পঞ্চগড়ে পৃথক দুর্ঘটনায় ৩ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত: জুন ১৪, ২০২২; সময়: ২:৫৮ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : পঞ্চগড়ে পৃথক ঘটনায় তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (১৪ জুন) পঞ্চগড় সদর ও তেঁতুলিয়ায় এসব ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, পঞ্চগড়-ঢাকা মহাসড়কের ট্রাক টার্মিনাল এলাকায় ট্রাকের ধাক্কায় জহিরুল ইসলাম (৫০) নামে এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। এ সময় তার ছেলে এনামুল হক (৩৫) গুরুতর আহত হয়েছেন। তাদের বাড়ি তেতুঁলিয়া উপজেলার শালবাহানহাট ইউনিয়নের লোহাকাচি গ্রামে। সে ওই এলাকার মৃত ইসাহাক আলীর ছেলে।

এ ঘটনায় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষুব্ধ জনতা। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে যান চলাচল স্বাভাবিক করে। আহত এনামুলকে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ট্রাক ও চালককে আটক করা যায়নি বলে জানিয়েছে পুলিশ।

পঞ্চগড় সদর উপজেলার মাগুরা ইউনিয়নের আজাদপুর এলাকায় ডিস ক্যাবলের সংযোগ বিছিন্ন করতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে শহীদুল ইসলাম (৪০) নামে একজনের মৃত্যু হয়েছে। বিদ্যুতায়িত হয়ে অজ্ঞান হলে তাকে উদ্ধার করে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। শহীদুল ওই এলাকার মৃত কানজু মোহাম্মদের ছেলে।

এদিকে তেতুঁলিয়া উপজেলার তেঁতুলিয়া ইউনিয়নের বুড়িমুটকি এলাকায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শহীদ (৪০) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। তিনি ওই এলাকার মৃত মোশাররফ হোসেনের ছেলে। এ সময় শহীদের ভগ্নিপতি সাদ্দাম আহত হন।

পুলিশ জানায়, তেঁতুলিয়া উপজেলার সদর ইউনিয়নের বুড়িমুটকি এলাকার শান্তি রানী নামে এক নারীর বাড়িতে সলিম উদ্দীন নামে এক ব্যক্তির যাতায়াত ছিল। এ নিয়ে সোমবার রাতে সলিমের সঙ্গে শহীদ ও সাদ্দামের বাকবিতণ্ডা হয়। এক পর্যায়ে সলিমের লোকজনের মারধরে শহীদ ও সাদ্দাম আহত হন। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় তাদের তেতুঁলিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শহীদের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় শহীদের স্ত্রী ফেন্সি আক্তার বাদী হয়ে ১১ জনকে আসিমি করে তেতুঁলিয়া মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

পঞ্চগড় সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল লতিফ মিয়া ও তেতুঁলিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু ছায়েম মিয়া পৃথক পৃথক ঘটনায় তিনজনের মৃত্যুর বিষয় নিশ্চিত করেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপে