রাজশাহী জেলা যুবদল নেতার বিরুদ্ধে অপপ্রচারের অভিযোগ

প্রকাশিত: জুলাই ৫, ২০২২; সময়: ১১:২২ pm |
রাজশাহী জেলা যুবদল নেতার বিরুদ্ধে অপপ্রচারের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী জেলা যুবদলের সদস্য সচিব রেজাউল করিম টুটুলের সাংগঠনিক তৎপরতায় ঈর্ষান্বিত হয়ে একটি মহল তার বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচার করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ব্যাপারে উপজেলা বিএনপি ও সহযোগি অঙ্গ সংগঠনের পক্ষ থেকে নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি জানিয়েছেন ।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দরা জানান, আওয়ামী লীগের দুঃশাসন ও নৈরাজ্যের বিরুদ্ধে আন্দোলন সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়ার নির্দেশ দিয়েছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। এরই ধারাবাহিকতায় সাংগঠনিক তৎপরতা বৃদ্ধির লক্ষে জেলা যুবদলের সদস্য সচিব রেজাউল করিম টুটুল কাজ করে যাচ্ছেন। তার বাড়ি বাগমারা উপজেলায় হওয়ায় বিশেষ করে উপজেলার ১৬টি ইউনিয়ন ও ২টি পৌরসভার নেতৃবৃন্দ কে সঙ্গে নিয়ে বিভিন্ন গ্রাম ও মহল্লায় সাংগঠনিক নানা কর্মসূচী পালন করে আসছেন।

এসময় তিনি দলীয় বিভিন্ন প্রয়াত নেতৃবৃন্দ ও নেতৃবৃন্দের নিকটাত্বীয়দের কবর জিয়ারত ও দোয়া অনুষ্ঠানে যোগদান অব্যাহত রেখেছেন। কয়েকদিন আগে বিএনপির সাবেক এমপি প্রয়াত আবু হেনা, বিএনপি সমর্থিত যোগিপাড়ার সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান প্রয়াত সাইফুল ইসলাম ও হামিরকুৎসা ইউনিয়ের সাবেক যুবদল সভাপতি মোশাররফ হোসেন রতনের পিতা সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মাদ আলী খামারুর কবর জিয়ারত ও দোয়া মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন। ওই সময় উৎসুক অনেকেই ছবি তোলেন। ওই ছবিতে টুটুলের সঙ্গে সমবেত অনেকের ছবি রয়েছে। ওই ছবির মধ্যে দুএকজনের ছবি রয়েছে তাকে পুঁজি করে ওই মহল টুটুলকে বিতর্কিত করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

এরই মধ্যে তারা সাংবাদিকদের অসত্য তথ্য দিয়ে বিভিন্ন অনলাইন নিউজ পোর্টালে ‘আবারও বিতর্কে জেলা যুবদলের সদস্য সচিব টুটুল’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করে। এসব সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন নেতৃবৃন্দ।

তারা জানান, টুটুলের নেতৃত্বে বাগমারায় নেতৃবৃন্দরা যে কোন আন্দোলনে সুসংগঠিত। বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার কারা মুক্তি, রোগমুক্তি কামনা করে বিভিন্ন মসজিদ, এতিমখানায় দোয়া ও মিলাদ মাহফিল, খাবার বিতরণ কার্যক্রমসহ বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকছেন।

এতে মাঠ পর্যায়ে টুটুলের জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে তার বিরুদ্ধে অপপ্রচারে লিপ্ত আওয়ামীলীগের সঙ্গে লেজুরবৃত্তি করে চলা বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের লেবাসধারী কতিপয় ব্যক্তি। বেনামে বিভিন্ন ফেসবুক আইডির মাধ্যমেও তারা টুটুলের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। ওইসব আইডির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানানো হয়।

বিবৃতি দান কারীরা হলেন, উপজেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক ইউপি চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট মনিরুজ্জামান রঞ্জু, উপজেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি শহিদুজ্জামান মুকুল, সাবেক উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি ও সাবেক উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক এবং উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য শাহীন রেজা, সাবেক আহবায়ক আব্দুল মালেক মানিক , সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক সাহাদত হোসেন, যুগ্ম আহবায়ক রাকিবুল ইসলাম সিদ্দিক, আলাল উদ্দিন আলাল, জাহাঙ্গীর আলম, বজলুর রহমান রকেট, এমরান হোসেন, আব্দুল মতিন, ভবানীগঞ্জ পৌর যুবদলের আহ্বায়ক শাহিনুর ইসলাম শাহিন, সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক জহুরুল ইসলাম, উপজেলা কৃষকদলের আহবায়ক মাসুদুর রহমান, সদস্য সচিব আব্দুল মালেক, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক মামনুর রশিদ মামুন, সদস্য সচিব মেহেদী হাসান টিপ, ভবানীগঞ্জ পৌর স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক সাইদুল ইসলাম গাজি, সদস্য সচিব ডিএম শাহিন, উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক মহব্বত ইসলাম, সদস্য সচিব উজ্জল রহমান, ভবানীগঞ্জ পৌর ছাত্রদলের রবিউল ইসলাম গণি, সদস্য সচিব শফিকুল ইসলাম।

এ ব্যাপারে উপজেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক গণিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট মনিরুজ্জামান রঞ্জু জানান, দলের জন্য যারা কাজ করবে তাদের কে সহযোগিতা করা উচিত। রেজাউল করিম টুটুল দলের জন্য কাজ করায় নেতৃবৃন্দ উজ্জীবিত হচ্ছে। এতে ঈর্ষান্বিত হয়ে একটি কুচক্রি মহল তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। এর আমি নিন্দা ও

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে