স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন স্থগিত

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন স্থগিত

প্রকাশিত: ০১-০৮-২০১৯, সময়: ১৪:৪৭ |
Share This

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : সচিবালয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেকের নির্ধারিত সংবাদ সম্মেলন ‘অনিবার্য কারণবশত’ স্থগিত করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. মাইদুল ইসলাম প্রধান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে মন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন স্থগিত করার বিষয়টি জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘ডেঙ্গু প্রকোপ, বর্তমান পরিস্থিতি ও চিকিৎসা ব্যবস্থা সংক্রান্ত বিষয়ে সর্বশেষ পরিস্থিতি’ নিয়ে আজ ১ আগস্ট প্রেস ব্রিফিং হওয়ার কথা ছিল, তা অনিবার্যকারণবশত স্থগিত করা হলো।

এ বিষয়ে মো. মাইদুল ইসলাম বলেন, ‘দুপুরের সংবাদ সম্মেলন অনিবার্য কারণবশত স্থগিত করা হয়েছে। তবে দুপুরে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের মেয়রদের সঙ্গে এক জরুরি বৈঠকে বসেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। মূলত ডেঙ্গু নির্মূলে করণীয় সম্পর্কে এ জরুরি বৈঠক অনুষ্ঠিত হচ্ছে।’

বৈঠকে দুই সিটি করপোরেশনের মেয়র ছাড়াও স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলামও মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত রয়েছেন।

এর আগে মিটফোর্ড হাসপাতালে চিকিৎসকদের জন্য আয়োজিত ডেঙ্গু বিষয়ক সাইন্টিফিক সেমিনারে বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। বক্তব্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা ডেঙ্গু টেস্টিংয়ের কয়েক লাখ কিটস আনার ব্যবস্থা করেছি। আজ রাতের মধ্যে ১ লাখ কিটস আসবে। আগামীকাল বাকিগুলোও চলে আসবে।

তিনি বলেন, ঈদের সময় ডেঙ্গু রোগীরা বাড়িতে যাবে, এ সময় ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব আরও বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে। তাই ডেঙ্গু প্রতিরোধে সবাইকে একসঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানাচ্ছি। ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে আমরা আমাদের মন্ত্রণালয়ের সবার ঈদের ছুটি বাতিল করেছি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরো বলেন, এখন পর্যন্ত কোনো সরকারি হাসপাতালে গিয়ে কোনো রোগী ডেঙ্গুর চিকিৎসা পায়নি, এমনটা হয়নি। কিন্তু ডাইজেস্টিভ ইনস্টিটিটিউট, বার্ন ইনস্টিটিউটের মতো কিন্তু কিছু কিছু হাসপাতাল আছে, যেগুলো উদ্বোধন করা হলেও চিকিৎসাসেবা এখনও শুরু হয়নি। দেশে যদি ডেঙ্গু রোগের প্রাদুর্ভাব বাড়ে এবং সরকারি হাসপাতালে যদি রোগী না ধরে, তাহলে আমরা এসব হাসপাতালে রোগী রাখার ব্যবস্থা করব। কেননা এসব হাসপাতালে শয্যার ব্যবস্থা রয়েছে।

জাহিদ মালিক বলেন, ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণের সিটি কর্পোরেশন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়সহ সব সরকারি সংস্থাগুলো কাজ করছে। আশা করছি, খুব অল্প দিনের মধ্যে ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণ করতে পারব।

এরপর তিনি মিটফোর্ট হাসপাতালের ১০০ শয্যার ৪টি ডেঙ্গু ওয়ার্ড উদ্বোধন করে ৩-৪ জন রোগীর সঙ্গে কথা বলেন। এসময় সাংবাদিকরা তার সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করলেও তিনি কোনো কথা না বলে চলে যান।

প্রসঙ্গত, দেশজুড়ে ডেঙ্গু পরিস্থিতির অবনতির মধ্যেই ব্যক্তিগত ভ্রমণে গত ২৭ জুলাই মালয়েশিয়া যান স্বাস্থ্যমন্ত্রী। ৪ আগস্ট তার দেশে ফেরার কথা ছিল। তবে দেশে ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাবের মধ্যে বিদেশ ভ্রমণের কারণে সমালোচনার মুখে পড়ায়, বুধবার রাত ১টার দিকে দেশে ফেরেন তিনি।

উপরে