ভালোবাসায় সিক্ত জয়পুরহাট হরিজন সম্প্রদায়ের শিশুরা

প্রকাশিত: ১৪-০২-২০১৯, সময়: ২৩:১২ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক, জয়পুরহাট : ভালোবাসা দিবসের দিনটিতে জয়পুরহাটে হরিজন সম্প্রদায়ের কলোনিতে সেজে উঠেছিল এক ভিন্ন সাজের সাজ। ফুল বা কোন গিফ্ট আদান-প্রদান নয়, এমনকি নতুন কাপড়ে সাজ-গোজও নয়। তাদের শিশুদের হাতে ছিল শুধু খাতা আর কলম, খাবার ছিল চকলেট। ঘর থেকে ঘোমটার আড়ালে উঁকি দিয়ে দেখছেন ওইসব শিশুদের মায়েরা। ভালোবাসার সার্বজনীন বাণী নিয়ে হরিজন কলোনির প্রাঙ্গন মেতে ছিল অন্যরকম ভালবাসার আনন্দ আয়োজনে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত জয়পুরহাটে হরিজন সম্প্রদায়ের শিশুদের সাথে ভালোবাসা দিবসে ‘সার্বজনীন বাণী ভালবাসা ভাগাভাগি’ শিরোনামে শহরের বেলাআমলা রোডে হরিজন কলোনিতে এ ব্যাতিক্রম অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন সামাজিক সংগঠন “পাশে আছি আমরা”।

আয়োজন প্রসঙ্গে পাশে আছি আমরা সামাজিক সংগঠনের সভাপতি খ.ম আরাফ রহমান বলেন, ভালোবাসা দিবসে জাতি, বর্ণ নির্বিশেষে সকলের জন্য ভালোবাসায় রঙ্গিন হবে সারাবিশ্ব। ভালোবাসা হতে হবে সর্বজনীন বাণী। “যাদের পরিশ্রমের ঘামে আমরা ভালো থাকি সমাজে তাদের পরিচয় কেউ বলে মেথর, আবার কেউ বলে হরিজন। বিনিময়ে এ সমাজে তারা শুধুই অবহেলাই পান। তাদের সাথে ভালোবাসা ভাগাভাগি করতেই আজকের এ আয়োজন।”

যাদের জন্য আজকের এ আয়োজন তাদের পক্ষ থেকে দু’হাত তুলে নমস্কার জানিয়ে হরিজন সম্প্রদায়ের সর্দার সুধির বলেন, “এমন অনুষ্ঠান তো কেউ করেনি কখনো আমাদের এই কলোনিতে। এ অনুষ্ঠান আজ সকলের কাছে খুব ভাল লাগছে। বাচ্চারা খুব খুশি হয়েছে। শিশুদের খুশিই আমাদের খুশি। এ অনুষ্ঠান মনে থাকবে এ সম্প্রদায়ের সকলের”।

পাশে আছি আমরা সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম সাকলাইন সিজার বলেন, সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত সব শিশুদের মধ্যে ভালবাসা দিবস উপলক্ষে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। পরে তাদের পুরস্কৃত করা হয়। তারা যখন ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহন করছিল, তখন তাদের চখে-মুখে হাসি-খুশি দেখে আমাদের অনেক ভালো লাগছিল। আসলে তাদেরকে হাসি-খুশি রাখতেই আমাদের এ আয়োজন। তারা যেন ভালবাসার দিনে ভাল থাকে, এটাই ছিল আমাদের লক্ষ্য। এসময় উপস্থিত ছিলেন, পাশে আছি আমরা সংগঠনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাকিয়া আভা প্রাপ্তি, সাবরিনা আক্তার লোপা।

হরিজন কলোনির বাসিন্দা শিশু দেবের মাও যেন জেগে উঠেছিলেন ভালোবাসা দিবসে ভালবাসার ছোঁয়ায়। এই মানুষটি ভালবাসা জানালেন শুধু দুটি বাক্যে। তিনি আবেগ আপ্পুলত হয়ে বললেন, অন্তর থেকে তোমাদের অভিনন্দন। শুভ ভালোবাসা দিবস।

উপরে