বাঘার চার ইউপিতে প্রার্থী ২৮৮

বাঘার চার ইউপিতে প্রার্থী ২৮৮

প্রকাশিত: ১২-০৯-২০১৯, সময়: ২৩:০৯ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাঘা : রাজশাহীর বাঘায় দীর্ঘ ১৭ বছর পর আগামী ১৪ অক্টোবর উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের মধ্যে ৪টিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ নির্বাচনকে ঘিরে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে শেষদিন বৃহস্পতিবার নিজ-নিজ কর্মী সমর্থকদের সাথে করে মনোনয়ন দাখিল করেছেন স্ব-স্ব প্রার্থীরা। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৩৪ সংরক্ষিত নারী আসনে ৬৫ ও সাধারণ সদস্য পদে ১৮৯ জন মনোনয়ন জমা দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

উপজেলার বাজুবাঘা, গড়গড়ি, মনিগ্রাম ও পাকুড়িয়া এ চারটি ইউনিয়নে ইতোমধ্যে ক্ষমতাশীন আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী চুড়ান্ত করলেও প্রতিটা ইউনিয়নে একাধিক বিদ্রোহী প্রার্থী মনোনয়ন জমা দিয়েছেন বলে সুত্র নিশ্চিত করেছে। অপরদিকে এখন পর্যন্ত দলীয় প্রার্থী চুড়ান্ত করতে পারেনি বিএনপি। এ সংগঠনের মধ্যে একটি ইউনিয়ন পাকুড়িয়া বাদে বাঁকি তিনটিতে প্রায় ডজন খানেক প্রার্থী চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার প্রত্যাশায় মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন বলে নিশ্চিত করেন দলের সাবেক উপজেলা সভাপতি অধ্যাপক জাহাঙ্গীর হোসেন।

উপজেলা নির্বাচন অফিসার মজিবুল আলম জানান, এখানে মনোনয়ন জমা দেয়ার শেষ তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর বিকেল ৫ টা পর্যন্ত চেয়ারম্যান পদে বিএনপি থেকে দলীয় প্রধান স্বাক্ষরিত মনোনয়ন কেও আনতে পারেনি। তবে আ’লীগ থেকে চারজন প্রার্থী যথাক্রমে-বাজুবাঘা ইউনিয়নে ফজলুর রহমান ফজল, গড়গড়িতে রবিউল ইসলাম, পাকুড়িয়ায় মেরাজ সরকার ও মনিগ্রাম ইউনিয়নে অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম দলীয় প্রধানের স্বাক্ষককৃত প্যাডে মনোনয়ন পেয়েছেন।

সবমিলে এখানে চেয়ারম্যান পদে বাজুবাঘায় ১৩ জন, গড়গড়ীতে ১১ জন পাকুড়িয়ায় ৪ জন এবং মনিগ্রামে ৬ জন সর্বমোট ৩৪ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। এ ছাড়াও সাধারণ ওয়ার্ড সদস্যে হিসাবে বাজু বাঘায় ৩৭ জন, গড়গড়ীতে ৪৯ জন, পাকুড়িয়ায় ৪৭ জন এবং মনিগ্রামে ৫৬ জন মনোনয়ন জমা দিয়েছেন। একই সাথে সংরক্ষিত নারী আসনে বাজু বাঘায় ১৪ জন, গড়গড়ীতে ১৭ জন পাকুড়িয়ায় ১১ জন এবং মনিগ্রামে ২৩ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন বলে নিশ্চিত করেন উপজেলা নির্বাচন অফিসার মজিবুল আলম। এখানে আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর মনোনয়ন যাচাই-বাছাই, ২২ সেপ্টেম্বর প্রতাহারের শেষদিন এবং ১৪ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে চার ইউনিয়ন পরিষদ কাংখিত নির্বাচন।

বাঘা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুল জানান, একটি বড় দলে দ্বিদ্ধা-দ্বন্দ্ব থাকবে এটায় সভাবিক। তবে সামনে সময় আছে। আমরা চেষ্টা করবো আগামী ২২ তারিখের মধ্যে বিদ্রোহীদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করানোর।

Leave a comment

উপরে