১ কেজি পেঁয়াজের জন্য রোদে পুড়ছেন নগরবাসী

১ কেজি পেঁয়াজের জন্য রোদে পুড়ছেন নগরবাসী

প্রকাশিত: 03-11-2019, সময়: 17:00 |
Share This

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দাম বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে। এক সপ্তাহ আগে প্রতিকেজি পেঁয়াজ ১২০ টাকায় বিক্রি হলেও এখন দাম বেড়ে ১৬০ টাকা হয়েছে। অর্থাৎ এক সপ্তাহের ব্যবধানে প্রতি কেজিতে দাম বেড়েছে ৪০ টাকা। ফলে পেঁয়াজের দাম নিয়ে হাহাকার থামছেই না। এদিকে তুলনামূলক কম দামে পেঁয়াজ কিনতে ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) বিভিন্ন পয়েন্টে ভিড় করছেন ক্রেতারা।

আগে জনপ্রতি দুই কেজি পেঁয়াজ দিলেও রোববার থেকে এক কেজি করে পেঁয়াজ দিচ্ছে টিসিবি। কিন্তু তাতেও সমস্যা মনে করছেন না নগরবাসী। এজন্য টিসিবির এক কেজি পেঁয়াজের জন্য রোদে পুড়ে দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছেন শত শত মানুষ।

টিসিবি রাজধানীর যে কয়টি পয়েন্টে ন্যায্যমূল্যে পেঁয়াজ বিক্রি করছে তার মধ্যে একটি সচিবালয় ও অন্যটি জাতীয় প্রেসক্লাবের মাঝের রাস্তায়।

সকালে প্রেসক্লাবে সামনে প্রখর রৌদ্রের মধ্যেই শত শত মানুষ টিসিবির ট্রাক থেকে পেঁয়াজ কিনতে ভিড় করতে দেখা গেছে। সকাল গড়িয়ে দুপুর হয়ে গেলেও ক্রেতাদের সেই ভিড় কমছিল না।

ক্রেতারা জানিয়েছেন, বাজারে এক কেজি পেঁয়াজের দাম ১৬০ টাকা। এখানে এক কেজি পেঁয়াজের দাম ৪৫ টাকা। এ কারণে পেঁয়াজ কিনতে এখানে এসেছেন তারা।

তারা আরও জানান, প্রচণ্ড রোদের মধ্যে দীর্ঘ সময় লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হচ্ছে তাদের। তবে কষ্ট হলেও এক কেজি পেঁয়াজে একশ টাকার বেশি সেভ হবে।

শনিবার রাজধানীর বিভিন্ন বাজারে ভালো মানের প্রতি কেজি পেঁয়াজ সর্বোচ্চ ১৬০ টাকা কেজি বিক্রি হয়েছে। এক সপ্তাহ আগেই বিক্রি হয়েছে ১২০ টাকা কেজি। খুচরা ব্যবসায়ীরা বলছেন, পাইকারি বাজারে দাম বাড়ার কারণে তারাও বেশি দামে বিক্রিতে বাধ্য হচ্ছেন।

এদিকে বাজার তদারকিতে রয়েছে সরকারের একাধিক সংস্থা। তারা পাইকারি বাজার থেকে পেঁয়াজ মজুদের তথ্য সংগ্রহ করে সরবরাহ পরিস্থিতি পর্যালোচনা করছেন। এর ভিত্তিতে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে সরকারি সংস্থাগুলোর তদারকির কোনো ইতিবাচক প্রভাব বাজারে পড়ছে না।

সূত্র জানায়, বাংলাদেশে বছরে পেঁয়াজের চাহিদা ২৪ লাখ টন। এর মধ্যে দেশে উৎপাদন হয় ১৪ থেকে ১৫ লাখ টন। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে এবার ১৬ লাখ টন পেঁয়াজ উৎপাদনের আশা করা হচ্ছে।

আগামী ডিসেম্বরের শুরু থেকে দেশি নতুন পেঁয়াজ বাজারে আসতে শুরু করবে। ওই সময়ে দাম আরও কমে যাবে বলে জানান ব্যবসায়ীরা।

Leave a comment

উপরে