করোনাশঙ্কা: ১৫ জেলায় ৩৪ জনের দণ্ড

করোনাশঙ্কা: ১৫ জেলায় ৩৪ জনের দণ্ড

প্রকাশিত: মার্চ ১৮, ২০২০; সময়: ১০:৪৫ অপরাহ্ণ |
Share This

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : মরণঘাতী করোনা ভাইরাসে বাংলাদেশে একজনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে আইইডিসিআর। এছাড়া করোনা সন্দেহে এখন পর্যন্ত আইসোলেশনে রাখা হয়েছে ১৬ জনকে। আর সরকারিভাবে বিভিন্ন হাসপাতালে ৪২ জনসহ সারাদেশে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে কয়েক হাজার লোককে।

এদিকে, কারও শরীরে করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) সুপ্ত থাকলে তা যাতে সহজেই চিহ্নিত করা যায় এবং তা যাতে ছড়িয়ে না পড়ে, সে লক্ষ্যে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে দেশে ফেরা ব্যক্তিদের নিজ নিজ বাড়িতে কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দিয়েছে সরকার। তবে সরকারি নির্দেশ অমান্য করে বিভিন্ন জনের যত্রতত্র ঘুরে বেড়ানোর অভিযোগও পাওয়া গেছে। দেশের ১৫টি জেলায় অন্তত ৩৪ জনকে অর্থদণ্ড দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। যেসব জেলায় দণ্ড দেয়া হয়েছে।

চট্টগ্রামে ৬ জনকে:- করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ অমান্য করায় চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ছয় প্রবাসীকে দণ্ডবিধি ১৮৬০ অনুযায়ী ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ৫৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এই ছয় প্রবাসীর একজন নগরীর, অন্যরা চট্টগ্রামের বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তৌহিদুল ইসলাম।

কক্সবাজারে ৩ জনকে:-বাইরে ঘুরে বেড়ানোর অভিযোগে কক্সবাজারে বিদেশ ফেরত তিন জনকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। বুধবার (১৮ মার্চ) রাত ৮টার দিকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন কক্সবাজার জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. শাহজাহান আলী।

নারায়ণগঞ্জে ৩ প্রবাসীকে:-সরকারি বিধিনিষেধ অমান্য করায় নারায়ণগঞ্জে তিন প্রবাসীকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে উপজেলা প্রশাসন। বন্দর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শুক্লা সরকার জানান, বুধবার (১৮ মার্চ) সকাল থেকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তিদের খোঁজ নিতে গিয়ে মুছাপুর বারপাড়া এলাকায় এক প্রবাসীকে বাইরে ঘোরাঘুরি অবস্থায় পাওয়া গেছে। তখনই ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে তাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

অন্যদিকে, বিকালে সদর উপজেলার ফতুল্লা থানার শিবু মার্কেট এলাকায় অভিযান চালিয়ে হোম কোয়ারেন্টাইন না মানায় দুই প্রবাসীকে পাঁচ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড প্রদান করেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাহিদা বারিক। একইসঙ্গে তাদের বাধ্যতামূলক ১৭ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইনে (পর্যবেক্ষণে) পাঠানো হয়, যা তদারকি করবে উপজেলা প্রশাসন। দুই প্রবাসীর মধ্যে একজন কুয়েত ও অপরজন সৌদি আরব প্রবাসী।

মৌলভীবাজারে ৩ জনকে:- হোম কোয়ারেন্টাইনে না থাকার অপরাধে মৌলভীবাজারে তিন জনকে ১৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করেছে জেলা প্রশাসন। আজ দুপুরে মৌলভীবাজার শহরে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে জেলা প্রশাসনের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দ আমজাদ হোসেন এই অর্থদণ্ড করেন। সিভিল সার্জন মো. তৌহিদ আহমদ জানান, শাস্তিপ্রাপ্তরা যাতে হয়রানির শিকার না হন তাই নাম ও পরিচয় গোপন করা হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুই জনকে:- হোম কোয়ারেন্টাইনের থাকার আদেশ অমান্য করায় জেলার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার রূপসদী গ্রামে ওমান ফেরত এক যুবককে এবং আখাউড়া উপজেলার ধরখার ইউনিয়নের ছতুরা শরীফ গ্রামের ইতালি প্রবাসী এক যুবককে বুধবার দুপুরে পাঁচ হাজার টাকা করে ১০ হাজার টাকা জরিমানা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

নওগাঁয় একজনকে:- নওগাঁর ধামইরহাটে বিদেশ ফেরত একজন হোম কোয়ারেন্টাইন অমান্য করে লোকালয়ে আসায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে তাকে এক হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১৭ মার্চ) বিকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার গণপতি রায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে তার অর্থদণ্ড করেন। গত ১১ মার্চ ব্রুনাই থেকে দেশে ফিরে ছয় দিন ঢাকায় অবস্থান করে ওই যুবক। হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দিয়ে ১৬ মার্চ ধামইরহাটে গ্রামের বাড়িতে পাঠানো হলেও তিনি বাড়িতে এসে প্রকাশ্যে চলাফেরা করতে থাকেন। এ কারণে তাকে জরিমানা করা হয় এবং আরও সাত দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়।

