আট বছর বয়সে শ্রমিক সিদ্দিক

প্রকাশিত: ৩০-১২-২০১৬, সময়: ১৩:৩৮ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক : নাম সিদ্দিক। বয়স মাত্র আট। এ বয়সেই স্টিলের কারখানায় হাড় ভাঙা খাটুনি। স্বপ্নহীন দুইটি চোখ। চেহেরায় ফুটে উঠেছে পুষ্টিহীনতা। চলাফেরায় নেই উদ্দাম আর উল্লাস। এ বসয়ে সে ঘাড়ে বস্তা নিয়ে স্টেশনের চত্বরে ঘুরে বেড়ায়। ফাঁকা বোতলসহ অন্য ভাঙড়ি যা আছে তা কুড়িয়েই সামান্য অর্থ আসে। পাশপাশি স্টিলের দোকানে সামন্য মাইনেতে কাজ করে সে। পরিবারকে সহযোগিতায় বই, খাতা ফেলে কাজে নেমে পড়েছে।
রাজশাহী স্টেশনে গেলেই চোখে পড়বে পথশিশুদের। সেখানে বেশ কয়েকজন পথশিশুদের মধ্যে সিদ্দিক এক জন।  সিদ্দিক জানান, সে লেখাপড়া করতে চায়। কিন্তু তা সম্ভব নয় তার কাছে। আর্থিক সমস্যার কারণে মানুষের দোকানে কাজ করতে হচ্ছে তাকে।
সিদ্দিক জানায়, নওগাঁ জেলার আত্রাই থানায়। জন্ম সেখানে হলেও ছোট থেকেই তারা রাজশাহীতে থাকেন। অভাবি পরিবারে পিতা আনসামী ও মা সাথী গ্রামে কৃষিকাজ করেন। বাবা গ্রামে থাকলেও মাসহ সিদ্দিক রাজশাহীতে চলে এসেছে। লেখাপড়া করার ভিষণ স্বপ্ন ছিলো তার। পরিবারকে অভাবের কাছে লেখাপাড় করা হয়নি সিদ্দিকের।
সিদ্দিক দ্বিতীয় শ্রেণী পর্যন্ত পড়াশোনা করেছে। কিন্তু এর পরে আর্থিক সমস্যার জন্য সে আর পড়াশোনা করতে পারেনি।
সিদ্দিক পদ্মাটাইমস টোয়েন্টিফোরকে জানায়, “আর্থিক সমস্যার জন্য তার পরিবার থেকে তাকে কাজে লাগিয়ে দেয়। গত ২ বছর যাবত সে একটি স্টীল কারখানায় থাকে। কারখানায় থেকে আয় প্রতি সপ্তাহে ৩০০ টাকা। ‘ইচ্ছে থাকলেও আর্থিক সমস্যার কারণে পড়াশোনা করতে পারছে না সে। তবে সুযোগ পেলে পড়াশোনা করবে।’

উপরে