দু’জনকে একসঙ্গে ভালোবাসা ভুল নয়!

দু’জনকে একসঙ্গে ভালোবাসা ভুল নয়!

প্রকাশিত: ০১-০৬-২০১৯, সময়: ১৭:৫৪ |
Share This

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : এক মনে কি দু’জনকে রাখা যায়? আবার মনে জায়গা দিলেও কি একই রকমভাবে ভালোবাসা সম্ভব? অনেকেই নিশ্চয়ই বলবেন যায় আবার কেউ বলবেন যায় না। তবে যারা বিষয়টিকে পজেটিভভাবে নিয়েছেন তারাই সঠিক উত্তরদাতা! কীভাবে? দেশ-বিদশের নানা সমীক্ষা বলছে, বেশির ভাগ মানুষের মনেই ঘাপটি মেরে থাকে অন্য আর একজনের প্রতি টান। সেই টানে কেউ কেউ সম্পর্ক পর্যন্ত গড়ান, কেউ বা সমাজের ভয়ে ঢোঁক গেলেন ওখানেই। কিন্তু কেন এমন হয়? কী বলছে বিজ্ঞান?

মনোবিজ্ঞানের মতে, প্রত্যেকটি মানুষই বিভিন্ন পৃথক বৈশিষ্ট্যযুক্ত হন। এক জন মানুষের মধ্যে সবটুকু পছন্দের বৈশিষ্ট্য যে মিলবেই, এমন নয়। তাই ভাল লাগার কোনো গুণ বা স্বভাব থেকে প্রেম বা ভালবাসার অনুভূতি দু’জনের প্রতিই জন্মাতে পারে। পিটুইটারি গ্রন্থি ও ফিল গুড হরমোনরাই এর জন্য দায়ী। এ প্রসঙ্গে মনোবিদের মত, জন্মের শুরু থেকেই এক সঙ্গে দু’জনকে অর্থাৎ মা-বাবাকে ভালবাসে মানুষ। কাজেই একসঙ্গে দু’জনকে ভালবাসার ক্ষমতা তার জন্মগত। কিন্তু যখনই সম্পর্ক বা দাম্পত্যের কথা আসে, তখনই আমরা সতর্ক হয়ে যাই। কেন জানেন?

আসলে সমাজ এসব সম্পর্ককে বাঁধে সামাজিক ও আর্থিক সুবিধা বুঝে। এসব জটিলতা এড়াতেই সে নিজস্ব কিছু নিয়ম চালু করে ও সেখানে যৌনতাকেও জুড়ে দেয়। তবে মনে রাখা দরকার, সম্পর্ক কিন্তু মোটেও শরীরসর্বস্ব নয়। শরীরে এক জনের হয়ে মনে মনে দু’জনের হয়ে থাকাও যা, মন ও শরীর উভয়েই দু’জনের হয়ে থাকায় কোনো ফারাক নেই। কেউ দু’জনকেই ভালবাসি বললে, তাকে ‘মিথ্যে’ বলে ধরে নেয়ার প্রবণতা আমাদের রয়েছে। বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়েও প্রশ্ন ওঠে সেখানে। কিন্তু অনেকেই দায়-দায়িত্ব দু’জনের ক্ষেত্রেই পালন করেন। এখানে অবশ্যই সঙ্গের মানুষদের অভিমান বা কষ্টের বিষয়টি আলাদা প্রসঙ্গ। কিন্তু কেউ দু’জনকে ভালবাসার দাবি করলে তা মিথ্যে নয়।’

তবে ভালবাসার মধ্যেও রকমফের হয়। কোনোটা দীর্ঘস্থায়ী হয়, কোনোটা কিছুদূর হেঁটেই পথ বদলায়। তাই বুঝে নেয়া দরকার, কোনটা ক্ষণিকের ভাললাগা আর কোনটা টিকে থাকার মতো অনুভূতি। তবে দুই সঙ্গীকেই দু’টি সম্পর্কে থাকার কথা জানানোর সাহস পাননা অশান্তি আর সমাজের ভয়েই। তাই বেছে নিতে হয় একজনকে। তৈরি হয় জটিলতা। বিভিন্ন মাপকাঠিতে মাপতে গেলে সমস্যা যেন আরো বেড়ে যায়। এক জনের সঙ্গে গল্পে মশগুল থাকা আপনার পছন্দের, তো আর একজনের সঙ্গে ভবিষ্যৎ সম্পর্কে আপনি নিশ্চিত। এমন পর্যায়ও তৈরি হতেই পারে।

মনোবিদদের মতে, সঙ্গী থাকা সত্ত্বেও অন্য একজনকে মনে ঠাঁই দিলে আত্মদংশনে ভোগার কারণ নেই। কোনো সম্পর্কে কোনো প্রতিযোগিতা থাকে না। দায়-দায়িত্বে অবহেলা না করে, নিজের অবস্থান ও সাহস বুঝে তবেই এগোন। অন্তত সমাজ ও নিজের অনুভব, এই অসম লড়াই লড়তে পারার মতো শক্তি আছে কি না ভেবেই এগোন, তবে মনে রাখবেন একসঙ্গে দু’জনকে ভালবাসায় কোনো অন্যায় নেই।

Leave a comment




উপরে