১ মাসের মধ্যে শিবগঞ্জকে বাল্যবিয়ে মুক্ত করার ঘোষণা

প্রকাশিত: ১০-১২-২০১৭, সময়: ১৪:১০ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক, শিবগঞ্জ : আগামী এক মাসের মধ্যে শিবগঞ্জ উপজেলাকে বাল্যবিয়ে মুক্ত করার উদ্যোগে নেয়া হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. শফিকুল ইসলাম আগামী জানুয়ারীর মাসের মধ্যে বাল্যবিয়ে থেকে শিবগঞ্জ উপজেলাকে মুক্ত করার জন্য উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে বাল্যবিয়ের সুফল ও কুফল সম্পর্কে জনগণকে অবহিত করার লক্ষে সভা-সেমিনার করে যাচ্ছেন। ইতোমধ্যে বাল্যবিয়ে প্রতিরোধ করার লক্ষে ব্যাপক উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। তিনি চলতি বছরের জানুয়ারী মাস থেকে বাল্যবিয়ে রোধে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে বাল্যবিয়ে রোধে বর, কনে ও বরে পিতা, কনের পিতা-মাতা, বাল্যবিয়েতে সহযোগিতাকারী মৌলভী, নিকাহ রেজিস্ট্রার ও ঘটকদের ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে নি¤্নে ৭ দিন হতে উর্দ্ধে ১ মাস পর্যন্ত কারাদন্ড ও অর্থদন্ড প্রদান করেছেন।

শিবগঞ্জ উপজেলা অফিস সূত্রে জানা গেছে, গত ১০ মাসে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বাল্যবিয়ের খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নির্দেশনায় ও পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতায় ১১৭টি বাল্যবিয়ে প্রতিরোধ করা সম্ভব হয়েছে। এছাড়াও গোপনে বাল্যবিয়ে দেয়ায় ভ্রাম্যমান আদালত ৩২টি মামলা দায়ের করেছেন। বাল্যবিয়ে প্রতিরোধ আইনে ৪০ জন অপরাধিকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা ও ৩৩ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এদিকে বাল্যবিয়ে প্রতিরোধ করতে অভিযান চালিয়ে একদিকে মানুষের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টি হয়েছে, অন্যদিকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়ায় মানুষের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করায় বর্তমানে বাল্যবিয়ে প্রায় বন্ধ হয়ে গেছে।

এব্যাপারে শিবগগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার শফিকুল ইসলাম জানান, অল্প সময়ের মধ্যে বাল্যবিয়ে কমে যাওয়ায় অবিলম্বে পুরোপুরি বাল্যবিয়ে বন্ধ হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন। ইতোমধ্যে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় শিক্ষার্থী, তরুণ তরুণী, সমাজসেবক, শিক্ষক, মসজিদের ইমামদের সঙ্গে নিয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ করার জন্য আলাপ-আলোচনা মতবিনিময় ও সভা-সেমিনার করেছেন। বিভিন্ন পেশার মানুষ প্রশাসনকে সার্বিকভাবে সহযোগিতা করলে উপজেলাকে বাল্যবিয়ে মুক্ত করা সম্ভব হবে ইনশাল্লাহ্।

উপরে