পেনশনের দ্বৈতনীতি সংশোধন প্রয়োজন

পেনশনের দ্বৈতনীতি সংশোধন প্রয়োজন

প্রকাশিত: ২৩-০৫-২০১৯, সময়: ১৩:৫৭ |
খবর > মতামত
Share This

স্বাধীনতার ৪৮ বছর অতিবাহিত হবার পর আজ আমরা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর স্বপ্নের সুখী, সমৃদ্ধ সোনার বাংলাকে পেয়েছি। তার সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ পৃথিবীর বুকে উন্নয়নের রোল মডেল। আমরা আশা করি ২০১২ সালের মধ্যে আমরা মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হব।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশের সার্বিক উন্নয়নের পাশাপাশি জনগণের জীবনমান উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছেন। সরকারী চাকুরীজীবীদের পাশাপাশি অবসর প্রাপ্তদের জন্যও বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা ঘোষিত হয়েছে। শতভাগ পেনশন বিক্রিকারীরা শুধু চিকিৎসা ও উৎসব ভাতা পেয়ে থাকেন। সম্প্রতি সরকার শতভাগ পেনশন বিক্রিকারীদেরও পুনরায় মাসিক পেনশন প্রদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে যা প্রসংসার দাবীদার। আমরা সকরেই জানি পেনশন ভোগীর মৃত্যুর পর তার স্ত্রী পেনশন প্রাপ্ত হবেন। শতভাগ পেনশন বিক্রিকারীদের ক্ষেত্রেও একই নিয়ম প্রযোজ্য।

কিন্তু অত্যন্ত দুঃখজনক হলেও সত্য যে, যে সমস্ত শতভাগ পেনশন বিক্রিকারীরা মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের স্ত্রীরা চিকিৎসা ও উৎসব ভাতা পেলেও মাসিক পেনশনের আওতায় আসছে না যা সরকারের পেনশন নীতির সাথে সাংঘর্ষিক। স্বামীর মৃত্যুর পর স্ত্রী যদি চিকিৎসা ও উৎসব ভাতা পেতে পারে তাহলে তিনি মাসিক পেনশনেরও দাবীদার। তাই এই দ্বৈতনীতি সংশোধন করে সবার ক্ষেত্রে একই নিয়ম চালুর দাবি জানাচ্ছি। এতে করে সরকারের প্রকৃত উদ্দেশ্য সফল হবে।

লেখক: নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন বিধবা নারী

উপরে