শেখ হাসিনার পাশে তরুণদের চান সাকিব

শেখ হাসিনার পাশে তরুণদের চান সাকিব

প্রকাশিত: ০৩-১২-২০১৮, সময়: ১০:৫৫ |
খবর > খেলা
Share This

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশকে জেতাতে লড়াই করছেন মন্তব্য করে তরুণদের পাশে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। একই সঙ্গে দেশের উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রীর ভূমিকার প্রশংসা করেছেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার।

রোববার সাকিবের এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও ফেসবুকে আপলোড করেন প্রধানমন্ত্রীর ডেপুটি প্রেস সচিব আশরাফুল আলম খোকন। সাকিবের বার্তাটি হুবহু দেয়া হলো-

‘১৯৯৯ থেকে ২০০৪। আমরা ৭২টি ম্যাচ দেশের হয়ে খেলেছি। বেশিরভাগই হেরেছি। কিন্তু আমাদের আত্মবিশ্বাস ছিল, আমরা জিততে চেয়েছিলাম। কারণ এটা শুধু আমাদের কাছে খেলা নয়, দেশের সম্মান। এ জন্যই আমরা ঘুরে দাঁড়াতে পেরেছিলাম।’

‘আমি এখনো যখন ক্রিজে গিয়ে দাঁড়াই, আমার সঙ্গে দাড়ায় বাংলাদেশ। আমি যখন শুরু করেছিলাম, আমর বয়স ছিল ১৯ বছর। এই বয়সে আমি ক্রিকেট শুরু করেছিলাম। আজ তোমরা যারা তরুণ, আমি নিশ্চিত জানি তোমাদের প্রত্যেকের মধ্যেই স্বপ্ন আছে। কিন্তু শুধু স্বপ্ন থাকলেই হবে না। ব্যক্তির স্বপ্নকে দেশের স্বপ্ন করতে হয়। এগিয়ে আসতে হয়, তৈরি করতে হয় নিজেকে। চিনে নিতে হয় সঠিক পথ।’

‘আমি কোনো সুপার ম্যান নই। এ দেশেরই একজন সাধারণ মানুষ। তোমরা যারা এখানে আছ, আমি জানি সবাই যার যার মত আলাদা। কিন্তু একটা বিষয়ে আমরা সবাই এক। সেটা হলো আমাদের প্রাণের বাংলাদেশ।’

‘এ দেশকে আমরা ভালোবাসি। কিন্তু নিজের মাকে নিয়ে আমরা যেভাবে ভাবি, দেশ নিয়ে কী সেভাবে ভাবি? অথচ দেশ কিন্তু আমাদের নিয়ে ভাবছে। নজর রাখছে ভালো-মন্দের। তার ভালো থাকায় আমাদেরও ভালো থাকা। আর সবার ভালো থাকা মানেই দেশের ভালো থাকা। তাই তাকে নিয়ে (দেশ) এবার ভাবার সময় এসেছে। কারণ দেশ মানে আর কিছু নয়, আমি-তুমি-আমরা।’

‘এই আমরাই দেশ। দেশের মানুষকে ভালো রাখার, এগিয়ে যাওয়ার দুর্বার যাত্রায় বর্তমান সরকার বিদ্যুৎ, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, খাদ্য, নারীর ক্ষমতায়ন, সামাজিক ও মানব উন্নয়ন, অবকাঠামো উন্নয়ন, যোগাযোগ এবং ডিজিটাল অগ্রগতিতে বাংলাদেশ বিশ্বে উদাহরণ হতে চলেছে।’

‘বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পরিবারের সবাইকে হারিয়ে দেশকে জেতানোর লড়াইয়ে শামিল হয়েছেন। বাংলাদেশটাই এখন তার পরিবার। সবাইকে সঙ্গে নিয়ে দেশের মানুষের ভালো থাকার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। বিশেষ করে তরুণদের নিয়ে। সব ক্ষেত্রেই সমৃদ্ধ আগামীর বাংলাদেশ গড়ার নীতি গ্রহণ করেছেন তিনি। সেখানে চাই তোমাদের সক্রিয় অংশগ্রহণ। এ অগ্রযাত্রাকে বহুদূর এগিয়ে নিতে তোমাদের সক্রিয় সমর্থন প্রয়োজন।’

‘আমার বিশ্বাস, আমরা দাঁড়ালে হারবে না দেশ। কারণ তরুণরাই আগামীর বাংলাদেশ। এবার তোমার পালা।

Leave a comment

আরও খবর



উপরে