রাজশাহীতে ঘুষ না পেয়ে দিনমজুরের পা ভাঙল পুলিশ

রাজশাহীতে ঘুষ না পেয়ে দিনমজুরের পা ভাঙল পুলিশ

প্রকাশিত: ১২-০৬-২০১৯, সময়: ১৩:৩৮ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক, দুর্গাপুর : রাজশাহীর দুর্গাপুরে ২০ হাজার টাকা ঘুষ চেয়ে না পেয়ে সাইদুল ইসলাম নামের এক দিনমজুরের পা ভেঙে দিয়েছে পুলিশ। নির্যাতনের অভিযোগে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ছেলেকে আটক করে ঘুষ দাবি করে দুর্গাপুর থানার এএসআই হাফিজ। ঘুষ দিতে দিতে অস্বীকার করায় ছেলের সামনে সাইদুল ইসলামকে নির্যাতন করে পা ভেঙে দেয় এই পুলিশ কর্মকর্তা। রাতে তাকে দুর্গাপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

হাসপাতালে সাইদুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, ‘‘পুত্রবধু তার ছেলের বিরুদ্ধে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছিল নির্যাতনের। ওই অভিযোগের প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তার ছেলে আসাদুল ইসলামকে আটক করে এএসআই হাফিজ। তবে তাকে থানায় না নিয়ে হোজা অনন্তকান্দি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে নিয়ে যায়। খবর পেয়ে ছেলেকে ছাড়াতে সেখানেই যান তিনি। এ সময় তার কাছে ২০ হাজার টাকা ঘুষ দাবি করে এএসআই হাফিজ। ঘুষের টাকা দিতে অপারগতা জানালে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এএসআই। এ সময় তার কাছে থাকা ৯০০ টাকা পকেট থেকে বের করে এএসআই হাফিজকে দেয়া হয়। এতো ক্ষুদ্ধ দেওয়ায় ক্ষুদ্ধ হয়ে বাঁশের লাঠি দিয়ে পিটিয়ে বাম পা ভেঙে দেয়া এই পুলিশ কর্মকর্তা। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠায়। আর গভীর রাতে তার ছেলে আসাদুলকে ছেড়ে দেয় এএসআই হাফিজ।’’

দুর্গাপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার আসফাক হোসেন বলেন, ‘‘সাইদুল ইসলামের হাটুতে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে হাড় ভেঙে গেছে। তবে এক্সে করার পর নিশ্চিত হওয়া যাবে কি পরিমান ভেঙেছে। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এক্সে মেশিন না থাকায় বাহির থেকে করার জন্য বলা হয়েছে।’’

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে এএসআই হাফিজ আসাদুল নামে কাউকে আটক, তার পিতার কাছে ঘুষ দাবি ও নির্যাতনের বিষয়টি অস্বীকার করেন।

দুর্গাপুর থানার ওসি আব্দুল মোতালেব বলেন, ‘‘বিষয়টি তার নলজে নেই। তার কাছে কেউ অভিযোগও করেননি। অভিযোগ পেয়ে বিষয়টি তদন্ত করা হবে।’’

উপরে