জ্ঞান চর্চায় রাবিতে নির্মিত হচ্ছে পাঁচ ভাস্কর্য

জ্ঞান চর্চায় রাবিতে নির্মিত হচ্ছে পাঁচ ভাস্কর্য

প্রকাশিত: ১৬-০৯-২০১৯, সময়: ১৪:৫১ |
Share This

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, রাবি : জ্ঞান-বিজ্ঞানে নিবেদিত মনীষীদের অবদান ও এর ইতিহাস সংরক্ষণে রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ে (রাবি) নির্মিত হচ্ছে ৫টি ভাস্কর্য। বিশ^বিদ্যালয়ের সৌন্দর্যবর্ধন প্রকল্পের আওতায় ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্থানে এই ৫টি ভাস্কর্য নিমার্ণ করা হচ্ছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, প্রধান ফটক সংলগ্ন সাবাশ বাংলা মাঠে নির্মিত হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইউরাল সম্বলিত ‘ওয়েবসাইট’ ভাস্কর্য। শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ সিনেট ভবনের সামনে নির্মিত হচ্ছে ‘বই’র ভাস্কর্য যা উন্নত বিদ্যাপীঠের নির্দেশক। পাশাপাশি ড. মুহম্মদ কুদরাত-এ-খুদা ও স্যার জগদীশচন্দ্র বসু একাডেমিক ভবনের মাঝে স্থাপিত হয়েছে ‘কিউব’ ভাস্কর্য। এতে ৮ বিজ্ঞানীর সংক্ষিপ্ত জীবনকর্ম উল্লিখিত থাকবে। কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে নির্মিত হচ্ছে ‘বইয়ের আদল’ যাতে ৮ সমাজ বিজ্ঞানী, সাহিত্যিক ও গবেষকের জীবনী ও কর্ম উল্লিখিত থাকবে। এছাড়াও জুবেরী ভবনের পশ্চিম দিকে একটি ‘নির্দেশক পোল’ যেখানে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ এবং স্পটের দুরত্ব দেখানো হবে।

প্রকৌশল দফতর সূত্রে জানা যায়, ৪টি ভাস্কর্য স্থাপনের জন্য বাজেট বরাদ্দ করা হয়েছে ৩ লক্ষ ৯৮ হাজার ৬৮০ টাকা। কিউব ভাস্কর্যটির জন্য ৪ লক্ষ ৪২ হাজার টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ড. রকীব আহমেদ এবং মৃৎশিল্প ও ভাস্কর্য বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক একেএম আরিফুল ইসলামের নির্দেশনায় স্থাপনাগুলো নির্মাণের দায়িত্ব পেয়েছে ‘শাহিদ এন্ড ব্রাদার্স কোম্পানি’ নামের একটি প্রতিষ্ঠান।

জানতে চাইলে বিশ^বিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. চৌধুরী মো. জাকারিয়া বলেন, বিশ^বিদ্যালয় হলো জ্ঞান চর্চার জায়গা। শিক্ষার্থীরা সব জায়গা থেকে জ্ঞান আহরণ করবে। সেই প্রয়াস থেকে মাননীয় উপাচার্যের নির্দেশে এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

উপরে