বছরের শুরুতেই বাড়বে সোনার দাম

বছরের শুরুতেই বাড়বে সোনার দাম

প্রকাশিত: ২৮-১০-২০১৮, সময়: ১৩:৩৯ |
Share This

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : নতুন বছরের শুরুতেই বাড়তে যাচ্ছে সোনার দাম। ফরাসি বিনিয়োগ ব্যাংক সোসিয়েতে জেনারেল সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদনে আগামী প্রথম প্রান্তিক নাগাদ সোনার দাম আউন্সপ্রতি ২৫ ডলার বাড়ার সম্ভাবনার কথা ব্যক্ত করেছে।

আসন্ন লন্ডন বুলিয়ন মার্কেট অ্যাসোসিয়েশনের বৈঠক সামনে রেখে স্বর্ণের বাজার পরিস্থিতি নিয়ে স্বর্ণের দাম সম্পর্কিত প্রতিবেদনটি প্রকাশ করেছে প্যারিসভিত্তিক সোসিয়েতে জেনারেল। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, উত্তর কোরিয়া ও ইরানকে কেন্দ্র করে ভূ-রাজনৈতিক উত্তেজনা, চীন-মার্কিন বাণিজ্যযুদ্ধসহ বিভিন্ন কারণে ২০১৮ সালটি সোনার জন্য খুব একটা ভালো যাচ্ছে না। মূল্যের ক্রমাগত উত্থান-পতনের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে মূল্যবান ধাতুটির বাজার পরিস্থিতি। চলতি বছরের শেষ প্রান্তিকে আন্তর্জাতিক বাজারে প্রতি আউন্স স্বর্ণের সর্বোচ্চ দাম ১ হাজার ২৫০ ডলারে সীমাবদ্ধ থাকতে পারে বলে জানিয়েছে বাজার বিশেষজ্ঞরা। তবে উত্থান-পতনের ধারাবাহিকতায় আগামী বছরের শুরুতে সোনার দাম আরো ২৫ ডলার বেড়ে ১ হাজার ২৭৫ ডলারে পৌঁছানোর জোরালো সম্ভাবনা রয়েছে। সম্ভাবনা রয়েছে। উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্রের স্পট মার্কেটে সর্বশেষ কার্যদিবসে প্রতি আউন্স স্বর্ণ ১ হাজার ২৩৩ ডলার ১৭ সেন্টে কেনাবেচা হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, মুদ্রাবাজারে মার্কিন ডলারের শক্তিশালী অবস্থানকে বছরের শেষ প্রান্তিকে স্বর্ণের দামে উত্থান-পতনের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হিসেবে বিবেচনা করা হবে। মূলত চীনের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্যযুদ্ধের জের ধরে মুদ্রাবাজারে ডলার বেশ শক্তিশালী অবস্থানে রয়েছে। নভেম্বরে ইরানের বিরুদ্ধে নতুন করে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হলে মধ্যপ্রাচ্যে ভূরাজনৈতিক উত্তেজনা বেড়ে গেলে আন্তর্জাতিক মুদ্রা বাজারে ডলারের অবস্থান আরো জোরালো হবে। ফলে স্বর্ণের দাম কমার সম্ভাবনা রয়েছে।

তবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে স্বর্ণের চাহিদা আগের তুলনায় বেড়েছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়। মূলত এ কারণেই চলতি বছরের চতুর্থ বা শেষ প্রান্তিকে মূল্যবান ধাতুটির দাম কিছুটা বেড়ে আউন্সপ্রতি ১ হাজার ২৫০ ডলার হতে পারে বলে মনে করছে সোসিয়েতে জেনারেল।

প্রতিষ্ঠানটির পণ্যবাজারবিষয়ক বিশ্লেষক রবিন ভার এই প্রসঙ্গে বলেন, বছরের শেষ সময়ে এসে বিভিন্ন দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংক স্বর্ণ কেনা বাড়িয়ে দিয়েছে। একই সঙ্গে ভারতে অক্টোবর-নভেম্বরে দশেরা ও দীপাবলি উৎসবকে কেন্দ্র করে উৎসবের মৌসুম শুরু হওয়ায় স্বর্ণের চাহিদা ও বেচাকেনা আগের তুলনায় বেড়েছে এসব কারণে চলতি বছরের চতুর্থ প্রান্তিকে এসে মুদ্রাবাজারে ডলারের অবস্থান তুলনামূলক শক্তিশালী থাকা সত্ত্বেও স্বর্ণের দাম কিছুটা বাড়তে পারে।

এবিষয়ে চেন্নাইভিত্তিক এমএনসি বুলিয়নের পরিচালক প্রকাশ রাঠোর বলেন, মুদ্রাবাজারে রুপি ভালো অবস্থানে নেই। এর পরও উৎসবের মৌসুমে বাড়তি চাহিদা ভারতে স্বর্ণের বাজারকে চাঙ্গা করেছে। কারণ অভ্যন্তরীণ বাজারে বাড়তি চাহিদার চাপ সামলাতে ভারতীয় আমদানিকারক ও ব্যবসায়ীরা স্বর্ণ আমদানি বাড়িয়েছেন। এতে আন্তর্জাতিক বাজারেও মূল্যবান ধাতুটির চাহিদা বেড়েছে। এই পরিস্থিতিকে স্বর্ণের বাজারের জন্য লাভজনক বলে বিবেচনা করা হচ্ছে।



উপরে