স্বপ্ন-পূরণের অভিযাত্রাকে মোবাইল ক্যামেরায় ধারণ করলেন প্রধানমন্ত্রী

স্বপ্ন-পূরণের অভিযাত্রাকে মোবাইল ক্যামেরায় ধারণ করলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: ২৪-০১-২০২০, সময়: ২১:২৭ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক : সকল প্রতিকুলতাকে জয় করে স্বপ্নের পদ্মা সেতুর ৩ হাজার ৩০০ মিটার দৃশ্যমান। সেই স্বপ্ন-পূরণের অভিযাত্রাকে হেলিকপ্টার থেকে মোবাইল ক্যামেরায় ধারণ করছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শুক্রবার আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দলের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ ও উপদেষ্টা পরিষদের নবনির্বাচিত সদস্যদের সঙ্গে নিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন। বিকেলে গোপালগঞ্জের টুঙ্গীপাড়া থেকে প্রধানমন্ত্রী ঢাকায় ফিরেন হেলিকপ্টর যোগে। এ সময় গভীর মমতায় পদ্মা সেতু নির্মাণের অগ্রগতী দেখেন এই স্বপ্নের স্বপ্নদ্রষ্টা ও বাস্তবায়নের কারিগর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় সেই স্বপ্ন-পূরণের অভিযাত্রাকে হেলিকপ্টার থেকে মোবাইল ক্যামেরায় ধারণ করছেন প্রধানমন্ত্রী।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে দেখা যায় প্রধানমন্ত্রী নিজে হেলিকপ্টারের জানালা দিয়ে মোবাইলে ছবি ধারণ করছেন। এসময় তাকে বেশ হাস্যোজ্জ্বল দেখা যায়। প্রধানমন্ত্রীর এমন একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন তার উপ প্রেস সচিব আশরাফুল আলম খোকন।

ভিডিও শেয়ার করে তিনি লিখেছেন- স্বপ্নের পদ্মা ব্রিজ আজ বাস্তবে রূপ নিচ্ছে। গভীর মমতায় পদ্মা ব্রিজ নির্মাণের অগ্রগতি দেখছেন এই স্বপ্নের স্বপ্নদ্রষ্টা ও বাস্তবায়নের কারিগর আমাদের পরম শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রীর আকাশ পথে পদ্মা পাড়ির হেলিকপ্টারের কিছু ছবিও ফেসবুকে ভাসছে। প্রধানমন্ত্রীর আকাশপথে যাওয়ার ছবি ফেসবুকে দিয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের নির্বাহী প্রকৌশলী (মূল সেতু) দেওয়ান মোহাম্মদ আব্দুল কাদের।

তিনি লিখেছেন, নিয়মিত পরিদর্শনের মাধ্যমে আমাদের উৎসাহিত করার জন্য প্রধানমন্ত্রী আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। তিনি (প্রধানমন্ত্রী) টুঙ্গিপাড়া থেকে ফেরার পথে আকাশ থেকে পদ্মাসেতুর অগ্রগতি প্রত্যক্ষ করেছেন। নদীতে কর্তব্যরত ছিলাম, আমি গর্বিত।

স্বপ্নের পদ্মা ব্রীজ আজ বাস্তবে রুপ নিচ্ছে। গভীর মমতায় পদ্মা ব্রীজ নির্মাণের অগ্রগতী দেখছেন এই স্বপ্নের স্বপ্নদ্রষ্টা ও বাস্তবায়নের কারিগর আমাদের পরম শ্রদ্ধা ও ভালবাসার মাননীয় প্রধানমন্ত্রী।

Posted by Zunaid Ahmed Palak on Friday, January 24, 2020

Leave a comment

উপরে