ভারতে বাড়ছে ধর্মীয় সহিংসতা

প্রকাশিত: জুন ১৬, ২০২২; সময়: ১২:৩৩ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : ভারতে ক্রমেই বেড়ে চলেছে সাম্প্রদায়িক সহিংসতা। ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) ফের ক্ষমতায় এলে দেশের সাম্প্রদায়িক পরিস্থিতির অবনতি ঘটবে- এমনটাই আশঙ্কা করেছিল সচেতন নাগরিক সমাজ। তাদের সে আশঙ্কাই সত্যি হলো।

বিজেপি ফের ক্ষমতায় আসায় হিন্দুত্ববাদ প্রতিষ্ঠার সুবর্ণ সুযোগ পেয়েছে হিন্দুত্ববাদীরা। এ সুযোগে তারা সাম্প্রদায়িক উস্কানিমূলক বক্তব্য প্রদানের পাশাপাশি ভারতকে ‘বিশুদ্ধ’ হিন্দুরাষ্ট্রে পরিণত করার প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। এরই অংশ হিসেবে বিজেপির দুই নেতা মহানবী (সা.)-কে নিয়ে কটূক্তি করার প্রয়াশ পেয়েছে।

এদিকে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে এখনও বিক্ষোভ অব্যাহত রয়েছে। রাজ্যে অশান্তির নিন্দা জানিয়েছেন হাইকোর্ট। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

গত বছরের সাধারণ নির্বাচনে বিজেপি ব্যাপক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হয়েছে। বিজেপি ক্ষমতায় আসার পরপরই সংঘ পরিবারভুক্ত সংগঠনগুলো সক্রিয় হয়ে উঠেছে।

তাদের উস্কানিতে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা-হাঙ্গামার ঘটনা ঘটেই চলেছে। ভারতের বিভিন্ন এলাকায় মুসলমান ও কোনো কোনো এলাকায় খ্রিস্টানদের ওপর হামলা হয়েছে। এ পরিস্থিতিতে সংগত কারণেই মুসলমান ও খ্রিস্টানদের মধ্যে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা দেখা দিয়েছে।

তাদের অধিকার ও নিরাপত্তা ভয়াবহ হুমকির মুখে পড়েছে। মঙ্গলবার কলকাতায় মুসলমান সম্প্রদায়ের হাজার হাজার মানুষ বিক্ষোভ মিছিল করেছেন। এদিন ছয়জন প্রাক্তন বিচারক বলেছেন, রাজ্য সরকার মুসলমাদের বাড়ি ভেঙে বেআইনি কাজ করেছে।

হযরত মুহাম্মদ (সা.)-কে নিয়ে বিজেপি নেতা-নেত্রীর বিতর্কিত মন্তব্যের প্রতিবাদে ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে শুরু হয়েছে ব্যাপক বিক্ষোভ। বিক্ষোভে জড়িত থাকার অভিযোগে উত্তরপ্রদেশের পুলিশ বিভিন্ন জেলা থেকে তিন শতাধিক মানুষকে গ্রেপ্তার করেছে।

বেশ কয়েকজন মুসলিম ব্যক্তির বাড়ি গুঁড়িয়ে দিয়েছে ভারতের নিরাপত্তা বাহিনী। উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের নির্দেশেই এসব বাড়ি গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

প্রধান বিচারপতিকে উদ্দেশ করে মঙ্গলবার ছয় সাবেক বিচারপতি এবং ছয় সিনিয়র আইনজীবী জাভেদের বাড়ি ধ্বংস করার রাষ্ট্রীয় পদক্ষেপের নিন্দা জানিয়েছেন।

অন্যদিকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে সব রাজনৈতিক দলেরই দায়িত্ব রয়েছে বলে মনে করেন কলকাতা হাইকোর্ট। হাওড়াসহ রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় সাম্প্রতিক হিংসার ঘটনার নিন্দা করে গতকাল বুধবার হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ মন্তব্য করে, এ ঘটনার পুনরাবৃত্তি যেন না হয়, সেদিকে নজর রাখতে হবে। গোটা ঘটনায় হাইকোর্ট চিন্তিত বলেও জানিয়েছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপে