রাজশাহীতে পেঁয়াজের বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত

রাজশাহীতে পেঁয়াজের বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত

প্রকাশিত: ০১-১০-২০১৯, সময়: ২২:৪০ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক : দেশে বিদ্যমান পরিস্থিতিতে রাজশাহীর খুচরা ও পাইকারি বাজারে পেঁয়াজের দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে রাজশাহী জেলা প্রশাসন। পাইকারি বাজারে ইন্ডিয়ান পেঁয়াজের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে সর্বোচ্চ ৫৪ থেকে ৫৫ টাকা, আর খুচরা বাজারে ৬০ টাকা। দেশি পেঁয়াজের দাম পাইকারি বাজারে ৬০ থেকে ৬৫ টাকা, আর খুচরা বাজারে সর্বোচ্চ মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৭০ টাকা।

মঙ্গলবার দুপুরে রাজশাহীর সাহেব বাজার কাঁচাবাজার ও মাস্টার পাড়া, নিউমার্কেট, কোর্ট হরগ্রাম বাজারসহ নগরীর গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে এই মূল্য নির্ধারণ করে দেয়া হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন রাজশাহী জেলার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রাফে মোহাম্মদ ছড়া। তবে ভোক্তাদের অভিযোগ মূল্য নির্ধারণের কোন প্রভাব বাজারে পড়েনি। এখনো বর্ধিত দরেই বাজারে পেঁয়াজ বিক্রি করা হচ্ছে।

নির্বাহী ম্যাজিস্টেট রাফে মোহাম্মদ জানান, রাজশাহীর বাজারে পেঁয়াজের দাম অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে বলে আমাদের কাছে অভিযোগ আসে। সরবরাহ ঘাটতির দোহাই দিয়ে এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী রাজশাহীসহ দেশে পেঁয়াজের বাজার অস্থির করে তুলেছে। তাই বাজার তদারকি করতে রাজশাহীর বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে। সরকার কর্তৃক নির্ধারিত মূল্যোর বাইরে কেউ যাতে পোঁয়াজ বিক্রি না করে, সে বিষয়ে মঙ্গলবার রাজশাহীর সকল ব্যবসায়ীকে সতর্ক করে দেয়া হলো। একই সাথে বাজারে পেঁয়াজের দাম নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে।

সরকার কর্তৃক নির্ধারিত দাম অনুসারে, খুচরা ব্যবসায়ীরা পাইকারী বাজার থেকে ইন্ডিয়ান পেঁয়াজ কিনবেন সর্বোচ্চ ৫৫ টাকায় এবং তা বিক্রি করবেন ৬০ টাকায়। একই ভাবে দেশি পেঁয়াজ পাইকারি বাজার থেকে কিনবেন সর্বোচ্চ ৬০ থেকে ৬৫ টাকায় এবং তা বিক্রি করবেন ৭০ টাকায়। আগামীতে এর বাইরে কোন ব্যবসায়ী পেঁয়াজ বিক্রি করলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
তবে বিকেলে সাহেব বাজার মাস্টার পাড়া কাঁচা বাজারে গিয়ে দেখা গেছে সেই বর্ধিত দারেই ব্যবসায়ীরা পেঁয়াজ বিক্রি করছেন। নির্ধারিত মূল্যের বাইরে বাজারে ভারতীয় পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৮৫ থেকে ৯০ টকায়া, আর দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৯৫ থেকে ১০০ টাকায়।

মঙ্গলবার বিকেলে মাস্টার পাড়ায় বাজার করতে আসা সোনিয়া মেহযাবিন অভিযোগ করে বলেন, দুপুরে শুনলাম পেঁয়াজের দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে সরকার। তবে বিকেলে বাজারে এসে এর কোন প্রভাব দেখলাম না। সকালে বা গতকাল যে দামে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছিল, বিকেলেও সেই একই দারে বিক্রি হচ্ছে হেচ্ছ!

সাহেব বাজর কাঁচা বাজারের খুচরা ব্যবসায়ী জামাল অভিযোগ করে বলেন, যেদিন ভারত সরকার পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ ঘোষণা করলো ওই দিন সকালে ঘোষণার আগে প্রতি কেজি পেঁয়াজ পাইকারি বাজার থেকে কিনেছি ৫৫ টাকায়। আর ভারতের ঘেষণার পর দুপুরে পাইকারি বাজারে ওই একই পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ৮৫ টাকায়! আমরা খুচরা ব্যবসায়ী, পাইকারী বাজার থেকে যে দামে পাবো, তার সাথে দুই এক টাকা যোগ দিয়ে বিক্রি করি। আগে বস্তা ধরে পেঁয়াজ কিনতাম, বাজারে এই অবস্থার পর এখন পাঁচ-সাত কেজি কিনে ব্যবসা করছি।

তিনি আরো বলেন, সরকার যে দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে যদি পাইকারি বাজারে ঠিক থাকে তবে খুচরা বাজারেও ঠিক থাকবে। আমাদের মতো খুচরা ব্যবসায়ীদের এই বাজারে কোন হাত নেই। যদি বেশি সমস্যা দেখি, তাহলে ঝামেলা এড়াতে দোকানে পেঁয়াজ তুলবো না। অন্যান্য সবজি নিয়ে ব্যবসা করবো।

Leave a comment

উপরে