হৃদরোগে রাবি শিক্ষার্থীর মৃত্যু

হৃদরোগে রাবি শিক্ষার্থীর মৃত্যু

প্রকাশিত: ১১-০২-২০১৭, সময়: ১৫:২৩ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাবি : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) নাট্যকলা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের এক শিক্ষার্থী চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। শনিবার ভোর ৪টার দিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ৩২ নম্বর ওয়ার্ডে তিনি মারা যান। মৃত ওই শিক্ষার্থীর নাম আবু সাইদ। তার বাড়ি ঠাকুরগাঁও জেলার রাণীশঙ্কর উপজেলায়।
সহপাঠীরা জানান, শুক্রবার দুপুরে খাওয়া-দাওয়া শেষে বিভাগে আসলে সাইদের পেটে জা¡লা-পোড়া করছে বলে সে জানায়। এসময় সে নিজের কাছে থাকা একটা গ্যাস্ট্রিকের ওষুধ খায়। অবস্থার উন্নতি না হলে রাবির মেডিকেল সেন্টারে যায়। সেখানে তাকে একটা ইনজেকশন দেওয়া হয়। প্রায় এক ঘণ্টা চিকিৎসা শেষে বিভাগে চলে আসে।
বিভাগের এক শিক্ষার্থী জানান, ‘সাইদের দ্বিতীয় বর্ষের ফাইনাল পরীক্ষার চূড়ান্ত প্রযোজনার ‘নির্বাসন দণ্ড’ নাটকটি শুক্রবার সন্ধ্যায় প্রদর্শিত হয়। সেখানে সাইদকে অভিনয় করার কথা ছিল। যেহেতু সে অসুস্থ ছিল তাই তাকে আমরা জিজ্ঞাসা করি তুই প্রোডাকশনে কাজ করবি কি না? ও নাটক করতে পারবে বলে জানায়। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় নাটক শুরু হয়, শেষ হয় সাড়ে ৮টায়। এরপর আবার সে অসুস্থ বোধ করলে তাকে আবার রাবি মেডিকেল সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান চিকিৎসক তার আগের ব্যবস্থাপত্র দেখে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন।’
সঙ্গে থাকা সহপাঠীরা বলেন, ‘রামেক-এ ভর্তি করলে সেখানে চিকিৎসকরা তিন ধরনের টেবলেট দেয়, সঙ্গে একটা ইনজেকশন। ইনজেকশন ও ওষুধ খাওয়ার ১০ মিনিটের মধ্যে সাইদ ঘুমিয়ে যায়। এর মধ্যে সে দুই-তিনবার চেতনা পায়। রাত ৪টার দিকে হঠাৎ আমরা সাইদের অদ্ভুত শব্দে জেগে উঠি। আমরা দেখি সে বমি করছে। এর মধ্যে ইন্টার্ন ডাক্তার এসে একটা ইনজেশন আনতে দেয়। ইনজেকশন আনার আগেই সাইদ মারা যায়।’
এ বিষয়ে নাট্যকলা বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. শাহরিয়ার হোসেন বলেন, ‘হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা গেছে বলে ডেথ সার্টিফিকেটে বলা হয়েছে। বেলা সাড়ে ১১টায় তার সহপাঠীরা সাইদের লাশ নিয়ে ঠাকুরগাঁও রওয়ানা হয়েছে।

উপরে