চারঘাট বাজারে আসছে গুটি ও গোপাল আম

চারঘাট বাজারে আসছে গুটি ও গোপাল আম

প্রকাশিত: ২০-০৫-২০১৯, সময়: ১৮:০৯ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক, চারঘাট : ঝড় বৃষ্টি আর প্রাকৃতিক দুর্যোগ কাটিয়ে রাজশাহীর আম বাজারে। রাজশাহীর আম শুধু নামেই সেরা না,গুনেও সেরা। এক নামেই যার খ্যাতি দেশজুড়ে। রসালো ও সুস্বাদু এই আমটি খেতে খুবই সুস্বাদু। প্রশাসনের বেঁধে দেয়া সময় সূচী অনুযায়ী রাজশাহীতে গত ১৫ মে বুধবার থেকে নামানো শুরু হয়েছে সবধরনের গুটিজাতের আম। তবে এ পযর্ন্ত তুলনামূলকভাবে বাজারগুলোতে সেভাবে আম চোখে পড়ছে না। আবার আড়ৎগুলোতেও যে আম পাওয়া যাচ্ছে, সেগুলো দাম মণ প্রতি ১২শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ব্যবসায়ীরা বলছেন, মাত্র পাঁচ/সাতদিনের মধ্যে জমে উঠবে আমের বাজার।

রাজশাহীর সবচেয়ে বড় আমের বাজার বানেশ্বর বাজার ঘুওে দেখা যায়, এ আম বাজার থেকে কোটি কোটি টাকার আম দেশের বাহিরেও যায়। রাজশাহী জেলার চারঘাট, বাঘা, দূর্গাপুর ও পুঠিয়া উপজেলার বাগানগুলোতে সকাল থেকে আম নামাতে দেখা গেছে। বড় বড় খাচায় ভর্তি করে ভ্যানে বা ভুটভুটিতে চড়িয়ে স্থানীয আড়ৎগুলোতে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। ভায়ালক্ষীপুর বুধির হাট আম বাগানের মালিক খোরসেদ আলম ও নজরুল ইসলাম বলেন, গত ৩/৪ বছর থেকে সরকার বিভিন্ন জাতের আম নামানোর জন্য তারিখ ঠিক করে দিচ্ছেন। এতে সামান্য কিছু অসুবিধা হলেও সার্বিক দিক বিবেচনায় আম চাষিদের সুবিধা হয়েছে।

তিনি আরো জানান এ মাসের শেষে এবং এবার ঈদের পরে ভালো জাতের চাহিদা সম্পন্ন আম হিমসাগর, ন্যাংড়া, গোপাল ভোগ, খেরসাপাত আমগুলো নামছে। তাই আশা করা হচ্ছে ব্যবসায়ীরা গতবারের মতো অতোটা লোকসান হবেনা।

এদিকে বিষমুক্ত আমের বাজার নিশ্চিত করতে রাজশাহীর জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নিবার্হী অফিসারগন আম বাগানগুলো থেকে সব জাতের আম নামানের নির্ধারিত সময় বা তারিখ ঠিক কওে দিয়েছেন। নিদের্শনা অনুযায়ী ১৫ মে গুটি আম, তোতাপুরি, গোপালবোগ ২০ মে, ২৫ মে লক্ষণ ভোগ ও লক্ণনা, খেরসাপাত ও লক্ষনা ২৮ মে, নেংড়া আম ৬ জুন, আমরোপালী ও ফজলী ১৬ জুন ও আশ্বিনা ১৭জুলাই মাসে নামানো হবে।

উপরে