নুসরাত হত্যায় ব্যবহৃত আরেক বোরকা উদ্ধার

প্রকাশিত: মে ৪, ২০১৯; সময়: ৯:৫০ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : ফেনীর সোনাগাজী মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির গায়ে আগুন দেওয়ার সময় ব্যবহৃত আরেকটি বোরকা শনিবার উদ্ধার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। উদ্ধারকৃত বোরকাটি হত্যাকাণ্ডের সময় পরেছিলেন মামলার অন্যতম আসামি শাহাদাত হোসেন শামীম।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মো. শাহ আলম বোরকা উদ্ধারের তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, রিমান্ডে থাকা মামলার আসামি শাহাদাত হোসেন শামীম ও জাবেদ হোসেনের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে শনিবার দুপুরে তাদের দুজনকে নিয়ে সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসায় আসে পিপিআই। এসময় অভিযান চালিয়ে মাদ্রাসার পুকুর থেকে শাহাদাত হোসেন শামীমের পরিহিত বোরকাটি উদ্ধার করা হয়েছে।

এসময় পিবিআইয়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মনিরুজ্জামান, পরিদর্শক মো. মোনায়েম হোসেন, পরিদর্শক লুৎফুর রহমানসহ প্রশাসানের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। পরে তাদের দুজনকে ফেনীর আদালতে হাজির করা হয়।

এর আগে গত ২০ এপ্রিল দুপুরে অপর আসামি যোবায়ের হোসেনের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে সোনাগাজী সরকারি কলেজের দক্ষিণ পাশে ডাঙ্গির খাল থেকে আরেকটি বোরকা উদ্ধার করা হয়।

গত ২৭ মার্চ সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলার বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগে মামলা করেন ওই ছাত্রীর মা। মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, ২৭ মার্চ সকাল ১০টার দিকে অধ্যক্ষ তার অফিসের পিয়ন নূরুল আমিনের মাধ্যমে ছাত্রীকে ডেকে নেন। পরীক্ষার আধাঘণ্টা আগে প্রশ্নপত্র দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে ওই ছাত্রীর শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেন অধ্যক্ষ। পরে পরিবারের করা মামলায় গ্রেপ্তার হন সিরাজ উদ দৌলা।

গত ৬ এপ্রিল সকালে আলিম পরীক্ষা দিতে সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসায় যান নুসরাত জাহান রাফি। সেখানে মাদ্রাসার এক ছাত্রী তাকে জানান, তার বান্ধবী নিশাতকে ছাদের ওপর কে বা কারা মারধর করছে। এ কথা শুনে রাফি ওই ভবনের চারতলায় ছুটে যান। সেখানে মুখোশ পরা চার-পাঁচজন ছাত্রী তাকে অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলার বিরুদ্ধে মামলা ও অভিযোগ তুলে নিতে চাপ দেয়। তিনি অস্বীকৃতি জানালে তারা গায়ে আগুন দিয়ে পালিয়ে যায়। পরে আগুনে ঝলসে যাওয়া নুসরাতকে প্রথমে স্থানীয় হাসপাতালে এবং পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও খবর

  • ২৯ বছর পর পিতৃপরিচয় পেলেন রাজশাহীর জুয়েল
  • উচ্চ আদালতে অনুমোদনের অপেক্ষায় মৃত্যুদণ্ড
  • খুলনায় হত্যা মামলায় ২ আসামির যাবজ্জীবন
  • মানবতাবিরোধী অপরাধে একজনের মৃত্যুদণ্ড, ৩ জনের আমৃত্যু কারাদণ্ড
  • গরু-মহিষ নিয়ে জামাই-শ্বশুরের দ্বন্দ্বের সমাধান দিলেন আদালত
  • চাঁপাইনবাবগঞ্জে মাদক মামলায় যুবকের যাবজ্জীবন
  • পদ্মা সেতু নিয়ে ষড়যন্ত্রকারীদের চিহ্নিতে কমিশন গঠনের নির্দেশ
  • পদ্মা সেতুর বিরোধিতাকারীরা জাতির শত্রু: হাইকোর্ট
  • পদ্মাসেতু নিয়ে ষড়যন্ত্রকারীরা জাতির শত্রু, এদেরকে চিহ্নিত করতে হবে: হাই কোর্ট
  • সুপ্রিম কোর্টের ১২ বিচারপতি করোনায় আক্রান্ত
  • জোবায়দা রহমানের বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলা চলবে
  • আদালতে আসামি না ধরার ব্যাখা দিলেন আরএমপির ওসি
  • কাজী নজরুলকে জাতীয় কবি ঘোষণার গেজেট প্রকাশে রিট
  • সংবিধানে সন্নিবেশিত ৭ মার্চের ভাষণে ১৩৬টি ভুল
  • দুই মামলায় খালেদা জিয়ার স্থায়ী জামিন
  • উপে