শাহজাদপুরে ধর্ষন মামলার আসামী নৌকা পাওয়ায় নিন্দা

প্রকাশিত: মে ১৭, ২০২২; সময়: ৭:৫৬ pm |
শাহজাদপুরে ধর্ষন মামলার আসামী নৌকা পাওয়ায় নিন্দা

নিজস্ব প্রতিবেদক : সিরাজগঞ্জ : সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার সোনাতনী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ধর্ষন মামলার আসামী বর্তমান চেয়ারম্যান লুৎফর রহমান পুনরায় নৌকা মনোনয়ন পাওয়ায় এলাকা জুড়ে নিন্দা ও সমালোচনার ঝড় বইছে।

স্থানীয়রা বলছে, সরকারী প্রকল্পে নয়-ছয় করা এই চেয়ারম্যান এলাকায় একজন বিতর্কিত ব্যক্তি। অথচ এলাকায় অনেক ভাল মানুষ ছিল। যারা সমাজে ও আওয়ামীলীগে গ্রহনযোগ্য। তাদের ব্যতি রেখে কেবল আর্থিক বিবেচনায় তাকে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। আগামী ১৫ জুন অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচন অবাধ সুষ্ঠ হলে অবশ্যই তিনি জামানত বাজায়াপ্ত হবেন। এদিকে জেলা আওয়ামীলীগ বলছে বিষয়টি তারা অবহিত ছিলেন না। তবে তা এখন ভাববার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

জানা যায়, আগামী ১৫ জুন ৮ম দফায় ইউপি নির্বাচনে শাহজাদপুর উপজেলাধীন সোনাতনী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। এজন্য দলের গ্রহনযোগ্য ও নিবেদিত ৫ জন নেতার পাশাপাশি বর্তমান চেয়ারম্যান লুৎফর রহমান আওয়ামীলীগের মনোনয়ন দাবী করেন। জেলা থেকে সবার তালিকাও পাঠানো হয় কেন্দ্রে। গত শুক্রবার প্রকাশিত মনোনয়ন তালিকায় দেখা যায় লুৎফর রহমান আবারো দলীয় মনোনয়ন পেয়েছে। এরপর থেকেই এলাকায় বিতর্কের ঝড় বইছে।

এ ব্যাপারে সোনাতনী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আবুল হাসান মিয়া লিটন জানান, ধর্ষন মামলার প্রধান আসামী সহ বিতর্কিত নানা কাজের সাথে জড়িত হলেও আগামী সোনাতনী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে লুৎফর রহমানকে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। এতে পুরো ইউনিয়নবাসী বিব্রত। তিনি জানান, গত ২০২০ সালে ৬ নভেম্বর বাঙ্গালা চরে গৃহবধু আঞ্জুয়ারা খাতুনকে ধর্ষন করা হয়। এ মামলাটি হলো শাহজাদপুর থানার এফ/আর নম্বর-৭/২৮৩, তারিখ ৮/১১/২০, জি,আর নং-২৮৩। পরবর্তীতে এ মামলায় পুলিশ ৫ জনের নাম দিয়ে চার্জশিট দেয়।

এতে ৩ নম্বর আসামী করা হয়েছে নৌকা পাওয়া লুৎফর রহমানকে। তিনি জামিনে থাকলেও তা বিচারাধীন অবস্থায় রয়েছে। এজন্য তাকে নৌকার মনোনয় যাতে না দেয়া হয় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতির কাছে গত ৭ মে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। তার পরও ঐ বিতর্কিত ব্যক্তিকে শুধু আর্থিক বিবেচনায় নৌকার মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। তিনি সুষ্ঠ নির্বাচন হলে শুধু হারবেনই না, জামানত বাজেয়াপ্ত হবে।

স্থানীয় সোনতনী গ্রামের আবুল হোসেন, ইয়াসিন আলী জানান, আমরা চেয়ারম্যান লুৎফর রহমানের ব্যবহারে অতিষ্ঠ। তিনি টাকা ছাড়া কিছু বোঝেন না। কিভাবে তিনি নৌকা পেলেন? তা বিশ্বাস করাই দ্বায়। অধিকাংশ ভোটাররা তাকে ভোট দেবেনা। প্রকৃত পক্ষে আওয়ামীলীগের নেতা-কর্মীরাও তাকে মেনে নিচ্ছেনা।

এদিকে অভিযোগের বিষয়ে সোনাতনী ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে নৌকা পাওয়া বর্তমান চেয়ারম্যান লুৎফর রাহমানের ব্যবহৃত মোবাইল নম্বর ০১৭১৬-০১৩৩৭৮ বার-বার যোগাযোগ করলে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

তবে সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আব্দুস ছামাদ তালুকদার জানান, লুৎফর রাহমানের বিরুদ্ধে অভিযোগের বিষয়ে আমার জানা নেই। তবে ধর্ষন মামলার অভিযুক্ত আসামী হয়ে কিভাবে নৌকা পেল তা এখন ভাবার বিষয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও খবর

  • মহাদেবপুরে মাদ্রাসার অফিস সহকারীর বিরুদ্ধে ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা
  • কচুয়ায় এক দোকানে দুধুর্ষ চুরি
  • জঙ্গল-পরিত্যক্ত ঘর যেন মাদক সেবনের সেইফ হোম
  • সুজানগরে অবৈধভাবে বালু তোলার প্রতিবাদে মানববন্ধন
  • ‘তরুণ প্রজন্মের কাছে বঙ্গবন্ধু মহানায়ক’
  • হেলিকপ্টারে বাড়ি ফেরায় আমেরিকা প্রবাসীকে সংবর্ধনা
  • ফরিদপুরে লায়ন্স ক্লাব চক্ষু হাসপাতালের উদ্বোধন
  • সিরাজগঞ্জে ২ জনের লাশ উদ্ধার
  • তেল সাশ্রয়ী মোটরসাইকেল বানালেন যুবক
  • ২৫ ভরি স্বর্ণ হাতিয়ে নিতে স্ত্রীকে খুন
  • চলনবিলে অভিযান চালিয়ে অবৈধ বানার বেড়া অপসারণ
  • ফতুল্লায় ২১ যাত্রীসহ ট্রলারডুবি
  • ‘টার্গেট কিলিংয়ের’ শিকার রোহিঙ্গা নেতারা
  • উল্লাপাড়ায় আটক হলো ভন্ড পীর
  • প্রেমের টানে ছুটে এলেন অস্ট্রিয়ান প্রকৌশলী
  • উপরে