কৃত্রিম পা লাগাতে সিআরপিতে ভর্তি হলেন রাসেল

কৃত্রিম পা লাগাতে সিআরপিতে ভর্তি হলেন রাসেল

প্রকাশিত: ১১-০৪-২০১৯, সময়: ২২:১৫ |
Share This

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : কথাকাটাকটির জেরে বাসের চাপায় পা হারানো রাসেল সরকার কৃত্রিম পা লাগানোর জন্য সাভারের পক্ষাঘাতগ্রস্ত ব্যক্তিদের পুনর্বাসন কেন্দ্র ‘সেন্টার ফর দ্য রিহ্যাবিলিটেশন অব দ্য প্যারালাইজড’ (সিআরপি)-তে ভর্তি হয়েছেন। সেখানে প্রাথমিকভাবে তার বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষাও করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১১ এপ্রিল) সকালে রাসেল পরিবারের সদস্যদের নিয়ে সাভারের সিআরপিতে উপস্থিত হলে তার পায়ের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেন চিকিৎসকরা। পরে তারা জানান, পা লাগানোর সময় ২১ দিন তাকে সেখানে অবস্থান করতে হবে।

তিনি জানান, কৃত্রিম পা লাগানোর জন্য আজ সকালে সাভারের হাসপাতালে গিয়েছিলাম। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আমাকে ভর্তি নিয়েছেন। ডাক্তাররা আমাকে দেখেছেন, কিছু চেকআপও করা হয়েছে। ভর্তি নিলেও এখন আমি বাসায় চলে এসেছি। শনিবার আবারও হাসপাতালে যাব।

কোন ডাক্তারের তত্ত্বাবধানে ভর্তি হলেন, জানতে চাইলে রাসেল সরকার বলেন, দুজন ডাক্তার আজ আমাকে দেখেছেন। তবে তাদের নাম জিজ্ঞাসা করিনি। দুজনের মধ্যে একজন বিদেশি ডাক্তারও ছিলেন।

ভর্তি হওয়ার পরেও বাসায় কেন- জানতে চাইলে রাসেল বলেন, আমার পারিবারিক কিছু কাজ এবং গ্রীনলাইনের দেয়া ৫ লাখ টাকার চেক ভাঙানোসহ অন্যান্য কাজও করতে হবে তাই বাসায় ফিরেছি। শনিবার আবার যাব। এর আগে বুধবার (১০ এপ্রিল) বিকেলে হাইকোর্টের নির্দেশে আদালতের মাধ্যমে প্রাইভেটকারচালক রাসেল সরকারকে ৫ লাখ টাকার চেক দেয় গ্রীনলাইন পরিবহন কর্তৃপক্ষ।

হাইকোর্টের বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ গ্রীনলাইনের মালিক মো. আলাউদ্দিন ও তার আইনজীবীর মাধ্যমে রাসেলের হাতে এই চেক তুলে দেয়া হয়। এসময় আদালত চেকটি যাচাই-বাচাই করেন। বাকি ৪৫ লাখ টাকা বুঝিয়ে দেয়ার জন্য তাদের এক মাস সময় বেঁধে দিয়েছেন হাইকোর্ট। আদালত আদেশে সিআরপি বা অন্য কোনো হাসপাতালে রাসেলের কৃত্রিম পা স্থাপনসহ সব চিকিৎসার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে গ্রীনলাইন পরিবহনকে বলেন।

গত বছর ২৮ এপ্রিল মেয়র মোহাম্মদ হানিফ ফ্লাইওভারে কথা কাটাকাটির জেরে গ্রীনলাইন পরিবহনের বাসচালক ক্ষিপ্ত হয়ে প্রাইভেটকার চালকের ওপর দিয়েই বাস চালিয়ে দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই প্রাইভেটকার চালক রাসেল সরকারের (২৩) বাম পা বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এ ঘটনায় গাইবান্ধার একই এলাকার বাসিন্দা জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত মহিলা আসনের সরকারদলীয় সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট উম্মে কুলসুম স্মৃতি রিট আবেদন করেন।

এই রিট আবেদনে হাইকোর্ট ২০১৮ সালের ১৪ মে রুল জারি করেন। রুলে কেন রাসেলকে এক কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে নির্দেশ দেয়া হবে না তা জানতে চাওয়া হয়। এই রুলের ওপর শুনানি শেষে হাইকোর্ট গত ১২ মার্চ এক রায়ে ৫০ লাখ টাকা দিতে নির্দেশ দেন।

এরপর হাইকোর্ট রুলের শুনানি নিয়ে রাসেলকে ক্ষতিপূরণ বাবদ ৫০ লাখ টাকা দেয়ার নির্দেশ দেন। একই সঙ্গে রাসেলের চিকিৎসা-সংক্রান্ত যাবতীয় খরচ গ্রীন লাইন পরিবহন কর্তৃপক্ষকে বহন করতে এবং তার কৃত্রিম পা লাগানোর ব্যবস্থা করতে বলা হয়। পরে এ নিয়ে আরও কয়েক দফা আদেশ হয়েছে। এসব আদেশের ধারাবাহিকতায় গত ৪ এপ্রিল হাইকোর্ট ১০ এপ্রিলের মধ্যে ক্ষতিপূরণ হিসেবে রাসেল সরকারের অনুকূলে ৫০ লাখ টাকা দিতে নির্দেশ দেন। অন্যথায় ১১ এপ্রিলের টিকিট বিক্রি বন্ধ রাখতে নির্দেশ দেন আদালত।

Leave a comment

আরও খবর

  • অসুস্থ কিডনির ৭টি লক্ষণ
  • ধূমপায়ীরা ফুসফুস পরিষ্কার রাখবেন যেভাবে
  • সাত হাজার চিকিৎসক নিয়োগের সিদ্ধান্ত
  • ওষুধ উৎপাদনে ৪৮ দেশের মধ্যে শীর্ষে বাংলাদেশ
  • কলার জুসেই কি বেশি উপকার?
  • সিরাজগঞ্জে চিকিৎসকের অবহেলায় রোগী মৃত্যুর অভিযোগ
  • রাজশাহীতে বিশ্ব হিমোফিলিয়া দিবস পালিত
  • ‘সারাদেশে আরও ৮ মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় করা হবে’
  • নকল সিগারেটেই বেশি স্বাস্থ্যঝুঁকি
  • কৃত্রিম পা লাগাতে সিআরপিতে ভর্তি হলেন রাসেল
  • ক্যান্সার চিকিৎসায় নতুন সাফল্যের খবর
  • চিকেন পক্স প্রতিরোধ করবে যেসব খাবার
  • বাগমারায় জাতীয় কৃমি নিয়ন্ত্রণ সপ্তাহের উদ্বোধন
  • টিভি আসক্তিতে রোগঝুঁকি বাড়ে নীরবে
  • কৃমিনাশক খেয়ে ২২ শিক্ষার্থী হাসপাতালে



  • উপরে