ধামইরহাটে ধানের সাথে শত্রুতা!

ধামইরহাটে ধানের সাথে শত্রুতা!

প্রকাশিত: ১৭-০২-২০২০, সময়: ১৭:০৮ |
Share This

নিজস্ব প্রতিবেদক, ধামইরহাট : নওগাঁর ধামইরহাটে জমির ধান বিনস্ট করার মামলায় জামিনে এসে আবারও একই কায়দায় ৮ বিঘা জমির ধান বিনষ্ট করেছে প্রতিপক্ষরা।

বাদী ইসমাইল হোসেনের এজাহারের বর্ণনায় জানা গেছে, উপজেলার চৌঘাট মৌজাস্থ্য জে,এল নম্বর-৫৪, আর এস ২২১ নম্বর খতিয়ানভুক্ত ৬৯৮ দাগে ৬.৪১ একর জমির মধ্যে ৪ একর সম্পত্তি ১৯৯৫ সালে পৈত্রিকসূত্রে প্রাপ্ত জমির মালিক ৩ ভাই যথাক্রমে মৃত বৈদ্যনাথ উরাওয়ের ছেলে গঙ্গারাম উরাও, শ্যামাচরন উরাও ও শম্ভুনাথ উরাও স্থানীয় ইসমাইল হোসেনের নিকট রেজিষ্ট্রি কবলায় বিক্রি করেন। ১৫/০৮/১৯৯৫ সালে স্থানীয় রাজস্ব কর্মকর্তার স্বাক্ষরিত আদিবাসীর সম্পত্তি বিক্রয়ের অনুমতি সাপেক্ষে সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসে দলিল সম্পাদন হয়, যা বাদী ২৪ বছর শান্তিপূর্ণ ভোগ-দখলে আছেন

প্রায় ২৪ বছর ভোগ দখলে থাকার পর ২০১৯ সালে উক্ত জমি স্থানীয় দালাল সামাদের কু-পরামর্শে ওই জমি দখল করতে আসে গঙ্গারাম উরাও গংরা। সর্বশেষ চলতি মাসের ১ তারিখে জমির মালিক ইসমাইল হোসেন জমিতে ইরি-বোরো রোপন করলে গঙ্গরাম উরাং গং জমির ধান মই দিয়ে বিনষ্ট করলে ইসমাইল হোসেন থানায় মামলা করে এবং পুরনরায় জমিতে ধান রোপন করে। বিবাদীরা জামিনে এসে ১৬ ফেব্রুয়ারী আবারও জমিতে তীর-ধনুক নিয়ে এসে ইরি-রোরো ধান উপড়ে ফেলে ও কেরোসিন ঢেলে দেয়।

এ সময় জমির পাশে ৫০টি কলাগাছ, ফলবান-সিম-পেপেগাছ কর্তন ও শ্যালো মেশিন ভাংচুর করে প্রায় দেড় লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি করে। ঘটনার বিষয়ে অভিযুক্ত শ্যামাচরন উরাও এর ছেলে রামাকান্ত উরাও বলেন, জমিটি আমাদেরই বাদীরাই আমাদের জমি দখল করেছে বলে কৌশলে ধান বিনষ্টের বিষয়টি এড়িয়ে গেলেও অপর অভিযুক্ত ও মামলার আসামী গঙ্গরাম উরাওয়ের ছেলে রবি উরাও বলেন, ‘জমিটি ১৯৯৫ সাল থেকে ইসমাইল হোসেন দখল ভোগ করতেন এটা সত্য, আমরা ২০১৯ সালে জানতে পারলাম যে, সেখানে আমাদের জমি আছে জন্যই আমরা দখলের চেষ্টা করেছি।’ এ ঘটনায় ইসমাইল হোসেন বাদী হয়ে ধামইরহাট থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

ধামইরহাট থানার ওসি শামীম হাসান সরদার বলেন, বাদীর লিখিত এজাহার পেয়েছি, তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উপরে