বাঘায় স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীর ‘সংবাদ সম্মেলন’

বাঘায় স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীর ‘সংবাদ সম্মেলন’

প্রকাশিত: ০৮-১০-২০১৯, সময়: ১৯:৪৬ |
Share This

নিজস্বপ্রতিবেদক, বাঘা : রাজশাহীর বাঘায় আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আচরন বিধি লঙ্ঘন করে নিবাচনী প্রচারে বাঁধা দেওয়াসহ হুমকি ধামকি,অফিস দখল ও অপ্রীতিকর ঘটনার অভিযোগ এনে সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবি করেছেন উপজেলার গড়গড়ি ইউনিয়নের স্বতন্দ্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল্লাহ আল মাহামুদ (প্রতীক আনারস)।

মঙ্গলবার বিকেলে বাঘা প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তার প্রতিদ্বন্দ্বী সরকার দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী রবিউল ইসলামের (নৌকা) সমর্থকদের বিরুদ্ধে পোষ্টার ছেঁড়াসহ মিথ্যা মামলায় জড়ানো ও ভয়ভীতি প্রদর্শনের এই অভিযোগ করেন চেয়ারম্যান প্রার্থী (স্বতন্দ্র) আব্দুল্লাহ আল মাহামুদ।

লিখিত বক্তব্য পাঠকালে আব্দুল্লাহ আল মাহামুদ বলেন, আগামী ১৪ অক্টোবর অনুৃষ্ঠিতব্য নির্বাচনে উপজেলার গড়গড়ি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। কিন্ত নির্বাচনী নীতিমালা লঙ্ঘন করে তার প্রচার প্রচারনায় বাঁধা দিয়ে মাইক বন্ধ করে দেওয়াসহ তার আনারস প্রতিকের পোষ্টার ছেঁড়া, দুটি নির্বাচনী অফিস দখল, মিথ্যা মামলায় জড়ানোর হুমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করে চলেছে, সরকার দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী রবিউল ইসলাম এর সমর্থিত লোকজন। এছাড়াও তাকে এলাকা ছাড়ার হুমকি দেওয়া হয়েছে বলেও সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন।

আওয়ামী লীগের একজন কর্মী দাবি করে সংবাদ সম্মেলনে বলেন,আমি দলীয় মনোনয়ন চেয়েছিলাম। কিন্তু স্থানীয় নেতারা তার নাম উপর মহলে পাঠাইনি। স্থানীয় সরকার নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছি। এতে দোষের কি? নির্বাচনে তার জনপ্রিয়তা দেখে সরকার দলীয় প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ঈর্ষানিত হয়ে বহিরাগত লোকজন দিয়ে আমাকে নানাভাবে বাঁধা প্রদান করে হয়রানি করছে। এতে অবাধ, সুষ্ট ও নিরপেক্ষ নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করছে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সোমবার রাতে নৌকা প্রতিকের লোকজন খানপুর বাজার মসজিদের পাশে এবং সুলতানপুর বাজারে নির্বাচনী অফিস দখলে নিয়ে সেখানে নৌকার পোষ্টার ঝুলিয়ে দিয়েছে। সরকার দলীয় লোকদের হুমকিতে ঠিকমত প্রচারনা চালাতে পারছিনা।
সংবাদ সম্মেলনে বলেন,সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবিতে এ বিষয়ে প্রতিকার চেয়ে নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং অফিসারের নিকট লিখিত অভিযোগ করেছেন। দৃষ্টি আকর্ষন করে তার অনুলিপী কপি নির্বাচন কমিশনার,রাজশাহী জেলা প্রশাসক,পুলিশ সুপার,রাজশাহী র‌্যাব-৫,বাঘা উপজেলা নির্বাহি অফিসার,গড়গড়ি নির্বাচনী এলাকায় দায়িত্বপ্রাপ্ত ম্যাজিষ্ট্রেট, বাঘা থানার অফিসার ইনচার্জ বরাবর প্রেরণ করেছেন। কিন্ত আশঅতীত কোন ফলাফল পাননি বলেও সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আবদুল্লাহ আল মাহামুদ (বাচ্চু) এর সহোদর ভাই এসএম নুরুজ্জামান মুক্তা,সমর্থিত কর্মী আলম হোসেন, বাবুল মন্ডল, খায়রুল ইসলাম, নান্টু হোসেন, রাব্বুল আলামিন, মাসুম আহম্মেদ রঞ্জু, রবিউল ইসলাম বিদ্যুৎ প্রমুখ।

তবে এসব অভিযোগ অস্বিকার করেছেন ওই ইউনিয়নের সরকার দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী ও তার সমর্থিত নের্তৃবৃন্দ। উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং অফিসার মুজিবুল আলম বলেন, এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেয়ে নির্বাচনী এলাকার দায়িত্বপ্রাপ্ত ম্যাজিষ্ট্রেট সহ বাঘা থানার অফিসার ইনচার্জ সরেজমিন গিয়ে তদন্ত করেছেন।

বিছিন্ন ঘটনার বিষয়ে জানতে পারলেও অফিস দখলের বিষয়ে জানানো হয়নি। তবে সুষ্ট,অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের স্বার্থে সংঘটিত কর্মকান্ডের সত্যতা পেলে ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান এই নির্বাচিন অফিসার। ১৬ বছর পর আগামি ১৪ অক্টোবর রাজশাহীর বাঘা উপজেলার গড়গড়িসহ বাজুবাঘা,পাকুড়িয়া ও মনিগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

Leave a comment

উপরে