‘গুজব ছড়িয়ে গণপিটুনি প্রতিরোধে কঠোর সরকার’

‘গুজব ছড়িয়ে গণপিটুনি প্রতিরোধে কঠোর সরকার’

প্রকাশিত: ২২-০৭-২০১৯, সময়: ১৩:৫১ |
খবর > জাতীয়
Share This

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : ‘ছেলেধরা’ গুজবে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সন্দেহভাজন সাধারণ মানুষকে পিটিয়ে হত্যার যাতে পুনরাবৃত্তি না ঘটে সে ব্যাপারে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কঠোর বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। সোমবার সচিবালয়ে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে একথা জানান মন্ত্রী।

গণমাধ্যমে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, চলতি মাসে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় অপরিচিত কাউকে দেখলে ছেলেধরা সন্দেহে অন্তত ২২টি গণপিটুনির ঘটনা ঘটেছে। এতে প্রাণ হারিয়েছেন পাঁচজন ও আহত হয়েছেন আরও ২৬ জন।

শনিবার (২০ জুলাই) রাজধানীর উত্তর বাড্ডায় মেয়েকে ভর্তি করাতে গেলে স্থানীয় একটি স্কুলের সামনে ছেলেধরা গুজব ছড়িয়ে তাসলিমা বেগম রেনু (৪০) নামে এক নারীকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়।

‘পদ্মাসেতুতে মাথা লাগবে’ -এমন গুজবের উপর ভিত্তি করেই ছেলেধরা সন্দেহে নির্বিচারে বেশ কয়েকটি অমানবিক মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। তবে পদ্মাসেতু কর্তৃপক্ষ স্পষ্ট জানিয়েছে, সেটি গুজব ছাড়া কিছুই নয়।

তবে এ পর্যন্ত ছেলেধরা সন্দেহে যতগুলো গণপিটুনির ঘটনা ঘটেছে, প্রত্যেকটি ঘটনা আমলে নিয়ে তদন্তে নেমেছে পুলিশ। এসবে জড়িতদের আইনের আওতায় আনার চেষ্টা চলছে।

ছেলেধরা গুজবে পাড়া-মহল্লায় যে হত্যাকাণ্ডগুলো ঘটছে, এ অমানবিক দৃশ্য সৃষ্টি হচ্ছে- এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে চাইলে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী কাদের বলেন, ‘এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে আমি কথা বলেছি, তারা বিষয়টির পুনরাবৃত্তি রোধে কঠোর অবস্থান নিয়েছেন, এটাই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আমাকে জানিয়েছেন।’

দলীয় নেতাকর্মীরা জড়িত থাকলে কী নির্দেশনা? জানতে চাইলে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, দলীয় নেতা-কর্মীদের কেউ যদি জড়িত থাকে তাদের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে আমরা আপোষহীন। সবার ক্ষেত্রে একই রকমের আইন প্রযোজ্য হবে, একই রকমের ব্যবস্থা প্রযোজ্য হবে, দলীয় লোকের জন্য আলাদা কোনো ব্যবস্থা শেখ হাসিনার সরকার কখনও করেনি, এখনও করবে না, ভবিষতেও না।

উপরে