মানিকগঞ্জে একজনকে:- মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলায় হোম কোয়ারেন্টাইন না মানায় ইরাক ফেরত এক ব্যক্তিকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় এ পর্যন্ত চার জনকে জরিমানার আওতায় আনা হলো। শিবালয় উপজেলা নির্বাহী অফিসার কেএম ফিরোজ মাহমুদ বুধবার এই জরিমানা করেন। একইসঙ্গে ওই ব্যক্তির সংস্পর্শে আসা পরিবারের অন্য সদস্যদেরও কোয়ারেন্টাইনের নির্দেশ দেয়া হয়।

জামালপুরে একজন:- জামালপুর পৌর এলাকার বগাবাইদ গ্রামের এক নারী গত ১৪ মার্চ দেশে ফিরে আসেন। তার বিরুদ্ধে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশনা মান্য না করার অভিযোগ পায় জেলা প্রশাসন। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত ওই নারীর বাড়িতে গেলে তার স্বজনরা জানান, তিনি মোবাইল ফোন কেনার জন্য মার্কেটে গিয়েছেন। কিছুক্ষণ অপেক্ষার পর ওই নারী ফিরে এলে হোম কোয়ারেন্টাইনে না থাকার অভিযোগে সংক্রামক ব্যাধি আইনে তাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

কুমিল্লায় এক পরিবারকে:- কুমিল্লার লাকসামে হোম কোয়ারেন্টাইনের নিয়ম না মানায় ইতালি প্রবাসীর পরিবারকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। স্ত্রী ও দুই শিশুসহ তিনি অবাধে ঘোরাঘুরি করছিলেন। জরিমানাসহ ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিতের জন্যে বাড়ির মূল ফটকে তালাও দেয়া হয়েছে।

সুনামগঞ্জে একজন:-হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ না মানায় সুনামগঞ্জের ছাতক পৌর শহরে এক সৌদি প্রবাসীকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আাদালত। বুধবার বিকালে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ছাতক উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. গোলাম কবিরের নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

টাঙ্গাইলে ৪ জনকে:-হোম কোয়ারেন্টাইনে না থাকায় টাঙ্গাইলে চার ব্যক্তিকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। বুধবার (১৮ মার্চ) পৃথক ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে এ জরিমানা আদায় করা হয়। টাঙ্গাইলের সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ওয়াহীদুজ্জামান এ তথ্যটি নিশ্চিত করেন।

হবিগঞ্জে ফ্রান্স প্রবাসীকে:-হবিগঞ্জের লাখাইয়ে ফ্রান্স ফেরত একজনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ অমান্য করে বের হওয়ায় ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। বুধবার লাখাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) সঞ্চিতা কর্মকার এ জরিমানা করেন। এর আগে হোম কোয়ারেন্টাইন না মেনে ওই প্রবাসী যুবক বিয়েও করেন। বিয়ের খবর জানতে পেরে তার ওয়ালিমা অনুষ্ঠান বন্ধ করে দিয়েছে প্রশাসন। নির্দেশ অমান্য করলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে জেল-জরিমানা করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

মাদারীপুরে দুই প্রবাসীকে:-হোম কোয়ারেন্টাইনে না থেকে বাইরে ঘোরাফেরার দায়ে মাদারীপুরের কালকিনিতে এক স্পেন ফেরত প্রবাসীকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে দুই মাসের কারাদণ্ড এবং ইতালি ফেরত এক প্রবাসীকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে এক মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

দিনাজপুরে একজনকে:-সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে লোকালয়ে বের হওয়ায় দিনাজপুরের খানসামায় দুবাইফেরত এক ব্যক্তিকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। বুধবার বিকালে খানসামা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আহমেদ মাহবুব-উল-ইসলাম এই জরিমানার রায় দেন।

পাবনায় একজনকে:-হোম কোয়ারেন্টাইন ছেড়ে দোকানে আড্ডা দেয়ায় পাবনা সদর উপজেলার দাপুনিয়া গ্রামে মালয়েশিয়া ফেরত এক ব্যক্তিকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা অনেকের বিরুদ্ধে বিয়ে বাড়িতে দাওয়াত খাওয়াসহ বাইরে ঘোরাফেরার অভিযোগ পাওয়া গেছে। তাদের প্রত্যেককে সতর্ক করা হয়েছে। প্রত্যেকের প্রতি বিশেষ নজরদারি রাখা হচ্ছে। নিষেধ অমান্য করলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জয়নাল আবেদীন।

Leave a comment

উপরে