ছাত্রলীগ কর্মীর উপর হামলার আসামীরা ধরাছোঁয়ার বাইরে

ছাত্রলীগ কর্মীর উপর হামলার আসামীরা ধরাছোঁয়ার বাইরে

প্রকাশিত: ২২-০৮-২০১৯, সময়: ১৪:২৫ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীতে ছাত্রলীগের দুই কর্মীর উপর হামলাকারিরা এখনো ধরাছোঁয়ার বাইরে। গত ১০ দিনেও পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করতে পারেনি। গত ১২ আগস্ট ঈদের দিনে নগরীর বোয়ালিয়ার রাণীনগর এলাকায় আদর্শ স্কুল ও নর্দান বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে ছাত্রলীগ কর্মী মিম ও শকিকে কুপিয়ে জখম করা হয়। এর পর থেকে তারা রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এখন পর্যন্ত কোন আসামী গ্রেপ্তার না হওয়ায় হতাশা প্রকাশ করেছেন আহত ও তাদের পরিবারের সদস্যরা।

বোয়ালিয়া মডেল ওসি নিবারন চন্দ্র বর্মন জানান, গত ১৬ আগস্ট মিমের বাবা আব্দুল মান্নান বাদি হয়ে থানা একটি মামলা দায়ের করেছে। মামলা হওয়ার পর পুলিশ আসামীদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রেখেছে। তবে আসামীরা পালাতক থাকায় গ্রেপ্তার করা যাচ্ছে না। দ্রুত আসামীরা গ্রেপ্তার হবে বলে জানান ওসি।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ঈদের দিন মোটরসাইকেল যোগে বন্ধুর বাড়ি নগরীর বিনোদপুর থেকে নিজ বাসায় ফিরছিলেন নগরীর চন্দ্রিমার শিরোইল কলোনী এলাকার মান্নানের ছেলে ছাত্রলীগ কর্মী মিম (২৫) ও মৃত চেরুর ছেলে শকি (৩০)। এসময় রানীনগর আদর্শ স্কুল ও নর্দান ইউনিভারসিটির সামনে পৌছালে ধারালো অস্ত্র নিয়ে তাদের উপরে হামলা চালায় নগরীর মুঞ্জুুর হোসেনের ছেলে আলিফ (২৭), সাধুর মোড় এলাকার মৃত মুর্তুজার ছেলে সাদ্দাম (২৫) ও হাদির মোড় এলাকার রাজুর ছেলে শান্তসহ অজ্ঞাত ৭-৮ জন। এসময় পেছন থেকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাদের এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করা হয়। এ সময় স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়।

তারা আহত মিম ও শকিকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করে। বর্তমানে মিম হাসপাতালের ৫ নং ওয়ার্ডে এবং শকি ৩১ নং ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছে। মিমের ঘাড়ে ও পিঠে ৬০টি সেলাই এবং শকির ডান হাতে ১৮ টি সেলাই দেয়া হয়েছে।

মামলার বাদি আব্দুল মান্নান বলেন, ঘটনার ১০ দিন হয়ে গেলে। কিন্তু আসামীদের কেউ এখনো গ্রেপ্তার হয়নি। দ্রুত আসামীদের গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান তিনি।

Leave a comment

উপরে