পায়ের শক্তিতে এগিয়ে চলেছে প্রতিবন্ধী সাথী

নিজস্ব প্রতিবেদক : শারীরিক প্রতিবন্ধকতা হার মানাতে পারেনি সাথীকে। সে এবারে পা দিয়ে লিখে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায়..

এবারও এগিয়ে মেয়েরা

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডে গতবারের মতো এবারো পাস ও জিপিএ-৫ প্রাপ্তির দিক দিয়ে ছেলেদের তুলনায় মেয়েরা এগিয়ে আছে। এবারে রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের অধিনে জেএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয় ২ লাখ ৩২ হাজার ৬৬৪ জন পরীক্ষার্থী।..

রাজশাহী বোর্ডে বেড়েছে পাস ও জিপিএ-৫

নিজস্ব প্রতিবেদক : জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষায় (জেএসসি)  এবার রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডে পাশের হার ৯৭ দশমিক ৬৮ ভাগ। যা ২০১৫ সালের চেয়ে দশমিক ২১ ভাড় বেশি। গত বছর পাশের হার ছিলো ৯৭ দশমিক ৪৭ ভাগ। এদিকে পাশের হারের..

জেএসসির পাসে দেশসেরা রাজশাহী

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডে এবার জেএসসি পরীক্ষায় পাশের হার ও জিপিএ-৫ প্রাপ্তের সংখ্যা বেড়েছে। রাজশাহী বোর্ডের পাশের হার ৯৭ দশমিক ৬৮ শতাংশ। গত বছর যা ছিল ৯৭ দশমিক ৩৫ শতাংশ।..

রাজশাহী বোর্ডে পাস ৯৭.৬৮%

নিজস্ব প্রতিবেদক : জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষায় রাজশাহী বোর্ডে পাসের হার ৯৭ দশমিক ৬৮। আর জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪০ হাজার ৪৭১ জন শিক্ষার্থী। বৃহস্পতিবার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড কনফারেন্স..

প্রাথমিকে ৯৮.৫১% পাস, ইবতেদায়ীতে ৯৫.৮৫%

পদ্মা টাইমস ডেস্ক : পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় ৯৮ দশমিক ৫১ শতাংশ ও ইবতেদায়ীতে ৯৫ দশমিক ৮৫ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছে এ বছর। এর মধ্যে প্রাথমিকে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ লাখ ৮১ হাজার ৮৯৮ জন। আর..

রাজশাহীর সরকারি স্কুলে ‘ভর্তিযুদ্ধ’ শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী মহানগরীর পাঁচটি সরকারি স্কুলে তৃতীয় ও ষষ্ঠ শ্রেণীর ভর্তিযুদ্ধ শুরু হয়েছে। রোববার সকাল ১০টায় শুরু হয় ষষ্ঠ শ্রেণীর ভর্তি পরীক্ষা। চলবে সোমবার পর্যন্ত। প্রতিদিন দুই সিফটে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত..

রোববার রাজশাহীতে ভর্তিযুদ্ধে বসবে ১১ হাজার ক্ষুদে শিক্ষার্থী

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী মহানগরীর পাঁচটি সরকারি স্কুলে তৃতীয় ও ষষ্ঠ শ্রেণীর ভর্তিযুদ্ধ শুরু রোববার। প্রতিটি আসনের জন্য এবার লড়বে প্রায় ১৩ জন শিশু শিক্ষার্থী। এর মধ্যে তৃতীয় শ্রেণীর প্রতিটি আসনে ১০ জন ও ষষ্ঠ..

রাজশাহীর সরকারি স্কুলে ভর্তি কোটায় ৯৩ আসন

নিজস্ব প্রতিবেদক : সরকারি স্কুলে ভর্তিতে রয়েছে তিন ধরণের কোটা। মুক্তিযোদ্ধাদের বংশধরদের জন্য রয়েছে পাঁচ শতাংশ কোটা। শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারিদের সন্তান ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক কর্মচারিদের..

উপরে