রাজশাহী নগরের মানুষ অত্যন্ত শান্ত ও ভদ্র : বিদায়ী কমিশনার

রাজশাহী নগরের মানুষ অত্যন্ত শান্ত ও ভদ্র : বিদায়ী কমিশনার

প্রকাশিত: ০২-০৮-২০১৭, সময়: ২২:১২ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীর মানুষ অত্যন্ত শান্ত এবং ভদ্র। এখানে নেই কোন সন্ত্রাস, চাঁদাবাজী ও খুন। নির্বিঘ্নে মানুষ চলাচল করতে পারে। এছাড়াও আমার কোন শত্রু ছিলনা এখানে। এই মহানগরীর জনগণ আমাকে অত্যন্ত কাছের মানুষ হিসেবে গ্রহণ করেছেন। আমি রাজশাহী মহানগরবাসীকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। বুধবার বিকেলে রাজশাহী নগরের একটি কমিউনিটি সেন্টারে রাজশাহী মহানগর কমিউনিটি পুলিশিং ও মাদক ব্যবসা পরিত্যাগকারীদের আয়োজনে বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্টানে মহানগর পুলিশ কমিশনার মো: শফিকুল ইসলাম এসব কথা বলেন।
তিনি আরও বলেন, পুলিশ জনগণের বন্ধু এটা বাস্তবে রুপদানের জন্য তিনি নিরলস চেষ্টা করে সফল হয়েছেন। আগামীতে তার এ চেষ্টা অব্যাহত থাকবে বলেন এই পুলিশ কর্মকর্তা।
পুলিশ কমিশনার শফিকুল ইসলাম বলেন, রাজশাহীর মানুষকে শান্তিতে রাখা এবং নিরাপত্তার জন্য তিনি মাদকের বিরুদ্ধে জিহাদ ঘোষনা করেছিলেন। তিনি মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারীদের নিয়ে বিভিন্ন স্থানে একাধিক সভা করেছেন তাদের আলোর পথে ফিরিয়ে আনার জন্য। তার ডাকে সাড়া দিয়ে ৩৩৩ জন মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারী মাদক ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এসেছে বলে তিনি জানান।
পুলিশ কমিশনার বলেন, চলে গেলেও এই মাদক বিরোধী কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে এবং পুলিশ কর্মকর্তাদের তার অবর্তমানে এই কার্যক্রম আরও বেগমান করার নির্দেশ দিয়ে যাবেন। সেই সাথে মাদকের বিরুদ্ধে সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তি ও কমিউনিটি পুলিশিং এর সদস্যদের সক্রিয় ভাবে কাজ করার অনুরোধ জানান তিনি।
শফিকুল ইসলাম বলেন, মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারীদের জন্য নতুন জীবন নামে একটি সমবায় সমিতি গঠন করা হয়েছে। আগামী সপ্তাহে এর নিবন্ধন হলেই কার্যক্রম শুরু হবে। এখানে মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারীরা যারা নতুন জীবনে ফিরে এসেছেন তারাই শুধু কাজ করবেন। সরকার এতে অর্থায়ন করবেন বলে তিনি আশ্বস্থ করেন। এ সমিতির সদস্যরা যারা এখনো মাদক ব্যবসা ও সেবন ছাড়ে নাই তাদের বুঝিয়ে আলোর পথে নিয়ে আসবেন বলে তিনি আশা করেন।
মঞ্চে উপস্থিত বক্তারা কমিশনারের পথ অনুসরন করে রাজশাহীকে মাদকমুক্ত রাখার জন্য কাজ করবেন বলে প্রতিশ্রিুতি দেন। সেইসাথে উপস্থিত শত শত মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারীরা আর অন্ধকার জগতে ফিরে যাবেন না বলে প্রতিশ্রুতি দেন। তারা সকলেই কমিশনারের দীর্ঘ্যায়ু কামনা করেন। সেই সাথে কমিশিনারকে অতিথিবৃন্দ ও মাদক ছেড়ে আসা ব্যক্তিরা ফুল ও ক্রেষ্ট দিয়ে বিদায় সংবর্ধনা জানান।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন রাজপাড়া থানা কমিউিনিটি পুলিশিং এর সভাপতি আজিজুল আলম বেন্টু। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপ-কমিশনার (পশ্চিম) আমির জাফর, উপ-কমিশনার (সদর) তানভীর হায়দার চৌধুরী ও সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার ও আরএমপির মুখপাত্র ইফতে খায়ের আলম।
সভাপতির বক্তব্যে আজিজুল আলম বেন্টু বলেন, আরএমপিতে শফিকুল ইসলাম কমিশনার হিসেবে যোগদানের পর কমিউনিটি পুলিশিং সক্রিয় হয়। তিনি জনগণকে শান্তিতে রাখার জন্য নিরলস চেষ্টা করেছেন। তিনি রাজশাহী মহানগরকে মাদকমুক্ত করে মানুষের মনে স্বস্তি ফিরিয়ে দিয়েছেন। কমিশনারের চলমান মাদক বিরোধী কার্যক্রম আরও বেগমান করার জন্য কাজ করবেন বলে প্রতিশ্রুতি দেন আজিজুল আলম বেন্টু।
সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নুরুল ইসলাম টান্ডু, শাহমুখদম থানা কমিউিনিটি পুলিশিং এর সভাপতি ফারুক হোসেন ও বোয়ালিয়া থানা কমিউিনিটি পুলিশিং এর সভাপতি কামরুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য শফিকুল ইসলাম বরিশাল রেঞ্জের ডিআইজি হিসেবে বদলী হয়েছেন।

উপরে