বাঘায় উপজেলা ভোটের প্রস্তুতি, মনোনয়ন চাইবেন যারা

বাঘায় উপজেলা ভোটের প্রস্তুতি, মনোনয়ন চাইবেন যারা

প্রকাশিত: ০৫-০১-২০১৯, সময়: ১২:৪৯ |
Share This

সেলিম ভান্ডারী, বাঘা : রাজশাহীর বাঘায় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন শেষ হতে না হতেই শুরু হয়েছে উপজেলা নির্বাচনের তোড়জোড়। চেয়ারম্যান ও ভাইস-চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হতে দলীয় মনোনয়ন ও সমর্থন পেতে বড় আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নেতারা শুরু করেছেন দৌড়ঝাঁপ। এতে দু’দলের একাধিক সম্ভাব্য প্রার্থী রয়েছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে। স্ব-স্ব অবস্থানে সবাই দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার আশাবাদী।

আগামি ফেব্রুয়ারী মাসে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল মার্চে নির্বাচন ধরে নিয়ে তৎপরতা শুরু করেছেন তারা। এবার প্রথমবারের মত উপজেলা চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হবে। সে ক্ষেত্রে প্রার্থীদের দল থেকে মনোনয়ন নিতে হবে।

নির্বাচনের ঘোষণা আসার পর পরই বাঘায় উপজেলা চেয়ারম্যান পদে কে কে প্রার্থী হতে চান তা নিয়ে শুরু হয়েছে আলোচনা। ইতোমধ্যেই অনেকেই দলীয় মনোনয়ন চাওয়ার বিষয়টি জানান দিচ্ছেন। আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তারা হলেন, জেলা আওয়ামী লীগের লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট লায়েব উদ্দীন লাভলু, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও বাঘা পৌরসভার সাবেক মেয়র আক্কাছ আলী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুল, সিনিয়র সহ-সভাপতি আজিজুল আলম, বাঘা উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বাঘা পৌরসভার প্যানেল মেয়র শাহিনুর রহমান পিন্টু, পৌরসভা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মামুন হোসেন। এদের মধ্যে লায়েব উদ্দিন লাভলু ও আক্কাস আলী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন চেয়ে বঞ্চিত হয়েছেন।

অপরদিকে, উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি মনোনয়ন চাইবেন বলে শোনা যাচ্ছেন, উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও বর্তমান আহবায়ক অধ্যাপক জাহাঙ্গীর হোসেন, বাঘা থানা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক যুবদলের সভাপতি আব্দুল্লাাহ আল মামুন।

আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন নিয়েই অংশ গ্রহন করবেন বলে জানিয়েছেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুল। দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার ব্যপারে শতভাগ আশাবাদি বলে জানান তিনি।

এছাড়াও দলীয় মনোনয়ন নিয়ে এবার উপজেলা নির্বাচনে অংশ নিবেন বলে জানিয়েছেন বাঘার সাবেক মেয়র আক্কাছ আলী। তিনি বলেন, ‘পৌরসভায় দির্ঘদিন মেয়র থেকে এলাকার ব্যাপক উন্নয়ন করেছি। এবার উপজেলা চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করতে চাই। আশা করি দল আমাকে মনোনয়ন দেবে।’

এদিকে জনপ্রিয়তায় এগিয়ে রয়েছে আরেক সম্ভাব্য প্রার্থী এ্যাডভোকেট লায়েব উদ্দীন লাভলু। জনপ্রিয়তার বিবেচনায় দলীয় মনোনয়ন দেয়া হলে তিনি পাবেন বলে মনে করছেন তার ঘনিষ্টজনরা।

অপরদিকে, বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীরা জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ করলে দলীয় মনোনয়ন নিয়ে প্রার্থী হতে চান। উপজেলা বিএনপির আহবায়ক অধ্যাপক জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, বর্তমান প্রেক্ষাপটে আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি অংশ নিবে কিনা তা নিশ্চিত নয়। তবে দল নির্বাচন করলে আমি মনোনয়ন চাইবো।

উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান ও জামায়াত নেতা আলহাজ্ব মাওলানা জিন্নাত আলী বলেন, আগামি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো কিনা তা নিয়ে এখনো কোন সিদ্ধান্ত নেয়নি। তবে তফসিল ঘোষনার পর দলীয় সিদ্ধান্ত মোতাবেক আগাবেন বলে জানান তিনি।

আরও খবর

  • তৃতীয় ধাপে উপজেলায় স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান ৩৬
  • নির্মাণাধীন ভবনে ছাত্রলীগ নেতার ঝুলন্ত লাশ
  • ক্যালিফোর্নিয়ায় মসজিদে আগুন
  • দরকার গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি
  • ভোলাহাটে বিজয়ী চেয়ারম্যানের ভোট ১৯ হাজার
  • রাজশাহী বার ভবন নির্মাণে ৩ কোটি টাকা দিবেন আইনমন্ত্রী
  • এ বছর থেকেই তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত থাকছে না পরীক্ষা
  • মালিতে ১৩৪ মুসলিমকে গুলি করে হত্যা
  • ভোটকেন্দ্রে সংঘর্ষ, পুলিশ গুলিবিদ্ধ
  • দৃষ্টির সীমানা ছাড়িয়ে গেলেন সংগীত শিল্পী শাহনাজ
  • বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রকে বাস থেকে ফেলে হত্যা
  • সপ্তাহে তিনটির বেশি ডিম খেলেই হৃদরোগের ঝুঁকি
  • মোটর বাইকের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ২
  • জিএম কাদেরকে সরিয়ে সংসদ উপনেতা রওশন
  • আইএসের ‘খিলাফতের’ অবসান



  • উপরে