তারাবীহর নামায সুন্নতে মোয়াক্কাদাহ (পর্ব-৩)

তারাবীহর নামায সুন্নতে মোয়াক্কাদাহ (পর্ব-৩)

প্রকাশিত: ২৪-০৫-২০১৯, সময়: ০০:৪১ |
Share This

হোছাইন আহমাদ আযমী : তারাবীহর নামায ও মাসায়েলঃ রমযান মাসে ইশার নামাযের পর ইশার ওয়াক্তের মধ্যে যে বিশ রাকাআত সুন্নাতে মোয়াক্কাদা পড়তে হয় তাকে তারাবীহর নামায বলে। নারী পুরুষ উভয়ের জন্য তারাবীহর নামায সুন্নতে মোয়াক্কাদাহ।

[পূর্বালোচনার পর থেকে]
১১. তারাবীহ-তে বুঝে আসেনা এমন ভাবে দ্রুত তিলাওয়াত করা সওয়াবের পরিবর্তে গুনাহের কারন হয়ে দাড়ায়। (ফতয়ায়ে দারুল উলুম- ৪র্থ খন্ড)
১২. হাফেজ সাহেব যদি ভুলে চুপ-চাপ দাঁড়িয়ে অথবা বৈঠকের সময় তাশাহ্হুদের আগে বা পরে চিন্তা করতে থাকেন এবং এর মধ্যে এক রুকন পরিমান তথা তিনবার সুবহানাল্লাহ বলার পরিমান সময় অতিবাহিত হয়ে যায়, তাহলে সাজদায়ে সাহু দিতে হবে। (ফতয়ায়ে দারুল উলুম- ৪র্থ খন্ড)
১৩. কোন আয়াত ভুলে থেকে গেলে বা ভুল পড়া হয়ে থাকলে পরবর্তিতে সেদিন অথবা অন্য কোন দিন তা পড়ে নিতে হবে, নতুবা খতম পূর্ণ হবেনা । (ফতয়ায়ে দারুল উলুম- ৪র্থ খন্ড)
১৪. খতমের পর তারাবীহ-র মধ্যেই শেষ রাকাআতে সুরা বাকারার শুরু থেকে “মুফলিহুন” পর্যন্ত পড়া মুস্তাহাব। (ফতয়ায়ে দারুল উলুম- ৪র্থ খন্ড)
১৫. তারাবীহ-র মধ্যে খতমের সময় সুরা ইখলাস তিনবার পড়া মাকরুহ যদি এটাকে শরিয়তের বিশেষ নিয়ম মনে করে আমল করে থাকে।
১৬. তারাবীহ-র মধ্যে সুরা ওয়াদ্দোহা থেকে শেষ পর্যন্ত সুরাগুলোর পর আল্লাহু আকবার বলা মাকরুহ। নামাজের বাহিরে এরূপ আমল করা যায়।
১৭. তারাবীহ-র বিনিময়ে পারিশ্রমিক নেয়া জায়েয নয়, তবে হফেজ সাহেবের যাতায়াত ভাড়া ও খাওয়া দাওয়ার ব্যবস্থা করা বিধেয়। (ফতুয়ায়ে দারুল উলুম- ৪র্থ খন্ড)

বিজ্ঞানের দৃষ্টিতে রোযা-১৭
রাশিয়ার চিকিৎসকরা ১৮ ও ১৯ শতাব্দীতে রোযার মাধ্যমে রক্তের ক্যান্সার, চোখের রোগ, দাঁতের মাড়ি ফুলে যাওয়া ও রক্তক্ষরণ এবং আলসারের চিকিৎসা করতেন। ১৭৬৯ সালে মস্কো বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষক ডা. পিটার ভেনিয়া মিনভ এক রিপোর্ট প্রকাশ করে। তাতে তিনি অসুখের সময় রোগীদেরকে খাদ্য থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দেন। তার প্রমাণ ছিল, রোযার কারণে পরিপাকতন্ত্র সুস্থ হওয়ার পর তা ঠিকমত হজম করতে সাহায্য করে।
মস্কো বিশ^বিদ্যালয়ের অন্যতম শিক্ষক ড. পি. জি স্পাসকী বলেন, রোযার মাধ্যমে কালজ¦ও এবং শরীরের মধ্যে অন্যান্য কাঠিন রোগ বাইরের হস্তক্ষেপ ছাড়াই ভাল হতে পারে।

উপরে