‘সাকিবের নেতৃত্বেই বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলবে’

‘সাকিবের নেতৃত্বেই বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলবে’

প্রকাশিত: 30-10-2019, সময়: 10:55 |
Share This

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : বাংলাদেশের প্রাণ সাকিব আল হাসানকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। খবরটা মানতে পারছিল না ভক্তরা। মিরপুর শেরেবাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামের সামনে জড়ো হচ্ছিল তারা। সাকিবকে মাঠে দেখতে চায় সবাই। কারো মুখে স্লোগান, কেউ বাকরুদ্ধ। কিন্তু অধিকাংশ মানুষের চোখে পানি, ‘সাকিব ছাড়া ক্রিকেট? ভাবা যায়?’

সাকিবের নিষেধাজ্ঞায় তার অনেক ভক্ত, সতীর্থই কেঁদেছেন নিশ্চিত। বাংলাদেশ ক্রিকেটের আরেক বড় বিজ্ঞাপণ মাশরাফিও সাকিবের নিষেধাজ্ঞায় কষ্ট পেয়েছেন। ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, ‘দীর্ঘ ১৩ বছরের সহযোদ্ধার আজকের ঘটনায় নিশ্চিতভাবেই কিছু বিনিদ্র রাত কাটবে আমার। তবে কিছুদিন পর এটা ভেবেও শান্তিতে ঘুমাতে পারব যে, তার নেতৃত্বেই ২০২৩ সালে আমরা বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলব। কারণ নামটি তো সাকিব আল হাসান…!!!’

তিনটি অভিযোগ এনে সাকিব আল হাসানকে সব ধরনের ক্রিকেট থেকে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ করেছে আইসিসি। তবে ভুল স্বীকার করায় এক বছরের শাস্তি কমানো হয়েছে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তিনি ফিরবেন ২০২০ সালের ২৯ অক্টোবর।

মঙ্গলবার ওই তথ্য দেয় আইসিসি। নিজেদের ওয়েবসাইটে এ সংক্রান্ত একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তিও প্রকাশ করেছে ক্রিকেটের নীতিনির্ধারক সংস্থা।

সাকিব আল হাসান বাংলাদেশে জাতীয় ক্রিকেট দলের টেস্ট ও টি টোয়েন্টি ফরম্যাটের অধিনায়ক। আগামী মাসেই ভারত সফর শুরু করছে বাংলাদেশ। ওই সফরে কেবল টেস্ট ও টি টোয়েন্টি খেলবে বাংলাদেশ। আইসিসির ওই নিষেধাজ্ঞার কারণে তাকে ছাড়াই ভারত সফর করবে বাংলাদেশ।

অভিযোগ উঠেছে, প্রায় দুই বছর আগে এক ক্রিকেট জুয়াড়ির কাছ থেকে ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাব পান সাকিব। সঙ্গে সঙ্গে সেই প্রস্তাব নাকচও করে তিনি। কিন্তু ঘটনাক্রমে বিষয় আইসিসির দুর্নীতি দমন বিভাগকে জানাননি সাকিব। দুই বছর বাদে সেই বিষয়টি সামনে এসেছে। বিষয়টি তদন্তের জন্য সাকিবের সঙ্গে যোগাযোগও করেছে আইসিসি। সবমিলিয়ে তথ্য না জানানোর অপরাধে আইসিসির নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়লেন তিনি।

এর আগে ২০০৮ সালের মার্চে ঢাকায় আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের সময়ও জুয়াড়িদের ফোন পেয়েছিলেন সাকিব। বাজে পারফরম্যান্সের বিনিময়ে ‘স্পন্সরশিপ’ অফার করা হয়েছিল তাঁকে।

সাকিব তখন সঙ্গে সঙ্গেই বিসিবিকে সে প্রস্তাবের কথা জানান। বিষয়টি জানান আকসুর তখনকার রিজিওনাল ম্যানেজার কর্নেল কাজা নুরকেও। সে সিরিজে আয়ারল্যান্ডকে ৩-০ ব্যবধানে হারায় বাংলাদেশ।

Leave a comment

উপরে