টপ-৪নিউজ Archives - Padmatimes 24x7 News Portal

যেসব কারণে রোযা ভেঙ্গে যায়

হোছাইন আহমাদ আযমী : যেসব কারণে রোযা ভেঙ্গে যায় এবং শুধু কাযা ওয়াজিব হয়ঃ (১ম পর্ব) ১. কানে বা নাকে ঔষধ দিলে। ২. ইচ্ছাকৃত..

যেসব কারণে রোযা ভাঙ্গেনা (পর্ব-২)

হোছাইন আহমাদ আযমী : যেসব কারনে রোযা ভাঙ্গেনা তবে মাকরূহ হয় ঃ ১. বিনা প্রয়োজনে কোন জিনিষ চিবানো বা তরকারী ইত্যাদির লবণ চেখে দেখা। তবে কোন নারীর স্বামী যদি বদমেজাজী হয় তাহলে জিহবার অগ্রভাগ দ্বারা চেটে তা ফেলে দিবে।..

যেসব কারণে রোযা ভঙ্গ হয়না

হোছাইন আহমাদ আযমী : যেসব কারনে রোযা ভাঙ্গেনা এবং মাকরূহ হয়না : ১. ভুলে কিছু পান করা বা আহার করা বা স্ত্রী সম্ভোগ করা। ২. যৌন উত্তেজনার সাথে কোন কিছু চিন্তা করলে বা কারো দিকে দৃষ্টি দিলে যদি বীর্যপাত ঘটে যায়। ৩. শরীর,..

সবচেয়ে কম সময় রোজা রাখেন যে দেশের মুসলমানরা

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : পবিত্র রমজান মাসে বিশ্বের প্রতিটি দেশেই মুসলমানরা রোজা রাখছেন। তবে সময় ও দেশের দূরত্বের কারণে বিভিন্ন দেশে রোজার সময়ও বিভিন্ন। ফিনল্যান্ডের বাসিন্দাদের ২৩ ঘণ্টা রোজা রাখতে হলেও লাতিন আমেরিকার..

সাহরীর সময় নেই সন্দেহ হলে না খাওয়া উত্তম

হোছাইন আহমাদ আযমী : সাহরী খাওয়া সন্নাত। যদিও ক্ষুধা না থাকে অন্তত এক দুইটি খোরমা বা অন্য কোন খাদ্যদ্রব্য খাবে। কিছু না হলেও কমপক্ষে একটু পানি পান করবে। তাতেও সুন্নত আদায় হয়ে যাবে। সাহরী যথা সম্ভব বিলম্ব করে খাওয়া..

সূর্র্যাস্তের পর তাড়াতাড়ি ইফতার করা মুস্তাহাব

হোছাইন আহমাদ আযমী : সূর্র্য অস্ত যাওয়ার পর তাড়াতাড়ি ইফতার করা মুস্তাহাব। দেরিতে ইফতার করা মাকরূহ। মেঘাচ্ছন্ন দিনে দেরি করে ইফতার করা ভাল। যখন সূর্য অস্ত যাওয়ার ব্যাপারে নিশ্চিত হবে, তখন ইফতার করবে। ঘড়ি ও আজানের..

রোযার নিয়ত করার সময়

হোছাইন আহমাদ আযমী : নিয়ত কখন করব: রোযার জন্য নিয়ত করা ফরয। নিয়ত ব্যতিত সারাদিন পানাহার ও যৌনতৃপ্তি থেকে বিরত থাকলেও রোযা হবে না। হযরত আবু হোরায়রা রা. থেকে বর্ণিত রাসূল (স.) বলেন অনেক রোযাদার এমন আছে রোযার বিনিময়ে অনাহারে..

রোযাদারের জন্য পাঁচটি পুরস্কার

হোছাইন আহমাদ আযমী : সুবহে সাদিক থেকে সুর্যাস্ত পর্যন্ত নিয়ত সহকারে ইচ্ছাকৃত ভাবে পানাহার ও যৌনতৃপ্তি থেকে বিরত থাকাকে রোযা বলে। পাগল ও নাবালেগ (অপ্রাপ্ত বয়স্ক) ব্যতীত রমযান শরীফের রোযা রাখা সকল মুসলমান নর-নারীর..

শান্তি ও কল্যাণ সর্বাধিক অবতীর্ণ হয় রমযানে

হোছাইন আহমাদ আযমী : এই মাস রহমতের মাস, বরকতের মাস, মাগফিরাতের মাস। এ প্রসঙ্গে প্রিয় নবী স. ইরশাদ করেনঃ পবিত্র মাহে রমযান এমন মাস, যার প্রথম অংশ আল্লাহর রহমতে পরিপূর্ণ। দ্বিতীয় অংশে রয়েছে আল্লাহ তায়ালার পক্ষ থেকে..

উপরে