মোহনপুরে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল ৯ম শ্রেণী ছাত্রী

প্রকাশিত: ১৬-০৪-২০১৮, সময়: ১৮:১৭ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক, মোহনপুর : রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলার ঘাসিগ্রাম ইউনিয়নের ভর বড়াইল গ্রামের বেলনা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণী ছাত্রী মোস্তারিন খাতুন (মেরি) পরিবারের পক্ষ থেকে গত রবিবার রাত ১১ টার দিকে বাল্য বিবাহের উদ্যেগ নিলে ঘটনাটি জানার পর মোহনপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আনোয়ার-উল-হালিমের হস্তক্ষেপে অবশেষে ৯ম শ্রেণীর ছাত্রীর বাল্য বিবাহ থেকে রক্ষা পেল।

জানাগেছে, উপজেলা ঘাসিগ্রাম ইউনিয়নের ভরবড়াই গ্রামের গোলাম মোস্তফা মেয়ে মোস্তারিন খাতুন মেরির (১৪) কে বাল্যবিবাহ দেয়ার জন্য বিয়ের প্রস্তুত্তি নিলে বিষয়টি গোপন সংবাদের মাধ্যমে উপজেলা ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও নির্বাহী কর্মকতা আনোয়ার-উল- হালিম বাল্য বিবাহ অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে বাল্য বিবাহ পন্ড করে দেন। হালকা-পাতলা গড়নের কিশোরী মেরিকে দেখে হতভস্ব হয়ে যান। বাল্য বিবাহ বন্দের জন্য মেয়ের পিতা-মাতা ও আত্নীয় স্বজনদের জানান।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আনোয়ার-উল-হালিম বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে বাল্য বিবাহে সামাজিক অবক্ষয় রোধে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে অভিভাবকদের এগিয়ে আশার ও বাল্য বিবাহ বন্ধে সকলকে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার আহবান জানান। এক পর্যায়ে মেয়ের পিতা-মাতা, চাচা তাদের মেয়েকে বাল্য বিবাহ দিবেনা বলে প্রশাসনের কাছে প্রতিজ্ঞা ও অঙ্গিকারনামা লিখে মুক্তি পায়।

উপরে