পপুলেশন সায়েন্সের বদলে ফলিত পরিসংখ্যান চায় রাবি শিক্ষার্থীরা

পপুলেশন সায়েন্সের বদলে ফলিত পরিসংখ্যান চায় রাবি শিক্ষার্থীরা

প্রকাশিত: ১৬-০২-২০২০, সময়: ২২:৪২ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাবি : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) পপুলেশন সায়েন্স অ্যান্ড হিউম্যান রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট বিভাগের নাম পরিবর্তন করে ফলিত পরিসংখ্যান করার দাবি জানিয়েছে বিভাগটির শিক্ষার্থীরা।

এ দাবিতে রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের স্যার জগদীশ চন্দ্র বসু একাডেমিক ভবনে বিভাগটির সামনে শিক্ষার্থীরা অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের আশ্বাসে দুপুর দেড়টা থেকে শুরু হওয়া শিক্ষার্থীদের আন্দোলন বিকেল পাঁচটায় শেষ হয়।

এর আগে গত ১৯ জানুয়ারি থেকে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে বিভাগের শিক্ষার্থীরা তাদের বিষয়কোড পিএসসিতে অন্তর্ভুক্ত করার দাবি জানিয়ে আসছিলেন।

বিভাগের শিক্ষার্থীরা জানান, সকালে তারা বিভাগে গিয়ে শিক্ষকদের সঙ্গে বিষয়কোড অন্তর্ভুক্তের বিষয়ে কথা বলতে চান। তবে শিক্ষকেরা দুপুর পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলেননি। এতে দুপুর দেড়টার দিকে প্রায় দু’শ শিক্ষার্থী বিভাগের সামনে বারান্দায় বসে অবস্থান নেন। এ সময় তারা পিএসসিতে বিষয়কোড অন্তর্ভুক্তের দাবি জানিয়ে স্লোগান দিতে থাকেন।

বিভাগের নাম পরিবর্তন বিষয়ে শিক্ষার্থীরা জানান, পৃথিবীর কোথাও এ নামে কোনো বিষয় নেই। তাদেরকে পরিসংখ্যানের ৭৫ শতাংশ কোর্স পড়তে হয়। তাই তারা এই বিভাগের নামের পরিবর্তন চায়।

কয়েকজন শিক্ষার্থী নাম না প্রকাশ করার শর্তে বলেন, আজকে অবস্থান কর্মসূচির একপর্যায়ে বিভাগের সভাপতি এসে তাদেরকে বলেন, ‘তোমাদের আন্দোলনে ইন্ধনদাতা রয়েছে। তাদের খোঁজে বের করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ পরে শিক্ষার্থীরা বলে উঠে, ‘ইন্ধনদাতা মানে কে, ইন্ধনদাতা তারা সবাই।’

শিক্ষার্থীরা জানান, প্রক্টর স্যার তাদের আশ্বাস দিয়েছে আগামীকাল বেলা ১১টায় উপাচার্য দপ্তরে শিক্ষকরা তাদেরকে নিয়ে বসবেন। তবে তার আগে যদি ‘ইন্ধনদাতা’ বলার বিষয়টি লিখিতভাবে প্রত্যাহার করে না নেয়, তবে তারা নাও বসতে পারে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মো. লুৎফর রহমান বলেন, “শিক্ষার্থীরা তাদের অবস্থান তুলে নিয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সোমবার বিভাগের শিক্ষক, শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলবে।”

এ বিষয়ে বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক নজরুল ইসলাম মণ্ডলের কাছে জানতে চাইলে তিনি শিক্ষকদের নিয়ে মিটিংয়ে ব্যস্ত আছেন বলে ফোন কেটে দেন।

উপরে