বাঘায় প্রতীক বরাদ্দের পরই সরগরম নির্বাচনী মাঠ, দু’দলেই বিদ্রোহী

বাঘায় প্রতীক বরাদ্দের পরই সরগরম নির্বাচনী মাঠ, দু’দলেই বিদ্রোহী

প্রকাশিত: ২৩-০৯-২০১৯, সময়: ১৭:৫২ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাঘা : রাজশাহীর বাঘায় আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দের পরই আনুষ্ঠানিক নির্বাচনী প্রচারনায় নেমে পড়েছেন প্রার্থীরা। সোমবার সকাল ১০ টা থেকে নির্বাচন কার্যালয়ে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়। প্রার্থীরা নিজ নিজ কর্মী সমর্থকদের নিয়ে নির্বাচন কার্যালয়ে হাজির হন। পরে প্রতীক বরাদ্দ পাওয়ার পরই আনুষ্ঠানিক নির্বাচনী প্রচারনা শুরু করেণ প্রার্থীরা।

নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার চার ইউনিয়নে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ২৯ জন। এরমধ্যে বাজুবাঘা ইউনিয়নে- আ.লীগের ফজলুর রহমান (নৌকা), বিএনপির ফিরোজ আহম্মেদ রনজু (আনারস), স্বতন্ত্র প্রার্থী সাইফুল ইসলাম (ঘোড়া), হাসমত আলী (টেবিলফ্যান), জিয়াউর রহমান (ঢোল), সাহার আলী (মোটরসাইকেল), আসলাম মালিথা (টেলিফোন), আসাদুজ্জামান (রজনীগন্ধা)।

গড়গড়ি ইউনিয়নে- আ.লীগের রবিউল ইসলাম রবি (নৌকা), বিএনপির প্রার্থী মাসুদ করিম টিপু (টেবিলফ্যান), স্বতন্ত্র প্রার্থী জুলফিকার আলী (ঘোড়া), আবদুল্লা আল মাহমুদ (আনারস), জাহিদুল ইসলাম স্বপন (চশমা), আবুল কালাম আজাদ (মোটরসাইকেল)।

পাকুড়িয়া ইউনিয়নে- আ.লীগের মেরাজুল ইসলাম সরকার (নৌকা), বিএনপির প্রার্থী ফকরুল হাসান বাবল ু(আনারস)।

মনিগ্রাম ইউনিয়নে- আ.লীগের সাইফুল ইসলাম নৌকা) বিএনপি’র মাজিবর রহমান জুয়েল(আনারস)। সংরক্ষিত আসনে সদস্য পদে ৬৩ ও সাধারণ সদস্য পদে ১৭০ জন।

রোববার (২২ সেপ্টেম্বর) রির্টানিং অফিসারের কার্যালয় থেকে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন বাজুবাঘা ইউনিয়নে ৪জন- রফিজ উদ্দীন, দুলাল হোসেন, নজরুল ইসলাম, নওশাদ আলী। গড়গড়ি ইউনিয়ে প্রত্যাহার করেছেন ৫জন-শাহাজামাল সরকার, আবদুর রাজ্জাক, আনোয়ার হোসেন, নুরুল ইসলাম, এমদাদুল হক। পাকুড়িয়া ইউনিয়নে প্রত্যাহার করেছেন ২জন-আবদুর রহমান, শামিউল আলম। মনিগ্রাম ইউনিয়নে প্রত্যাহার করেছেন৪জন- জিল্লুর রহমান, কাবাতুল্লাহ, মাইনুল হক, আয়নাল হক। পাকুড়িয়া ও মনিগ্রাম ইউনিয়ন বাদে অপর দুৃই ইউনিয়নে থাকলো দু’দলের বিদ্রোহী প্রার্থী।

চার ইউনিয়নে সংরক্ষিত আসনের সদস্য পদে ৬৫ জনের মধ্যে প্রত্যাহার করেছেন ২ জন। এর মধ্যে গড়গড়ি ইউনিয়নে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ১৫ জন, মনিগ্রাম ইউনিয়নে ২২ জন। বাজু বাঘা ইউনিয়নে ১৪জন ও পাকুড়িয়ায় ইউনিয়নে ১১জন। সাধারণ সদস্যপদে ১৮৯ জনের মধ্যে প্রত্যাহার করেছেন ১৯জন। প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বাজুবাঘা ইউনিয়নে ৩২ জন, গড়গড়ি ইউনিয়নে ৪৪জন, পাকুড়িয়া ইউনিয়নে ৪২জন, মনিগ্রাম ইউনিয়নে ৫২জন।

নির্বাচন অফিসার ও সহকারি রিটারিং অফিসার মজিবুল আলম জানান, আগামী ১৪ অক্টোবর উপজেলার ৪ ইউনিয়ন-বাজুবাঘা, গড়গড়ি, পাকুড়িয়া ও মনিগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ভোটার সংখ্যা বাজুবাঘা ইউনিয়নে ১০হাজার ৭৩৮, গড়গড়ি ইউনিয়নে ১২ হাজার ২১২, পাকুড়িয়া ইউনিয়নে ১৫ হাজার ৩৬৬ ও মনিগ্রাম ইউনিয়নে ২৩ হাজার ৪০৩জন।

Leave a comment

উপরে