অনিয়মিত খাদ্যাভ্যাস স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ায়: গবেষণা

প্রকাশিত: মে ১৭, ২০২২; সময়: ১০:০৫ am |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : অনিয়ন্ত্রিত জীবন-যাপন স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ায়। পাশাপাশি অনিয়মিত খাদ্যাভ্যাসও স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ায়। সম্প্রতি এক গবেষণায় এই তথ্য জানা গেছে। গবেষণা বলছে, যাদের রাতের খাবার খাওয়ার নির্দিষ্ট কোনও সময় নেই তাদের মধ্যে স্ট্রোকে মৃত্যুর ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি।

‘নিউট্রিয়েন্টস’ পত্রিকায় প্রকাশিত একটি গবেষণায় বলা হয়েছে, বেশি দেরি করে রাতের খাবার খাওয়ার প্রবণতা স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ায়। সন্ধ্যা ৮টার আগেই রাতের খাবার খেয়ে নেন, রাতের খাবার খাওয়ার কোনও নির্দিষ্ট সময় নেই এবং সন্ধ্যা ৮টার পরে রাতের খাবার খান-এই তিন ধরনের জীবনযাপন যাদের, তাদের নিয়ে গবেষণা চালিয়ে দেখা গিয়েছে, যাদের রাতের খাবার খাওয়ার নির্দিষ্ট কোনও সময় নেই তাদের মধ্যে স্ট্রোকে মৃত্যুর ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি। পাশাপাশি রাত ৮টার আগেই রাতের খাওয়া সেরে নেওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে বরং হৃদরোগের ঝুঁকি অনেক কম।

strokeপ্রতি বছর বিশ্বজুড়ে অসংখ্য মানুষ হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। ২৫ বছরের বেশি বয়সিদের মধ্যে গড়ে এক জন করে স্ট্রোকে আক্রান্ত হন। প্রতিদিনের কিছু বদঅভ্যাসই বাড়িয়ে দেয় হৃদরোগের ঝুঁকি। আলস্য, নিয়ম করে শরীরচর্চা না করা, অতিরিক্ত ধূমপান, মদ্যপানের প্রবণতাও হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার অন্যতম কারণ।

এগুলো ছাড়াও অনিয়মিত খাদ্যাভ্যাস স্ট্রোকের ঝুঁকি অনেকাংশে বাড়িয়ে দেয়। বিশেষ করে রাতের খাবার কখন খাচ্ছেন সেটা হৃদযন্ত্র ভাল রাখার ক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

স্থূলতাও কিন্তু হৃদ্‌রোগের আক্রান্ত অন্যতম প্রধান কারণ। তাই শরীরের ওজন বেশি থাকলে খাদ্যতালিকা এবং খাওয়াদাওয়ার সময়ের ক্ষেত্রে বিশেষ নজর দিন।

ভারতের ‘ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিস’ অনুসারে রক্তক্ষরণজনিত স্ট্রোকের প্রধান কারণ হল উচ্চ রক্তচাপ। যা মস্তিষ্কের ধমনীগুলোকে দুর্বল করে তোলে। তাই হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখা জরুরি। তবে তার আগে জানা দরকার কী কী কারণে বৃদ্ধি পেতে পারে উচ্চ রক্তচাপ।

১. ওজন বেশি থাকলে।

২. অতিরিক্ত পরিমাণে মদ্যপান ও ধূমপান করা।

৩. নিয়ম করে শরীরচর্চা না করা।

৪. মানসিক চাপ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপে