জমে উঠেছে পবার হুজুরীপাড়া ইউনিয়নের উপ-নির্বাচনী প্রচারণা

জমে উঠেছে পবার হুজুরীপাড়া ইউনিয়নের উপ-নির্বাচনী প্রচারণা

প্রকাশিত: ০১-১০-২০১৮, সময়: ১৯:০২ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীর পবা উপজেলার হুজুরীপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের উপ-নির্বাচনী প্রচারনা জমে উঠেছে। কদর বেড়েছে ভোটারদের। প্রার্থীরা ঘুম হারাম করে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছে।

ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডে চলছে নির্বাচনী প্রচারণা। চেয়ারম্যান প্রার্থী ও স্ব-স্ব কর্মীদের চোখেও ঘুম নেই। ছুটছে ভোটারদের বাড়ি বাড়ি। চাইছে ভোট ও দোয়া। হোটেলে-রেস্তোরাঁয় চলছে প্রার্থীদের নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার ঝড়। শেষ মুহূর্তে প্রার্থীরা গণসংযোগ বাড়িয়ে দিয়েছেন। ভোটারদের ঘরে ঘরে গিয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন।

ইউনিয়নের কয়েকটি ওয়ার্ড ঘুরে দেখা গেছে, প্রতিটি গ্রামে চেয়ারম্যান প্রার্থীদের পোষ্টারে পোষ্টারে ছেয়ে গেছে। এ উপ-নির্বাচনে ৫ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। নৌকা প্রতিক নিয়ে সাবেক চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা, ধানের শীষ নিয়ে মোতাহার হোসেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান জাইদুর রহমান আনারস নিয়ে, মোটরসাইকেল প্রতিক নিয়ে আরেক স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান দেওয়ান রেজাউল করিম ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা আজিজুল হক মিঠু হাতুড়ি মার্কা নিয়ে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন।

আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী গোলাম মোস্তফা বলেন, নৌকা প্রতিক নিয়ে প্রতিটি বাড়িতে গিয়ে আমি ভোট প্রার্থনা করছি। ভালো সাড়া পাচ্ছি। বিজয়ী হলে আমার ইউনিয়নবাসীর সেবা তথা অসহায় মানুষের পাশে থাকতে পারব। জনকল্যাণার্থে ইউনিয়নের বিভিন্ন উন্নয়ন করবো। এছাড়া জননেত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার কাজে নিজেকে সম্পৃক্ত করব।

স্বতন্ত্র প্রার্থী জাইদুর রহমানের সমর্থকেরা আনারস প্রতীক নিয়ে ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে নিয়মিত মিছিল ও গণসংযোগ করে বেড়াচ্ছেন। পাড়া-মহল্লায় গিয়ে ভোট চাচ্ছেন। অপর স্বতন্ত্র প্রার্থী দেওয়ান রেজাউল করিম বলেন, বিজয়ী হলে মাদক, সন্ত্রাস ও দুর্নীতিমুক্ত সমাজ গড়ে তুলবো। বিএনপির ধানের শীষের প্রার্থী মোতাহার হোসেনও নির্বাচনী গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন ও ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন। পাশাপাশি বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির হাতুড়ি প্রতিকের প্রার্থী আজিজুল হক মিঠুও বসে নইে। তবে ধানের শীষ ও হাতুড়ি গণসংযোগে অনেকটাই পিছিয়ে।
হুজুরীপাড়া ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ড ঘুরে বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষসহ ভোটারদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, নির্বাচনে গোলাম মোস্তফা, জাইদুর রহমান ও দেওয়ান রেজাউল করিমের মধ্যে ত্রিমুখী লড়াই হবে। এরা সবায় এই ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ছিলেন। সেইদিক থেকে এই নির্বাচন উপ-নির্বাচন হলেও নিজ নিজ অবস্থানে মর্যাদার লড়াই।

পবা উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং অফিসার মির্দা মোসা. শাহানাছ পারভীন বলেন, আগামীকাল ৩ অক্টোবর ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। গতকাল সোমবার এই নির্বাচন উপলক্ষে প্রিজাইডিং অফিসার, পোলিং এজেন্টদের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। প্রশিক্ষনে উপস্থিত ছিলেন জেলা নির্বাচন অফিসার ফরিদুল ইসলাম, পবা উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহিদ নেওয়াজ। তিনি বলেন, আজ মঙ্গলবার কেন্দ্রে কেন্দ্রে ভোট গ্রহণের প্রয়োজনীয় উপকরনাদি পৌছানে হবে।

ইউনিয়নটির ৯ ওয়ার্ডে ভোটার সংখ্যা ১৯ হাজার ২৩০ জন। এর মধ্যে মহিলা ৯ হাজার ৬৭৬ ও পুরুষ ভোটার ৯ হাজার ৫৫৪ জন। ভোট কেন্দ্র সংখ্যা ৯ টি ও ৫৯টি কক্ষে বুথ সংখ্যা ৬৩টি। আগামিকাল ৩ অক্টোবর এই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

Leave a comment

আরও খবর

  • প্রেমে ব্যর্থ হয়ে বিষপানে কিশোরের আত্মহত্যা
  • নাটোরের বাসুদেবপুরে ট্রেনের ধাক্কায় বাইক আরোহী নিহত
  • ঢাবি `ঘ` ইউনিটের ফলাফল স্থগিত
  • বাগমারায় নিখোঁজ আ.লীগ নেতার সন্ধান চেয়ে এলাকাবাসীর বিক্ষোভ
  • ৬০ বারের মতো পেছালো সাগর-রুনি হত্যা মামলার প্রতিবেদন
  • ‘কমিশনার মাহবুবের নোট অব ডিসেন্ট যথার্থ’
  • ফের সভা বর্জন নির্বাচন কমিশনারের
  • যুবরাজের দুটি বিশ্ব রেকর্ডে ভাগ বসিয়েছেন জাজাই
  • নাচোলে ৪ জেএমবি গ্রেপ্তার
  • ‘বঙ্গবন্ধু বললে যেমন বাংলাদেশ, তেমনি নৌকা বললে বোঝায় উন্নয়ন’
  • ময়মনসিংহে বন্দুকযুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ী নিহত
  • টাঙ্গাইলে বন্ধুকযুদ্ধে চরমপন্থী নেতা নিহত
  • বাগমারায় আ.লীগ নেতা নিখোঁজ
  • প্রথম পর্যায়ে ৮৪ হাজার ইভিএম কিনতে চায় ইসি
  • কোটি টাকায় ঐক্যফ্রন্ট কিনলো তারেক


  • উপরে