বাঘায় লবনের গুজব ঠেকাতে ইউএনওর মাইকিং

বাঘায় লবনের গুজব ঠেকাতে ইউএনওর মাইকিং

প্রকাশিত: 19-11-2019, সময়: 19:37 |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাঘা : পিয়াজের বাজারে এই অস্থিরতার মধ্যেই গুজব ছড়িয়ে পড়েছে লবণ নিয়ে। লবণের মূল্য বেড়ে যাওয়ার গুজবে বেশি পরিমাণে লবণ কেনার হিড়িক পড়ে রাজশাহীর বাঘা উপজেলার বিভিন্ন বাজারসহ এলাকার পাড়া মহল্লার দোকানগুলোতে।

এরপর উপজেলার সদর বাজার সহ নারায়নপুৃর,দিঘা,তেথুলিয়া,মনিগ্রাম,আড়ানিসহ অন্যান্য বাজারে গুজবের কারণে বেশি লবণ বিক্রি হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। নিমিষেই বিক্রি হয়ে যায় দোকানের সব লবন।

মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) পৌর এলাকার বাজারের দোকানে লবণ কিনতে লোকজন ভীড় করেন। এসময় কোন কোন বাজারে কেজি ওজনের ৩০ টাকার সুপারসল্ট লবন ৩৫ থেকে টাকা কিংবা এর বেশি দামেও বিক্রি হয়েছে। ব্যবসায়ীরা জানান বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত দোকানের সব লবন বিক্রি হয়ে যায়। সোমবার রাতেও অনেককে ২ থেকে ৩ কেজি লবণ কিনে বাসায় নিয়েছেন।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাঘা বাজারের সাজেদুর রহমানের দোকানে গিয়ে দেখা যায় লবন ক্রেতাদের ভীড়। তিনি জানান, তার দোকানে যে লবন ছিল তা আগের দামেই বিক্রি করেছেন। ৪০০ গ্রাম ওজনের মধুমতি লবন বিক্রি করেছেন প্রতি প্যাকেট ১০ টাকা।

মুনির নামের এক ব্যবসায়ী জানান, সন্ধ্যার পর থেকে তিনি ১০০ কেজি লবণ বিক্রি করেছেন। আকতার রহমান বলেন, তিনি দুই ঘণ্টায় ৭৫ কেজি লবণ বিক্রি করেছেন।

পাকুড়িয়া বাজারের মুদি দোকানদার আনিসুর রহমান বলেন, লবণের দাম বেড়েছে শুনে তিনি বিকেলে ১৫ কেজি কিনে রেখেছেন।

উপজেলার সৈদপুর গ্রামের সাগর আলী জানান, বাঘার বাজারে এসে অন্যদের লবন কিনতে দেখে তিনি প্রতি কেজি লবন ৪০ টাকা দরে কিনেছেন। দিঘা এলাকার আজিজুল জানান,কেজি ওজনের ১প্যাকেট কনফিডেন্স লবন কিনেছেন ৩৭ টাকায়। যার দাম ৩০ টাকা।

উপজেলা নির্বাহি অফিসার শাহিন রেজা জানান,গুজবে লবন কেনার হিড়িকের কথা শুনে বাজার মনিটর্রি করে বেশি দামে লবন বিক্রি করতে নিষেধ করেছেন। এছাড়াও কোথাও লবনের সংকট নেই বলেও ক্রেতা বিক্রেতাদের গুজবে কান না দেওয়ার জন্য সতর্ক করে মাইকিং করেছেন।

Leave a comment

উপরে