সততা ও শুদ্ধাচারে পুরস্কার পেয়েছিলেন জামালপুরের সেই ডিসি!

সততা ও শুদ্ধাচারে পুরস্কার পেয়েছিলেন জামালপুরের সেই ডিসি!

প্রকাশিত: ২৫-০৮-২০১৯, সময়: ১৮:৩৫ |
খবর > জাতীয়
Share This

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : জামালপুরের ডিসি বিতর্ক এখন টক অব দ্যা কান্ট্রি। নারী অফিস সহকারীর সঙ্গে আপত্তিকর ভিডিও প্রকাশের ঘটনায় ইতোমধ্যে সেই ডিসি আহমেদ কবীরকে ওএসডি করা হয়েছে। তবে এ ঘটনার মাত্র দু’মাস আগেই সততা আর শুদ্ধাচারে তিনি পেয়েছিলেন ময়মনসিংহ বিভাগের বিভাগীয় শুদ্ধাচার পুরস্কার। রোববার (২৫ আগস্ট) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিশনার মাহমুদ হাসান স্বাক্ষরিত একটি সম্মামনা পত্র ভাইরাল হয়।

সম্মাননা পত্রে দেখা যায়, আলোচিত সেই ডিসি আহমেদ কবীরকে তার পেশাগত জ্ঞান ও দক্ষতা, সততা, উদ্ভাবন, ই-ফাইলিং, সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার, অভিযোগ প্রতিকারে সহযোগিতাসহ শুদ্ধাচার চর্চা বিষয়ক বিভিন্ন সূচকে সন্তোষজনক লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের স্বীকৃতিস্বরূপ বিভাগীয় শুদ্ধাচার পুরস্কার-২০১৯ দেওয়া হয়।

এদিকে, জামালপুরের বিতর্কিত ডিসি আহমেদ কবীরকে ওএসডি করে নতুন ডিসি হিসাবে মোহাম্মদ এনামুল হককে নতুন ডিসি নিয়োগ দেয়া হয়েছে। তিনি এর আগে পরিকল্পনামন্ত্রীর একান্ত সচিব (উপসচিব) ছিলেন। রোববার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত একটি আদেশ জারি করা হয়েছে।

আহমেদ কবীরকে ওএসডি করার সিদ্ধান্তের কথা গতকাল শনিবারই জানিয়েছিলেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। তিনি বলেছিলেন, প্রাথমিক তদন্তের পরিপ্রেক্ষিতে আহমেদ কবীরকে ওএসডি করার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি জামালপুরের ডিসির একটি আপত্তিকর ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। ভিডিওটিতে ডিসি আহমেদ কবীরের সঙ্গে তার অফিসের এক নারীকর্মীকে অন্তরঙ্গ অবস্থায় দেখা যায়।

বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে খন্দকার সোহেল আহমেদ নামে একটি ফেসবুক আইডি থেকে জেলা প্রশাসকের আপত্তিকর ভিডিওটি পোস্ট করা হয়। যদিও বিষয়টি অস্বীকার করে ঘটনাটি ‘সাজানো’বলে দাবি করেন ডিসি আহমেদ কবীর। ওই ঘটনায় জামালপুরসহ সারা দেশের মানুষের মাঝে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।

Leave a comment

উপরে