দন্ডিত খালেদা জিয়ার জামিন বহাল

দন্ডিত খালেদা জিয়ার জামিন বহাল

প্রকাশিত: ১৬-০৫-২০১৮, সময়: ০৯:৪৬ |
Share This

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত হয়ে কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ। হাইকোর্টের জামিন আদেশ স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষ ও দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা আপিল খারিজ করে বুধবার এ নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

একই সঙ্গে ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে হাইকোর্টে করা খালেদা জিয়ার আপিল শুনানি শেষ করার নির্দেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগে। প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

এর আগে গত ৮ ও ৯ মে খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন আদেশের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদকের করা আপিল আবেদনের ওপর শুনানি হয়। শুনানি শেষে মামলাটির রায় ঘোষণার জন্য মঙ্গলবার দিন নির্ধারণ করেছিলেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

প্রসঙ্গত,গত ১২ মার্চ দুদকের আবেদনের শুনানি নিয়ে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়াকে চার মাসের অন্তর্র্বতীকালীন জামিন দেন বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ। পাশাপাশি এ মামলায় খালেদা জিয়ার সাজা কেন বৃদ্ধি করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন আদালত।

পরে ১৯ মার্চ খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন আদেশ আগামী ৮ মে পর্যন্ত স্থগিত করেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার বিচারপতির আপিল বেঞ্চ। একইসঙ্গে এই আদেশের বিরুদ্ধে দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষকে আপিলের অনুমতি দেন আদালত। আর আপিল আবেদনের সারসংক্ষেপ পরবর্তী দুই সপ্তাহের মধ্যে জমা দিতে দুদককে নির্দেশ দেন। এছাড়া ৮ মে ওই আপিল আবেদনের ওপর শুনানির তারিখ ধার্য করেন।

প্রসঙ্গত, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন রাজধানীর বকশীবাজারে স্থাপিত অস্থায়ী পঞ্চম বিশেষ জজ আদালত। রায় ঘোষণার পরপরই তাকে ওই দিন বিকালে নাজিম উদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। তিনি এখন সেখানেই আছেন। ওই রায়ে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন আদালত। একইসঙ্গে এ মামলার অপর আসামি তার বড় ছেলে তারেক রহমানসহ বাকি পাঁচজনকে ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়। পাশাপাশি তাদের ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা জরিমানাও করা হয়।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৩ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় অপর মামলাটি করে দুদক। এ মামলায় ২০০৯ সালের ৫ আগস্ট আদালতে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়।

আরও খবর

  • চলে গেলেন নৃত্যের জীবন্ত কিংবদন্তি
  • শিবগঞ্জে প্রচন্ড গরমে ৫ জনের মৃত্যু
  • নাটোরে হত্যা মামলায় ৫ জনের ফাঁসি
  • নিশ্চিন্ত শাহরিয়ার, নতুন স্বপ্নে চাঁদ
  • রাজশাহীতে তৃণমূলের রোষানলে লাঞ্ছিত আ.লীগের ২ মনোনয়ন প্রত্যাশী
  • বাঘায় আ.লীগ নেতার ভাইয়ের ঘরে ভিজিএফ চাল
  • শেষটায় পারলো না বাংলাদেশের মেয়েরা
  • ফেসবুকে ঝড় উঠে রামেক হাসপাতালে শয্যা পেলেন ‘নৃত্যগুরু’
  • ঈদে মাঠে নামছেন বিএনপির সহস্রাধিক প্রার্থী
  • ৩০০ আসনে আ.লীগের দেড় হাজার প্রার্থীর দৌড়ঝাঁপ
  • রাজশাহীতে পুলিশ একাডেমির ক্যাডেট ব্যারাকে অগ্নিকাণ্ড
  • তরুণ ভোটারদের ফেরাতে আ.লীগে বিশেষ উদ্যোগ
  • রাজশাহী-৪ আসনে শক্ত অবস্থানে গুরু-শিষ্য
  • রাজশাহীতে বাসের টিকিট পাবেন কখন কিভাবে
  • সৌদিতে সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের ৪ বাংলাদেশি নিহত


  • উপরে