রাজশাহীতে টেন্ডারবাজে মদদদাতাদের সতর্ক করলেন প্রতিমন্ত্রী

রাজশাহীতে টেন্ডারবাজে মদদদাতাদের সতর্ক করলেন প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত: ১৪-১১-২০১৯, সময়: ১৪:৪২ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী টেন্ডারবাজ ও এর মদদদাতাদের সতর্ক করেছেন রাজশাহী-৬ আসনের সংসদ সদস্য ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। বৃহস্পতিবার দুপুরে তার নিজের ফেসবুকে পেজে স্ট্যাটাস দিয়ে নেত্রীর বার্তা স্মরণ করিয়ে সতর্ক করেন তিনি।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১২ টা ২৩ মিনিটে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম তার ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন। তাতে তিনি লিখেছেন, ‘‘রাজশাহীতে টেন্ডারবাজী বন্ধ হতে হবে। আর যারা মদদ দেন তাদেরকে মদদ দেয়া বন্ধ করতে হবে, অনতিবিলম্বে। নেত্রীর বার্তা যদি আপনারা বুঝে না থাকেন তাহলে তার পরিণতি আপনাদেরকেই ভোগ করতে হবে।’’

বুধবার দুপুরে রাজশাহী রেল ভবনে টেন্ডার নিয়ন্ত্রণকে কেন্দ্র করে দুপক্ষের সংঘর্ষে সানোয়ার হোসেন রাসেল নামের এক যুবলীগ নেতা নিহত হন। এ সময় তার ভাই বোয়ালিয়া থানা আওয়ামী লীগের সংগঠনিক সম্পাদক আনোয়ার হোসেন রাজাসহ আহত হন অন্তত পাঁচজন। এ ঘটনার প্রেক্ষিতে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম তার ফেসবুকে এমন স্ট্যাটাস দেন।

জানা গেছে, রেল ভবনের টেন্ডার নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নগরের বোয়ালিয়া থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও নিহত রাসেলের ভাই আনোয়ার হোসেন রাজার সঙ্গে মহানগর সৈনিক লীগের সাধারণ সম্পাদক সুজন আলীর মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। দুপুরে রেল ভবনের সামনে তাদের কথা কাটাকাটি হয়। এরই একপর্যায়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধা। এ সময় রাসেলসহ পাঁচজন আহত হন। পরে তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সন্ধ্যা ৬টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাসেল মারা যান।

নিহত রাসেল রাজশাহী মহানগর যুবলীগের সদস্য। নগরীর বাস্তুহারা এলাকায় তার বাড়ি। রাসেলের বাবার নাম মৃত আবুল কাশেম। সংঘর্ষের সময় রাসেলের পেটে ছুরিকাঘাত করা হয়েছিল। এ ঘটনায় রাতে নগরীর চন্দ্রিমা থানায় রাসেল ভাই মনোয়ার হোসেন রনি বাদি হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলায় ১৭ জনের নাম উল্লেখ করে ২৫ জনকে আসামী করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন চন্দ্রিমা থানার ওসি গোলাম মোস্তফা।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, নগরে শিরোইল কলোনী এলাকার বুলবুল হোসেনের ছেলে আসামী রাব্বি (২৫), জয়নালের ছেলে বাপ্পি (১৯), নূর মোহাম্মদ সরদারের ছেলে শাহিন (২৪), মানিকের ছেলে শুভ (২১), বাবু ইসলামের ছেলে চঞ্চল (১৯), জালাল উদ্দিনের ছেলে কলাম উদ্দিন (১৯), আবুল কালাম চৌধুরীর ছেলে মোজাহিদুল ইসলাম অভ্র (১৯)।

Leave a comment

উপরে