রাজশাহীতে দুই সমকামী তরুণী আটক

রাজশাহীতে দুই সমকামী তরুণী আটক

প্রকাশিত: ২৬-০৮-২০১৯, সময়: ০০:৪২ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীতে দুই সমকামী তরুনীকে আটক করেছে পুলিশ। তারা বরিশাল থেকে পালিয়ে রাজশাহীতে এসেছিল। শনিবার বিকেলে রাজশাহী নগরের শাহমখদুম থানার নওদাপাড়া এলাকা থেকে পুলিশ তাদের আটক করে। রোববার দুপুরে তাদের আদালতের মাধ্যমে সেফহোম হেফাজতে নেয়া হয়।

তারা হলেন- বরিশাল নগরীর ১৭নং ওয়ার্ডের আগরপুর রোডের রাজিয়া ম্যানশনের বাসিন্দা আনোয়ার হোসেনের মেয়ে ফাহমিদ আজমিন তামান্না (১৬) ও বিএম কলেজ রোড এলাকার বাসিন্দা প্রবাসী নাসির উদ্দিনের কন্যা তামান্না আক্তার (১৮)। গত ১৯ মার্চ এই দুই তরুণী নিখোঁজ হন। এ ঘটনায় তিনজনকে আসামি করে বরিশালে একটি অপহরণ মামলা করেন এক তরুণীর বাবা।

অপহরণ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) ফিরোজ আল মামুন বলেন, চলতি বছরের ১৮ এপ্রিল আগরপুর রোডের বাসিন্দা আনোয়ার হোসেন মিয়া বাদী হয়ে তার মেয়েকে অপহরণের অভিযোগ এনে একটি মামলা করেন। ওই মামলায় নগরীর অক্সফোর্ড মিশন রোডের আমজাদ মঞ্জিলের ভাড়াটিয়া বাসিন্দা আব্দুর রহমান দুলাল ফকিরের ছেলে উজ্জ্বল হোসেন রানা, স্ত্রী আলেয়া বেগম ও মেয়ে জামাই মো. মাসুমকে আসামি করা হয়। এ মামলায় উজ্জ্বল হোসেন রানাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

ফিরোজ আল মামুন আরও বলেন, চার মাস ধরে দুই তরুণী নিখোঁজ রয়েছে। পরে তাদের সন্ধান নিশ্চিত হতে তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তা নেয়া হয়। এতে ওই দুই তরুণীর অবস্থান রাজশাহী মহানগর এলাকায় নিশ্চিত হওয়া যায়। এরপর বরিশাল কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশের একটি টিম শনিবার দিনভর রাজশাহী নগর এলাকায় বিশেষ অভিযান চালায়। পরে শাহমখদুম থানাধীন নওদাপাড়া এলাকায় আব্দুল্লাহ আল মাহমুদের বাড়ি থেকে দুই তরুণীকে উদ্ধার করা হয়।

এসআই মামুন বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে উদ্ধার তরুণীরা স্বীকার করেছেন তারা অপহরণ হননি। দু’জন সমকামিতা করে স্বেচ্ছায় পালিয়ে যান। এমনকি দু’জন আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ নামের ওই ব্যক্তির কাছ থেকে বাসা ভাড়া নিয়ে সেখানে বসবাস করে আসছিলেন। অপহরণ মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করা হয়েছে তা সঠিক নয় বলেও পুলিশকে জানিয়েছেন ওই তরুণীরা।

ফিরোজ আলম মামুন বলেন, শনিবার বিকেলে দুই তরুণীকে উদ্ধার করা হয়। পরে তাদের পরিবারের লোকদের খবর দেয়া হয়। রোববার দুপুরে তাদের আদালতে হাজির করে সেভহোমে নেয়া হয়। পরিবারের সদস্যরা আসার পর তাদের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

Leave a comment

উপরে