ইরাকে তুর্কি কূটনীতিক হত্যার প্রতিশোধ নেবে আঙ্কারা

ইরাকে তুর্কি কূটনীতিক হত্যার প্রতিশোধ নেবে আঙ্কারা

প্রকাশিত: ১৮-০৭-২০১৯, সময়: ১২:৪৮ |
Share This

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : ইরাকের স্বায়ত্তশাসিত কুর্দিস্তান অঞ্চলের রাজধানী ইরবিলের একটি রেস্তোরাঁয় গুলি করে এক তুর্কি কূটনীতিককে হত্যার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান।

তুরস্ক ছাড়াও এ হামলার ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে ইরান ও ইরবিলের কুর্দি কর্তৃপক্ষ। তুর্কি সরকার এ হামলার প্রতিশোধ নেয়ার হুমকি দিয়ে জানিয়েছে, এরই মধ্যে হামলাকারীদের চিহ্নিত করা ও ধরার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। খবর বিবিসির। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোগানের মুখপাত্র ইব্রাহিম কালিন টুইট করে বলেছেন, ‘এ হামলায় জড়িতদের উপযুক্ত শাস্তি দেয়া হবে।’

তবে এখন পর্যন্ত এ হামলার দায় স্বীকার করেনি কোনো গোষ্ঠী। তুরস্কে বহু দশক ধরে লড়াই করা কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টির (পিকেকে) পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এ হামলার সঙ্গে তাদের কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই।

তুরস্কের সীমান্তবর্তী ওই এলাকায় স্থানীয় সময় বুধবার দুপুর আড়াইটার দিকে ওই হামলা হয়।

তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভাসোগলু জানান, বুধবার ইরবিলের তুর্কি কনস্যুলেটের উপপ্রধান হাক্কাবাজ নামে একটি রেস্তোরাঁয় দুপুরের খাবার খাচ্ছিলেন।

হঠাৎ তিন বন্দুকধারী তাকে লক্ষ্য করে গুলি চালিয়ে পালিয়ে যায়। এতে তুর্কি কূটনীতিক ও একজন ইরাকি নাগরিক নিহত হন, আহত হন আরেক ইরাকি নাগরিক।

কুর্দিস্তানের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সম্ভাব্য হামলাকারীদের ধরতে তল্লাশি অভিযান শুরু করেছে।

তুর্কি সরকার তুরস্ক ও ইরাকে কুর্দি বিচ্ছিন্নতাবাদীদের বিরুদ্ধে সেনা অভিযান পরিচালনা করে বলে কুর্দি বিদ্রোহীরা আঙ্কারার ওপর ক্ষুব্ধ।

এদিকে তুর্কি কূটনীতিক নিহত হওয়ার ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছে ইরান। ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাইয়েদ আব্বাস মুসাভি এক বিবৃতিতে ওই হামলার নিন্দা জানিয়েছেন।

উপরে