‘যত কষ্টই হোক বেঁচে থাকার মধ্যেই আনন্দ’

‘যত কষ্টই হোক বেঁচে থাকার মধ্যেই আনন্দ’

প্রকাশিত: ২০-১১-২০১৯, সময়: ০০:৪২ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীর পবায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক হামিদুল হক বলেছেন আমাদের ভাল ও মন্দ বিচারের জন্য শিক্ষা অর্জণ করতে হবে। মানুষের প্রধান লক্ষ্য হলো ভাল থাকা, সুখে থাকা। আমরা সুখের সন্ধানে কাজ করে যাচ্ছি। বাল্য বিবাহ করলে খুড়িয়ে বাঁচবে ৫৫ বছর। আর সঠিক সময়ে বিবাহ হলে বাঁচবে ৭২ বছর। যত কষ্টই হোক বেঁচে থাকার মধ্যেই আনন্দ। তাই বাল্য বিবাহকে আমরা সবায় না বলি।

মঙ্গলবার পবা উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে নওহাটা মহিলা ডিগ্রী কলেজে মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিকরণ এবং বাল্য বিবাহ, মাদক ও ইভটিজিং বিরোধী সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন যারা ইভটিজার, মাদকসেবী ও বাল্য বিবাহের শিকার তারা সকলের আমাদের সমাজের এই দেশেরই মানুষ। ইভটিজারের দায়ে কোন শিক্ষার্থীর সাজা হলে জীবনে একটি অপূরণীয় দাগ লেগে যায়। আর এই দাগ লাগলে চাকরি পাওয়া যায় না। বর্তমানে সবচেয়ে বড় ক্ষতিকারক দ্রব্য হচ্ছে মাদক। মাদকসেবী মনুষ্যত্ব বিবেক ও ভালবাসা হারায়। পাশাপাশি সে মৃত্যুর দিকে ঢেলে পড়ে। ফলে পরিবার নিঃস্ব ও ক্ষতিগ্রস্ত, স্ত্রী হয় বিধবা, মা হয় ছেলে হারা। আমরা মাদকেও না বলি।

তিনি বলেন আমাদের উন্নয়নে নস্যাৎ করতে, ইরাক-আফগানিস্তান ও লিবিয়া বানাতে অনেকেই কাজ করছে। দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরী করতে ওঁৎ পেতে আছে। আমাদের শক্তবন্ধনে আবদ্ধ থাকতে হবে।

তিনি আরো বলেন, নীতি নৈতিকতা আইন দিয়ে হয় না। শিক্ষাগ্রহণ করলেও নৈতিকতার অভাব দেখা দিয়েছে। নইলে বুয়েটে যে মেধাবী আবরার মরলো, মেধাবীরাই তাকে মারল। যারা অধ্যক্ষকে পানিতে ফেলতে পারে তারা তাদের মা-বাবাকেও খুন করতে পারে। পাশাপাশি শিক্ষকদের মনে রাখতে হবে কোন শিক্ষার্থীকে অবৈধ সহায়তা করেছেন তো এরাই শিক্ষকদের পানিতে ফেলবে।

যেসব শিক্ষার্থী দূর্বল তারাও দেশের সম্পদ। সরকার দক্ষ মানুষ তৈরী করতে চায়। শিক্ষা ও দক্ষতা অর্জন করলে চাকরির পিছরে ছুটতে হবে না। শেষে তিনি বলেন, অর্থের অভাবে কারো লেখাপড়া হবে না-এমন হতে পারে না। এমন অবস্থা হলে উপজেলা প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ করলে ব্যবস্থা হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেনের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন নওহাটা সরকারি ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল খালেক, পবা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মুনসুর রহমান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আরজিয়া বেগম, জেলা পরিষদের নির্বাহী ম্যাজিট্রেট আব্দুল মালেক, পবা থানা ওসি রেজাউল হাসান।

পবা সহকারি কমিশনার ভুমি আবুল হায়াতের সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন নওহাটা মহিলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ কাউছার আলী। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন পবা উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ার ওয়াজেদ আলী খান।

উপস্থিত ছিলেন নওহাটা মহিলা ডিগ্রী কলেজের উপাধ্যক্ষ সাইফুল ইসলাম, জেলা যুবলীগ ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক প্রভাষক আব্দুর রব বাবুসহ নওহাটা সরকারি ডিগ্রী কলেজ ও নওহাটা মহিলা ডিগ্রী কলেজের শিক্ষকমন্ডলী, শিক্ষার্থী ও আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ।

এরআগে প্রধান অতিথি থেকে উপজেলা চত্বরে আমার বাড়ি আমার খাবার প্রকল্প ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারিদের দক্ষতা উন্নয়ন শীর্ষক দুই দিনব্যাপি প্রশিক্ষণ কর্মশালার উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আমার বাড়ি আমার খাবার প্রকল্প রাজশাহীর সমন্¦য়কারি গোলরিয়া ঘোষ। এরপর তিনি বড়গাছী ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে উন্নয়ন কর্মকান্ড পরিদর্শন করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন বড়গাছী ইউপি’র চেয়ারম্যান সোহেল রানাসহ সদস্যবৃন্দ।

Leave a comment

উপরে