রাতের আঁধারে ঘরে ঢুকে ৬ জনকে কুপিয়ে জখম

রাতের আঁধারে ঘরে ঢুকে ৬ জনকে কুপিয়ে জখম

প্রকাশিত: ১৬-০১-২০২০, সময়: ১১:৩১ |
Share This

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : ফেনীর সোনাগাজী উপজেলায় জমি নিয়ে বিরোধের জেরে রাতের আঁধারে ঘরে ঢুকে একই পরিবারের ছয় নারী-পুরুষকে কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন।

বুধবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে সোনাগাজী বাজারসংলগ্ন পাণ্ডববাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন- হেদায়েত উল্লাহ মিন্টু, নূর নাহার, মাহমুদুল হক জাবেদ, সুলতানা আক্তার, রাজিয়া সুলতানা ও মাহমুদা আক্তার।

আহতরা জানান, পাণ্ডববাড়ির মাহমুদুল হক জাবেদ গংদের সঙ্গে একই বাড়ির পৌর কাউন্সিলর (নুসরাত হত্যা মালায় ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি কারাবন্দি) মাকসুদ আলম ও তার ভাইদের সঙ্গে দীর্ঘ দিন জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে।

ক্ষতিগ্রস্তদের দাবি, সে বিরোধের জের ধরে বুধবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে পূর্বপরিকল্পিতভাবে মাকসুদ আলমের ভাই হেলাল উদ্দিন, মাইন উদ্দিন রুবেল, সবুজ, ভোলা মিয়া, রবিন ও ফাহাদের নেতৃত্বে ২০-২৫ জন সশস্ত্র সন্ত্রাসী মাহমুদুল হকে জাবেদের ঘরের দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকে অতর্কিত হামলা চালায়।

এ সময় সন্ত্রাসীরা হেদায়েত উল্লাহ মিন্টু, নূর নাহার, মাহমুদুল হক জাবেদ, সুলতানা আক্তার, রাজিয়া সুলতানা ও মাহমুদা আক্তারকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। পুলিশ ও স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. খুজ্জিস্তা আক্তার দীপা জানান, আহতদের সবাইকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও পিটিয়ে জখম করা হয়েছে। এদের মধ্যে নুর নাহার ও হেদায়েতুল ইসলাম মিন্টুর অবস্থা আশঙ্কাজনক।

সোনাগাজী মডেল থানার ওসি মঈন উদ্দিন আহমেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

Leave a comment

উপরে