শিবগঞ্জে পল্লী বিদ্যুতের অতিরিক্ত বিলে অতিষ্ঠ গ্রাহক

প্রকাশিত: মে ২৮, ২০২২; সময়: ৬:৫৪ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, শিবগঞ্জ : চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির বিলে অতিষ্ঠ গ্রাহক। উপজেলার প্রায় গ্রাহকের বিদ্যুৎ বিলের কপিতে নিজের মনগড়া লাগামহীন বিল তৈরির অভিযোগ উঠেছে। যদিও নির্দিষ্ট সময়ে বিল পরিশোধ করতে বলেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির শিবগঞ্জ জোনাল অফিস।

শনিবার দুপুরে লাগামহীন বিল দেখে অতিষ্ঠ হয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন গ্রাহকরা। অভিযোগ রয়েছে- ভুতুরে বিলের কারণে গুণতে হচ্ছে প্রকৃত বিলের চেয়ে দুই থেকে তিনগুণ অতিরিক্ত টাকা। বিশেষ করে চলতি মাসের তৈরি ভুতুরে বিল নিয়ে হয়রানির শিকার হচ্ছেন উপজেলার হাজারো গ্রাহক। অনেকে অতিরিক্ত বিল দেখে কানসাটে অবস্থিত শিবগঞ্জ জোনাল অফিসে গিয়ে বিলের কপি সংশোধন করছেন।

অভিযোগ উঠেছে, মিটার রিডার বাড়ি বাড়ি না গিয়েই ইচ্ছে মতো রিডিং বসানোর কারণেই এমন ঘটনা ঘটেছে। এতে করে গ্রাহকদের অতিরিক্ত চার্জ গুণতে হচ্ছে। বিগত কয়েক মাসের তুলনায় মে মাসে হঠাৎ বিলের পরিমাণ দুই থেকে তিনগুণ বৃদ্ধি পাওয়ায় গ্রাহকদের মাঝে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। বিদ্যুৎ বিলের কপি হাতে পেয়ে গ্রাহকরা অভিযোগ জানালে পল্লী বিদ্যুৎ অফিস আগামী মাসে সমন্বয় করা হবে বললেও এমন আশ্বাসে আস্থা রাখতে পারছেন না গ্রাহকরা।

গ্রাহকদের মতে পল্লী বিদ্যুৎ একবার যে বিলের বোঝা গ্রাহকদের ঘাড়ে চাপিয়ে দেয় তা বিভিন্ন নিয়ম দেখিয়ে আদায় করেই ছাড়ে।

এদিকে, কানসাট, শ্যামপুর, মোবারকপুর, বিনোদপুর, দাইপুখুরিয়া, চককীতি ও শাহাবাজপুরসহ বেশ কয়েকটি ইউনিয়নে খোঁজ নিয়ে শিবগঞ্জ জোনাল অফিসের তৈরি করা লাগামহীম ভুতুরে বিলের তথ্য উঠে এসেছে। জানা গেছে- শিবগঞ্জ জোনাল অফিসের অধীনে প্রায় ৭৭ হাজার গ্রাহক। যা প্রায় মিটিারের রিডাররা দুই থেকে তিন গুণ রিডিং বেশি লিখে বিল তৈরি করে গ্রাহকদের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিয়েছে।

বর্তমানে আবাসিক ক্ষেত্রে ১-৭৫ ইউনিট পর্যন্ত প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দর ধরা হয়েছে ৪ দশমিক ১৯ টাকা, ৭৫-২০০ ইউনিট পর্যন্ত ৫ দশমিক ৭২ টাকা, ২০১-৩০০ ইউনিট পর্যন্ত ৬ টাকা। এভাবে ক্রমাগত দর নির্ধারণ করে বিল তৈরি করছে শিবগঞ্জ জোনাল অফিস। সাধারণ গ্রাহকদের পরিবারে সর্ব নিম্ন বিদ্যুৎ যদিও ব্যবহার করে তা ২৫-৩০ বা ৩০-৩৫ ইউনিট।

কিন্তু এসব পরিবারের মিটারগুলোর দুই থেকে তিন গুণ বিল বাড়িয়ে দিয়ে বিল দিতে বাধ্য করছে শিবগঞ্জ জোনাল অফিস। আজমল আলী নামে এক গ্রাহক জানান, বাড়িতে প্রতি মাসে ৫০-৭৫ ইউনিটের মতো ব্যবহার হয়। কিন্তু এই মাসে বিলের কপি ২৫০ ইউনিট উল্লেখ করে বিলের কপি দিয়েছে। অথচ মিটারে ১০০ ইউনিট বেশি দেখেছে। এতে অনেক টাকা জরিমানা দিতে হচ্ছে।

শুধু মিটারের ক্ষেত্রে নয়, এলাকার প্রতি মিটারের একই অতিরিক্ত বিল তৈরি করেছে। এ বিষয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির শিবগঞ্জ জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার প্রকৌশলী গোলাম সারওয়ার মুর্শেদ জানান, জুন-জুলাই মাসকে সামনে রেখে বিলগুলো তৈরি করতে তারিখ এগিয়ে নেয়া হয়।

সে জন্য হয়তো কিছু কিছু মিটারের বিল বেশি লেখা হয়েছে। এছাড়া অনেকের বকেয়া বিল থাকার জন্য তাদের বিলে বাড়িয়ে দেয়া হয়েছে। কিন্তু ইচ্ছে করে বিলগুলো বৃদ্ধি করা হয়নি।

যদি বিলের কপিতে বেশি বিল লেখা থাকে, তাহলে ভূলবশত লেখা হয়েছে। গ্রাহকরা অফিসে আসে বিল সংশোধন করার উপায় রয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও খবর

  • ধামইরহাটে হ্যান্ড্রেড হিরোকে সংবর্ধনা প্রদান
  • নাটোরে ভুল অপারেশনে গৃহবধুর মৃত্যুর অভিযোগ
  • পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে আনন্দ র‌্যালী
  • সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জে র‍্যাবের অভিযানে ৫০ কেজি গাঁজাসহ গ্রেপ্তার ৩
  • দুর্ঘটনায় চার শিক্ষক নিহত শোকে স্তব্ধ পরিবার
  • মহাদেবপুরে গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যু, শ্বশুর ও শাশুড়ি আটক
  • ভূল করে নগদে নম্বরে যাওয়া টাকা উদ্ধার করে ফিরিয়ে দিলেন পুলিশ
  • মহাদেবপুরে তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা: আটক ১
  • আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘরে এসি, আকাশ ডিটিএইচ
  • ধামইরহাটে চুরি হওয়া বৈদ্যুতিক মিটার ও মুলহোতাকে আটক
  • লালপুরে সন্ত্রাসী হামলায় আহতের পরিবার প্রাণভয়ে নিখোঁজ
  • অঙ্কুরেই শেষ শিক্ষক লেলিনের স্বপ্ন
  • বন্যার পানিতে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু
  • সিরাজগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী ঘোল উৎসব
  • বোরকা পরে শ্বশুরবাড়ির তিনজনকে কুপিয়েছে মুরগি বিক্রেতা
  • উপে