরেকটি জামাত হবে এ মসজিদে। সিটি করপোরেশনের তত্ত্বাবধানে লালদীঘি সিটি করপোরেশন শাহী জামে মসজিদে সকাল সাড়ে ৭টায় ঈদ জামাত হবে।

একই সময়ে হযরত শেখ ফরিদ (র.) চশমা ঈদগাহ মসজিদ, সুগন্ধা আবাসিক এলাকা জামে মসজিদ, চকবাজার সিটি করপোরেশন জামে মসজিদ, জহুর হকার্স মার্কেট জামে মসজিদ, দক্ষিণ খুলশী ভিআইপি আবাসিক এলাকা জামে মসজিদ, আরেফীন নগর কেন্দ্রীয় কবর স্থান জামে মসজিদ, সাগরিকা গরু বাজার জামে মসজিদ ও সাগরিকা জহুর আহমদ চৌধুরী স্টেডিয়াম সংলগ্ন মা আয়েশা সিদ্দিকী সিটি করপোরেশন জামে মসজিদে ঈদুল আজহার জামাত হবে।

এর বাইরে নগরীর ৪১টি ওয়ার্ডে সংশ্লিষ্ট কাউন্সিলরদের তত্ত্বাবধানে একটি করে ঈদ জামাত মসজিদ অথবা ঈদগাঁহে হবে। চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন কার্যালয়ের তত্ত্বাবধানে কেন্দ্রীয় ঈদ জামাত কমিটির আয়োজনে সকাল ৮টায় নগরীর এম এ আজিজ স্টেডিয়াম সংলগ্ন জিমনেসিয়াম মাঠে ঈদ জামাতের আয়োজন হয়েছে।

ময়মনসিংহ

ময়মনসিংহ জেলার প্রায় দুই হাজার মসজিদ ও ঈদগাহে এবার ঈদুল আজহার জামাত হবে। ময়মনসিংহ জেলার প্রায় দুই হাজার মসজিদ ও ঈদগাহে এবার ঈদুল আজহার জামাত হবে।শহরের আঞ্জুমান ঈদগাহ মাঠে প্রধান জামাত হবে সকাল ৮টায়। সকাল পৌনে ৯টায় হবে দ্বিতীয় জামাত।

এছাড়া আকুয়া মার্কাজ মসজিদের মাঠে সকাল ৭টা, ময়মনসিংহ মার্কাজ মসজিদে সকাল ৭টায়, বড় মসজিদে সকাল ৯টায়, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের মাঠে সকাল সাড়ে ৮টায়, ভাটিকাশর জামে মসজিদে সকাল সাড়ে ৮টায়, বলাশপুর জামে মসজিদ মাঠে সকাল ৯টায়, সহিলা বুথবাড়িয়া জামে মসজিদ মাঠে সকাল ৯ টায় হবে ঈদ জামাত।

খুলনা

খুলনায় কোরবানির ঈদের প্রধান জামাত হবে সকাল ৮টায় খুলনা সার্কিট হাউজ ময়দানে। ইমামতি করবেন টাউন জামে মসজিদের খতিব মাওলানা মোহম্মদ সালেহ।

তবে আবহাওয়া প্রতিকূল থাকলে খুলনা টাউন জামে মসজিদে সকাল ৮টায় প্রথম ও প্রধান জামাত হবে। এ মসজিদে সকাল ৯টায় এবং সকাল ১০টায় আরও দুটি জামাত হবে। এছাড়া খুলনা সিটি কর্পোরেশনের ৩১টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলরদের তত্ত্বাবধানে নির্ধারিত সময়ে ঈদের জামাত হবে।

বরিশাল

বরিশালে সকাল ৭টায় ঈদের প্রধান জামাত হবে নগরীর বান্দ রোড কেন্দ্রীয় হেমায়েতউদ্দিন ঈদ গা ময়দানে।

নগরীর জামে এবাদুল্লাহ ও জামে কসাই মসজিদে দুটি করে জামাত হবে। দুটি মসজিদেই প্রথম জামাত সকাল ৮টায় এবং দ্বিতীয় জামাত সকাল সাড়ে ৯টায় অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া নগরীতে সাড়ে ৫ শ মসজিদে সকাল সাতটা থেকে শুরু করে বিভিন্ন সময়ে ঈদ জামাতের ব্যবস্থা হয়েছে।

সদর উপজেলার চরমোনাই দরবার শরীফে সকাল সাড়ে ৮টায়, উজিরপুর উপজেলার গুঠিয়ার বায়তুল আমান জামে মসজিদে ৮টায় ঈদের জামাত হবে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

রংপুর

রংপুর শহরে ঈদের প্রধান জামাত হবে সকাল সাড়ে ৮টায় রংপুর কালেক্টরেট ঈদগাহ ময়দানে। তবে আবহাওয়া খারাপ থাকলে কিংবা বৃষ্টি হলে সকাল ৯টায় মডেল মসজিদে হবে প্রধান জামাত।

সদর মসজিদ মাঠ, পশ্চিম নীলকন্ঠ ঈদগাহ মাঠ, মুন্সিপাড়া ঈদগাহ, রংপুর মেডিকেল কলেজ কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ সংলগ্ন ঈদগাহ মাঠে সকাল সাড়ে ৮টায় এবং বড়বাড়ি ঈদগাহ, দামুদরপুর বড় ঈদগাহ মাঠে সকাল ৯টায় ঈদের জামাত হবে। এছাড়া নগরী ও জেলার বিভিন্ন এলাকার বেশিরভাগ ঈদগাহ মাঠে সকাল সাড়ে ৮টা থেকে সকাল ৯টার মধ্যে ঈদ জামাতের আয়োজন হয়েছে।

সিলেট

সিলেটে কোরবানির ঈদের প্রধান জামাত হবে শহরের শাহী ঈদগাহ ময়দানে। সকাল ৮টায় এ জামাতে অংশ নেবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন এবং মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

সিলেট সরকারী আলীয়া মাদরাসা মাঠ, হযরত শাহজালাল (র.) দরগাহ মসজিদ এবং বন্দরবাজার কালেক্টরেট জামে মসজিদেও ৮টায় ঈদ জামাতের আয়োজন হয়েছে।

শোলাকিয়া

মহামারীর কারণে গত দুই বছর কোরবানির ঈদে কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া মাঠে ঈদ জামাত হয়নি। আগে এ মাঠেই দেশের সর্ববৃহৎ ঈদ জামাতের আয়োজন হত। এবার ১৯৫তম ঈদুল আজহার জামাতের জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দান। সকাল ৯টায় এ জামাতে ইমামতি করবেন মাওলানা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ।

কিশোরগঞ্জের জেলা প্রশাসক ও শোলাকিয়া ঈদগাহ পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ শামীম আলম বলেছেন, জায়নামাজ ছাড়া ঈদগাহে কিছু আনা যাবে না। ব্যাগ, মোবাইল ফোন বা ছাতাও না।

আর কোভিড সংক্রমণ যেহেতু কিছুটা বেড়েছে, ঈদের নামাজে সবাইকে মাস্ক পরার পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। ঈদের এই জামাতে যাতায়াতের সুবিধার জন্য বরাবরের মতই শোলাকিয়া স্পেশাল নামে দুটি বিশেষ ট্রেনের ব্যবস্থা করেছে রেল কর্তৃপক্ষ।

দিনাজপুর

সবচেয়ে বড় ঈদ জামাত আয়োজনে কয়েক বছর ধরে শোলাকিয়ার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে যাচ্ছে দিনাজপুর গোর-এ-শহীদ বড় ময়দান। আয়োজকদের দাবি, প্রায় ২২ একর আয়তনের এ মাঠে পাঁচ থেকে ছয় লাখ মানুষ সেখানে একসঙ্গে নামাজ পড়তে পারেন। সকাল সাড়ে ৮টায় সেখানে কোরবানির ঈদের জামাত হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে