রাজশাহীতে অবশেষে গুড়িয়ে দেয়া হলো সেই স্থাপনাগুলো

রাজশাহীতে অবশেষে গুড়িয়ে দেয়া হলো সেই স্থাপনাগুলো

প্রকাশিত: ১৮-০৭-২০১৯, সময়: ২৩:২০ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী নগরভবন মোড় থেকে উপশহরগামী উপশহর-দড়িখরবোনা সড়কটিতে শত শত মানুষের ভিড়। এ রাস্তার পাশের দুটি বাড়িসহ কয়েকটা স্থাপনা ভাঙা হচ্ছে। আর তা দেখতেই ভিড় করছেন উৎসুক জনতা।

জনতার আগ্রহের পেছনেও রয়েছে বিশেষ কারন। কয়েকমাস আগে থেকেই চলছিল এ রাস্তাটির পূণর্নির্মানের কাজ। কিন্তু এই বাড়ি দুইটির মালিক বাড়ি খালি না করায় অসম্পূর্ণ রয়ে যায় রাস্তাটির কাজ। আদালতে মামলা ঠুকে বন্ধ করে দিয়েছিল এই রাস্তার কাজটি। এই অসম্পন্ন রাস্তাটির কাজ শেষ করতেই গতকাল বাড়ি দুটি ভাঙ্গা শুরু করে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান।

বৃহস্পতিবার দুপুরের পরে উপশহরগামী এ রাস্তাটি বন্ধ করে দেয়া হয়। বিকেলের দিকে ভবন দুটি ভাঙার কাজ শুরু হয়। আর তা দেখতে ভিড় করেন শত শত মানুষ। মানুষের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা গেছে। কেউ বাড়িটি ভাঙাতে আফসোস করেছেন। তবে রাস্তাটি এখন সম্পন্ন হবে বলে অনেকেই ইতিবাচক মন্তব্য করেছেন।

এদিকে, ভিন্ন কথা জানিয়েছেন বাড়ির মালিকরা। নগরভবন মোড় থেকে দড়িখরবোনা মোড়ের দিকে যেতে প্রথম বাড়িটির মালিক ময়েজ উদ্দিন আহমেদ। আর দড়িখরবোনা মোড় সংলগ্ন বাড়িটি মো. সবুর ও তার ভাইবোনদের।

ময়েজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, রাস্তার কাজ অনুমোদন হওয়ার পরে ২০১২ সালের বিধি অনুযায়ী আমাদের জমির যে দাম নিরূপন করা। কিন্তু ২০১৭ সালের জারিকৃত বিধি অনুযায়ী জমি অধিগ্রহণ করলে তার তিনগুন দাম প্রদান করতে হবে। সেই বিধি অনুযায়ী জমির আইন সঙ্গত দাম পেতে আমি মামলা দায়ের করি।

তিনি আরো বলেন, আলাদতের রায় এখনো হয়নি। তার আগেই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে বাড়ির জিনিসপত্র সরিয়ে নিতে বলেন। বিকেলে বাড়ি ভাঙা হবে এমনটা জানান তারা। এবং বিকেলের দিকে এসে বাড়ি ভাঙতে শুরু করেছে।

উপরে