শিশুদের যেসব বদ অভ্যাস দূর না করলে ভবিষ্যতে বিপদ!

প্রকাশিত: জুলাই ৩, ২০২২; সময়: ১২:৩৬ pm |
শিশুদের যেসব বদ অভ্যাস দূর না করলে ভবিষ্যতে বিপদ!

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : মা-বাবার কাছে সবচেয়ে আপনজন সন্তান। সবাই চান ভালো মানুষ হিসেবে যেন সন্তান বেড়ে ওঠে। খারাপ অভ্যাস থেকে তাদের দূরে রাখতে চেষ্টা করেন তারা। এরপরও শিশুদের মধ্যে এমন কিছু অভ্যাস গড়ে ওঠে যা ভবিষ্যতে খারাপ প্রভাব ফেলে।

অনেক শিশুর মধ্যে তুলনা করার স্বভাব দেখা যায়। তারা ভাবে আমার বন্ধুদের এই সেই আছে, আমার কেন নেই। আবার জন্মদিনে কাঙ্ক্ষিত উপহার না পেলেও শিশুও হতাশায় ভোগে। বন্ধুদের ভাগ্যবান মনে করে। অভিভাবক হিসেবে মা-বাবার উচিত শিশুকে এমনভাবে বোঝানো যেন তার মনে এমন আচরণ জায়গা না করে নেয়।

কীভাবে বুঝবেন শিশুর খারাপ অভ্যাস হয়েছে কিনা?

শিশুরা ভীষণ আবেগি হয়। নিজের জিনিস সম্পর্কে তারা আবেগ নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না। হোক তা নতুন খেলনা কিংবা আইসক্রিম- শিশুরা নিজেরাই নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। কিছু কিছু ক্ষেত্রে নতুন জিনিস বা পছন্দের খাবারের প্রতি শিশুর এই আবেগ জেদের পর্যায়ে চলে যায়। একসময় যা অভ্যাসে পরিণত হয়। কিছু কিছু স্বভাব রয়েছে যার মাধ্যমে শিশুর খারাপ স্বভাব বুঝা যায়।

‘না’ শুনতেই চায় না

নিজের চাহিদার কথা বললে ‘না’ শুনলে শিশু কেমন প্রতিক্রিয়া দেখায় তা খেয়াল করুন। শিশু যত বেশি কথা শুনবে, বাস্তবতাকে গ্রহণ করার প্রবণতা তত বাড়বে। কিন্তু সে যদি সব কথার প্রতিত্তুরে না বলে, তবে সচেতন হোন। শিশু কিছু চাওয়া মাত্র তা দেওয়া থেকে বিরত থাকুন। অপ্রয়োজনীয় জিনিস হলে তা কেন দরকার নেই সেটি শিশুকে বুঝিয়ে বলুন। সন্তান যদি ইচ্ছার বিরুদ্ধে কিছু সহ্য করতে না পারে, তাহলে তার ভবিষ্যত অনিশ্চিত হয়ে পড়বে।

পছন্দসই উপহার চাই

উপহার যে সবসময় পছন্দের হবে তা কিন্তু নয়। পছন্দ না হলেও ভালোবাসা দিয়ে উপহার গ্রহণ করা উচিত। শিশুদের মধ্যে এই অভ্যাস গড়ে তোলা জরুরি। পছন্দের উপহার না পেলে আপনার সন্তান যদি রেগে যায়, প্রতিবাদ করে, তবে বুঝবেন এটি তার ভবিষ্যতের জন্য ভালো নয়।

ঘন ঘন রেগে যাওয়া

নিজের অপছন্দ বা অনিচ্ছা প্রকাশ করার ক্ষেত্রে শিশুরা যে উপায়টি সবচেয়ে বেশি কাজে লাগায় তা হলো রাগ প্রকাশ করা। টিভি রিমোট হাত থেকে নিলেই কিংবা চিপস-আইসক্রিম কিনে না দিলেই কি শিশু রেগে যাচ্ছে? তাহলে সচেতন হোন। শিশু যদি ক্রমাগত বিরক্তি আর রাগ প্রকাশ করে, তবে বুঝবেন তার যা আছে তা নিয়ে সে মোটেও কৃতজ্ঞ নয়।

শিষ্টাচারের অভাব

শিষ্টাচার, সৌজন্যতা এগুলো ছোটবেলা থেকেই অল্প অল্প করে রপ্ত করতে হয়। শিশু যদি কিছু পাওয়ার পর ধন্যবাদ না জানায় কিংবা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ না করে তবে বুঝতে হবে শিশুর মধ্যে সৌজন্যের অভাব রয়েছে। বড়দের গায়ে পা তুলে দেওয়া, হুটহাট মারামারি করা- এই স্বভাবগুলোও নজরে রাখা জরুরি।

শিশুর আচরণে এই বিষয়গুলো দেখা গেলে সচেতন হোন। নয়তো ভবিষ্যতে সন্তানকে নিয়ে বিপদে পড়তে হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে